শিবগঞ্জে দুই গ্রুপ মুখোমুখি

আ’লীগের সমাবেশে এমপি শিমুলকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা

  রাজশাহী ব্যুরো ১৪ মে ২০২০, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

এমপি ডা. শিমুল

চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জে আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা দুই গ্রুপে ভাগ হয়ে সংঘর্ষ ও হামলায় জড়িয়ে পড়ছে।

যার সর্বশেষ ঘটনা ১০ মে রাতে লকডাউন ভেঙে ও দলীয় নির্দেশনা লঙ্ঘন করে শিবগঞ্জ বাজারে উপজেলা আওয়ামী লীগের বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ।

এ সমাবেশ থেকে স্থানীয় এমপি ডা. শিমুলকে শিবগঞ্জ বাজারে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করা হয়েছে। জানা গেছে, বিক্ষোভকালে তারা কয়েক ঘণ্টা শিবগঞ্জ সোনামসজিদ মহাসড়ক ব্যারিকেড দিয়ে ট্রাক চলাচল বন্ধ করে রাখে।

এরপর বিক্ষোভ মিছিল শেষে শিবগঞ্জ থানার সামনে সমাবেশে বক্তব্য দেন সাধারণ সম্পাদক টুটুল খান। তিনি তার বক্তব্যে স্থানীয় এমপি ডা. শিমুলকে শিবগঞ্জ বাজারে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেন। সমাবেশে আরও বক্তব্য দেন উপজেলা সভাপতি নজমুল কবীর মুক্তা। তথ্যানুসন্ধানে জানা গেছে, সোনামসজিদ স্থলবন্দরের দখল, সরকারি ত্রাণের নিয়ন্ত্রণ, সরকারি গুদামে ধান, চাল ও গম বিক্রির দখল নিতেই শিবগঞ্জ আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা দুই গ্রুপে ভাগ হয়ে পড়েছে।

দলীয় এ রেষারেষি প্রসঙ্গে শিবগঞ্জ থানার ওসি শামসুল আলম শাহ বলেন, দুই গ্রুপের রেষারেষি চলছে নির্বাচনের পর থেকেই। এক গ্রুপ আরেক গ্রুপের বিরুদ্ধে হামলা-মামলা করছেন। পুলিশ এ অবস্থায় বিব্রতকর অবস্থায় পড়েছে।

দলীয় নেতাকর্মীদের সূত্রে জানা যায়, গত কয়েক মাস ধরে দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম সোনামসজিদ স্থলবন্দরের দখল নিতে এমপি শিমুল গ্রুপের সঙ্গে মুক্তা-টুটুল খান গ্রুপের নেতাকর্মীদের তুমুল রেষারেষি চলছে।

গত ফেব্রুয়ারি থেকে ৯ মে পর্যন্ত দুই গ্রুপের মধ্যে ১০ দফা মারামারি, হামলা-পাল্টাহামলার ঘটনা ঘটেছে। শিবগঞ্জ থানায় দুই পক্ষ একাধিক মামলা করেছে। উপজেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক টুটুল খানের অভিযোগ- এমপি তার এক ভাইকে দিয়ে বন্দর নিয়ন্ত্রণ করছেন। এমন সব লোকেকে সুবিধা দিচ্ছেন যারা কোনোদিনই দলের হয়ে কাজ করেননি। তারা এসবের প্রতিবাদ করছে মাত্র।

সোনামসজিদ স্থলবন্দর শ্রমিক সমন্বয় কমিটির সভাপতি সাদিকুর রহমান মাস্টার বলেন, ৯ মে সন্ধ্যার সময় টুটুল খান পক্ষের ক্যাডার জেম, আতাউর রহমান রাজু, আলাল, ওবায়দুল, সুলতানরা বন্দর এলাকায় আমার ছেলে সোহেল রানাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করে। ফলে ওই রাতেই সোহেলা রানাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়। রাত ৯টার দিকে হামলাকারীদের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করে সোনামসজিদ এলাকায় ফেরার সময় তালতলা মধ্যবাজার এলাকায় একই ক্যাডাররা আবার আমাদের গাড়িতে হামলা করে ও ভাংচুর চালায়।

সোনামসজিদ শ্রমিক সমন্বয় কমিটির শ্রমিক সদস্যরা ১০ মে সন্ধ্যার দিকে সোহেল রানার ওপর হামলাকারী সুলতানসহ তিনজনের ওপর হামলা চালায়। সুলতান পরে আওয়ামী লীগের ১৫ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেন। অন্যদিকে সুলতানের ওপর হামলার প্রতিবাদে ১০ মে রাত সাড়ে ১০টার দিকে শিবগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তা ও সাধারণ সম্পাদক টুটুল খানের নেতৃত্বে শিবগঞ্জ হাসপাতাল থেকে শুরু করে থানার গেট পর্যন্ত দেড় শতাধিক নেতাকর্মী বিক্ষোভ মিছিল করে। মিছিলে এমপি শিমুলের বিরুদ্ধে স্লোগান দেয়া হয়।

মিছিল শেষে শিবগঞ্জ থানার গেটের সামনে সমাবেশে টুটুল খান সন্ত্রাসীদের মদদ দেয়ায় চাঁপাইনবাবগঞ্জ-১ (শিবগঞ্জ) আসনের এমপি ডা. সামিল উদ্দিন আহমেদ শিমুলকে এলাকায় অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেন। চাঁপাইনবাবগঞ্জ-১ আসনের এমপি ডা. শিমুল যুগান্তরকে বলেন, সোনামসজিদ স্থলবন্দরের নিয়ন্ত্রণ নিতে টুটুল খানরা মরিয়া হয়ে উঠেছে। এ কাজে তারা যাদের দ্বারা বাধাপ্রাপ্ত হচ্ছেন তাদের ওপর সশস্ত্র হামলা করছেন।

লকডাউন ভেঙে বিক্ষোভ মিছিল সমাবেশ প্রসঙ্গে শিবগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক টুটুল খান বলেন, আমাদের দলের নেতাকর্মীদের ওপর এমপির মদদপুষ্ট সন্ত্রাসীরা হামলা করছে। যেখানে পারছে মারধর করছে। পরিস্থিতির কারণেই আমাদেরকে রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ করতে হয়েছে।

 

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত