খাদ্যপণ্য নিয়ে ষড়যন্ত্রকারীদের রেহাই নেই

-ওবায়দুল কাদের

  যুগান্তর রিপোর্ট ২০ নভেম্বর ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, পেঁয়াজ-লবণ-চাল নিয়ে কৃত্রিম সংকট সৃষ্টিকারী কারও রেহাই নেই। তাদের আইনের আওতায় আনা হবে। মঙ্গলবার রাতে রাজধানীর ধানমণ্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক জরুরি সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। এ সময় তিনি গুজবে কান না দিতে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানান।

তিনি বলেন, পেঁয়াজের পরে লবণ নিয়ে দেশে পরিকল্পিতভাবে গুজব ছড়ানো হচ্ছে। গুজব সৃষ্টি করে লবণের দাম বৃদ্ধির ষড়যন্ত্র করা হয়েছে। বাজারে অরাজকতা-অস্থিরতা সৃষ্টির অপচেষ্টা চালানো হচ্ছে। এখান থেকে কেউ কেউ রাজনৈতিক ফায়দা তোলার অপচেষ্টায় লিপ্ত।

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, তারা এর মধ্যে আগাম নির্বাচনের আওয়াজ তুলেছে। আগাম নির্বাচন চাওয়ার অর্থ হচ্ছে এটি তাদের মামাবাড়ির আবদার। একটি বিরোধী দল এসব গুজব সৃষ্টি করছে। তারা গুজবে উসকানি দিচ্ছে এটি আজ পরিষ্কার। মহলটি দেশে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে চায়।

মন্ত্রী বলেন, দেশে পর্যাপ্ত চালের মজুদ রয়েছে। এর মধ্যে আগামীকাল থেকে সারা দেশে সরকারিভাবে নতুন ধান ক্রয়ের কার্যক্রম শুরু হচ্ছে। কোথাও কোনো সংকট নেই। এ সময় তিনি মিডিয়াসহ সবাইকে দায়িত্বশীল ভূমিকা রাখার আহ্বান জানান।

নতুন সড়ক পরিবহন আইন কার্যকরের প্রতিবাদে ট্রাক-কাভার্ড ভ্যান মালিক সমিতির কর্মবিরতি প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, তারা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনায় বসবেন। আমি আশা করব তাদের সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে। তিনি পুলিশ সদস্যদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, শাস্তি দেয়ার ক্ষেত্রে আপনারা সহনশীল হবেন। আমরা কাউকে শাস্তি দিতে চাই না। আইনের আওতায় আনতে চাই; এটা সবার জন্য জরুরি।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগ সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আবদুল মতিন খসরু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, আবদুর রহমান, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমেদ হোসেন, বিএম মোজাম্মেল হক, আ ফ ম বাহাউদ্দীন নাছিম, দফতর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ, কৃষি ও সমবায় সম্পাদক ফরিদুন্নাহার লাইলী, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, তথ্য ও গবেষণাবিষয়ক সম্পাদক আফজাল হোসেন, বন ও পরিবেশনবিষয়ক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন, উপ-দফতর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া প্রমুখ।

দুর্বৃত্তায়নের চক্র ভেঙে দেয়া পর্যন্ত অ্যাকশন চলবে : গাজীপুর প্রতিনিধি জানান, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সেতু ও সড়ক পরিবহনমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অ্যাকশন শুরু হয়ে গেছে। দুর্বৃত্তায়নের চক্র ভেঙে দেয়া পর্যন্ত এ অ্যাকশন চলতে থাকবে। মঙ্গলবার বিকালে আওয়ামী লীগের গাজীপুর মহানগর ও জেলা শাখার প্রতিনিধি সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। শহীদ বরকত স্টেডিয়ামে সভায় মুক্তিযুদ্ধবিষয়কমন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হকের সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, আবদুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী এবং ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী।

সভায় সেতুমন্ত্রী বলেন, চাঁদাবাজি চলবে না। টেন্ডারবাজি চলবে না। মাদক ব্যবসা চলবে না। জমি দখল চলবে না। দুর্নীতি চলবে না। নেতাকর্মীদের উদ্দেশে আওয়ামী লীগকে ঐক্যবদ্ধ রাখার অনুরোধ জানিয়ে বলেন, তৃণমূলের নেতাকর্মীদের সঙ্গে আপনাদের এক থাকতে হবে। কমিটি গঠন করতে গিয়ে পকেট কমিটি করবেন না। দুঃসময়ের ত্যাগীদের অগ্রাধিকার দিতে হবে। অনুপ্রবেশকারী ক্লিন ইমেজধারীদের আমরা স্বাগত জানাব।

সভাপতির বক্তব্যে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল বলেন, আপনারা দেখছেন আমাদের দলের যারা বিপথগামী তাদের কী শাস্তি হয়েছে এবং হচ্ছে। আমাদের সংগঠনের লোক বাদ যায়নি। এর মানে কী? কেউ এ শাস্তি থেকে বাদ যাবে না। যেখানে যে কেলেঙ্কারিতে জড়িত, পেঁয়াজ কেলেঙ্কারি বলেন, অন্যান্য কেলেঙ্কারি বলেন- যারা মানুষের ভাগ্য নিয়ে ছিনিমিনি খেলে তারা সবাই আইনের আওতায় আসবেন। যারা মানুষের দুর্ভোগ সৃষ্টি করে, সে যে-ই হোক তাদের কেউ ছাড় পাবে না।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক বলেন, দলে অনুপ্রবেশকারীদের পথ বন্ধ করতে হবে। তিনি পুরনো ও ত্যাগী নেতাকর্মীদের মূল্যায়ন করার অনুরোধ জানান।

শিক্ষা উপমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী বলেন, বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা দেশবাসীর কাছে যে ঘোষণাপত্র, যে রাজনৈতিক ইশতেহার জনগণের কাছে উপস্থাপন করেছেন, সে অনুযায়ী দলের সব নেতাকে দল পরিচালিত করার অনুরোধ জানিয়েছেন। যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহসান রাসেল বলেন, যখনই আমরা ভালো কাজ করেছি, দেশের উন্নয়ন করেছি, তখনই ওই মহল আমাদের পেছনে ফেলতে, আওয়ামী লীগকে ক্ষমতাচ্যুত করতে ষড়যন্ত্র করছে। আজ পেঁয়াজকে উপলক্ষ করেও তারা ষড়যন্ত্র করছে।

সভায় বক্তব্য দেন ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, সদস্য আখতারুজ্জামান, উপপ্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, সদস্য আজমত উল্লাহ খান, সদস্য সিমিন হোসেন রিমিন এমপি, সদস্য ইকবাল হোসেন (অপু) এমপি, সদস্য গোলাম কবির রাব্বানী (চিনু), জাহিদ আহসান রাসেল এমপি, গাজীপুর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন সবুজ এমপি, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সদস্য আনোয়ার হোসেন, মেহের আফরোজ চুমকি, বেগম শামসুন্নাহার ভূঁইয়া এমপি প্রমুখ। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন গাজীপুর সিটি মেয়র মোহাম্মদ জাঙ্গীর আলম।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×