স্বাস্থ্যবিধি না মেনেই চলছে দিনাজপুরের ঈদ বাজার

ঝুঁকিতে শহরবাসী উদ্বিগ্ন স্বাস্থ্য বিভাগ

  একরাম তালুকদার, দিনাজপুর ১৬ মে ২০২০, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

দিনাজপুরে রেইনবো মার্কেটে শুক্রবার কেনাকাটায় সামাজিক দূরত্ব মানা হচ্ছে না। ছবি-যুগান্তর

নেই ন্যূনতম পারস্পরিক শারীরিক দূরত্ব, তোয়াক্কা নেই কোনো স্বাস্থ্যবিধির। করোনাভাইরাসের মহাদুর্যোগের এ পরিস্থিতিতেও দিনাজপুরে এভাবেই চলছে ঈদ বাজার। এ পরিস্থিতিতে সংক্রমণ অস্বাভাবিকহারে বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কায় উদ্বিগ্ন জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ।

বিক্রেতারা বলছেন, আমরা নিরুপায় আর ক্রেতারা সচেতন নয়। অন্যদিকে, ক্রেতারা বলছেন, প্রশাসনিক কোনো নজরদারিই নেই মার্কেটগুলোতে। ফলে ঝুঁকিতে শহরবাসী।

বৃহস্পতি ও শুক্রবার দিনাজপুর শহরের বিভিন্ন মার্কেট ঘুরে দেখা যায়, ক্রেতাদের উপচেপড়া ভিড়। পারস্পরিক শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখা, জীবাণুনাশক, মাস্ক ও হ্যান্ডগ্লাভস ব্যবহার করাসহ বিভিন্ন শর্তের একটিও মানছে না কেউ।

করোনা পরিস্থিতিতে সারা বিশ্বের মতো গোটা বাংলাদেশও যখন আতঙ্কে, তখন দিনাজপুর শহরের ঈদ মার্কেটে কারও মাঝে নেই উদ্বেগের ছাপ। বিভিন্ন মার্কেটের ক্রেতা-বিক্রেতার এ অবস্থা দেখে দেশ যে করোনার মহামারীর মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে সেটিও বোঝার কোনো উপায় নেই। শুক্রবার বাহাদুরবাজার, জেল রোডের রেইনবো মার্কেট, গুলশান মার্কেট, লুৎফুন্নেছা টাওয়ার, মালদহপট্টিসহ শহরের সব মার্কেটেই ছিল একই অবস্থা।

এ অবস্থা দেখে দিনাজপুর শহরের অনেকেই জানান, শহরে ঢুকে মার্কেটগুলো দেখলে মনেই হবে না দেশে করোনাভাইরাসের মহামারী চলছে। করোনা ঠেকাতে প্রধান শর্ত পারস্পরিক শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখা। অথচ, কারও মাঝে সেই বিধিনিষেধের বালাই নেই। উপচেপড়া ভিড় লেগেছে সব বিপণিকেন্দ্রে। তারা জানান, এ অবস্থা চললেও প্রশাসনিক কোনো নজরদারি নেই।

ঈদ বাজারের এ অবস্থায় দিনাজপুর জেলা সিভিল সার্জন ডা. মো. আবদুল কুদ্দুছের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, যে শর্তে সরকার লকডাউন শিথিল করেছিল, তার ন্যূনতম মানা হচ্ছে না। বাজারের পরিস্থিতি দেখে তিনি উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, এ অবস্থা চলতে থাকলে করোনা সংক্রমণ চরমভাবে বেড়ে যাবে। তখন কারও কিছু করার থাকবে না।

দিনাজপুরের জেলা প্রশাসক মো. মাহমুদুল আলমের সঙ্গে এ বিষয়ে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, বাজার পরিস্থিতির বিষয়টি দেখেছি। অচিরেই এ বিষয়ে ব্যবসায়ীদের সঙ্গে আবারও বৈঠকে বসে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

রমজান ও ঈদুল ফিতরকে বিবেচনায় রেখে সীমিত পরিসরে শপিংমল ও দোকানপাট চালু রাখার বিষয়ে ৭ মে দিনাজপুর জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে জেলা প্রশাসক মো. মাহমুদুল আলমের সঙ্গে বৈঠকে বসেন দিনাজপুর শিল্প ও বনিক সমিতিসহ দোকানদার ও ব্যবসায়ী নেতারা। এ সময় করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধের বিষয়টি মাথায় রেখে বেশ কয়েকটি শর্ত জুড়ে সীমিত আকারে শপিংমল ও দোকানপাট খোলার সিদ্ধান্ত হয়।

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত