প্রধানমন্ত্রীর নগদ অনুদান

তালিকা তৈরিতে অনিয়ম রংপুর ও শরণখোলায়

  যুগান্তর ডেস্ক ১৬ মে ২০২০, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

চলমান করোনা পরিস্থিতিতে কর্মহীন ও হতদরিদ্র পরিবারে নগদ আর্থিক অনুদান দেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। স্থানীয়ভাবে গঠিত কমিটির মাধ্যমে এ লক্ষ্যে তালিকা প্রণয়নের কাজ শুরু হয়েছে।

তবে সুবিধাভোগীদের নামের এই তালিকা তৈরিতে রংপুর সিটি কর্পোরেশনের (রসিক) ২৯ নম্বর ওয়ার্ড ও বাগেরহাটের শরণখোলায় ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। যুগান্তর ব্যুরো ও প্রতিনিধির পাঠানো খবর-

রংপুর : রসিকের ২৯ নম্বর ওয়ার্ডের তালিকায় উল্লেখ করা ব্যক্তির নাম, ঠিকানা ও মুঠোফোন নম্বরে বিভ্রান্তিকর তথ্য পাওয়া গেছে। এমনকি এ ওয়ার্ডের তালিকায় স্থান পেয়েছেন বরিশালের লোকও। আবার ঠিকানা ঠিক থাকলেও ফোন নম্বর দেয়া হয়েছে অন্য উপজেলার ব্যক্তির।

এমন নানা অনিয়মের বিষয়ে স্থানীয়রা রংপুর জেলা প্রশাসক বরাবর লিখিত অভিযোগও দিয়েছেন। তালিকায় উল্লিখিত নামের ব্যক্তিদের লিখিত অভিযোগ পর্যালোচনা করে এবং কমিটির সদস্যদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, রংপুর সিটি কর্পোরেশনের ২৯ নম্বর ওয়ার্ডের তালিকা তৈরির জন্য কাউন্সিলর মোক্তার হোসেনকে আহ্বায়ক ও ওই ওয়ার্ডের ডিজিটাল উদ্যোক্তা রাকিব হাসান রুবেলকে সদস্য সচিব করে আট সদস্যের একটি কমিটি করা হয়।

কমিটির সদস্যরা বিভিন্ন এলাকা ভাগ করে নিয়ে নামের তালিকা সংশ্লিষ্ট কাউন্সিলর অফিসে জমা দেন। এরপর কমিটির সদস্য সচিব নামগুলো লিপিবদ্ধ করে ১৬৯৯ জনের নামের তালিকা সংশ্লিষ্ট দফতরে জমা দেন।

এদিকে ওই তালিকা অনুযায়ী খোঁজ নিয়ে দেখা যায়, ১৪৮৮ নম্বর সিরিয়ালে থাকা আবুল হোসেনের যে ঠিকানা ও ফোন নম্বর দেয়া হয়েছে তা ভুয়া। ওই ফোন নম্বরে ফোন করলে যিনি রিসিভ করেন সেই নারী জানান তার বাড়ি বরিশালে। ১৫০৩ নম্বর সিরিয়ালে সুলতানা আক্তার হোসেন নামে খোর্দ্দ রংপুর ঠিকানায় যে মুঠোফোন নম্বর উল্লেখ আছে সেই নম্বরে যোগোযোগ করা হলে নূর মোহাম্মদ হোসেন নামে এক ব্যক্তি কল রিসিভ করে বলেন, সুলতানা আক্তার হোসেন তার বাড়ির পাশের এক নারী। এ সময় তিনি নিজের নাম তালিকায় অন্তর্ভুক্ত হয়েছে কিনা তা এই প্রতিবেদকের কাছে জানতে চান।

কাউন্সিলর মোক্তার হোসেন বলেন, কমিটির সদস্যরা বিভিন্ন এলাকার দায়িত্ব নিয়ে নামের তালিকা করেছেন। তাদের দেয়া নামের তালিকায় অনিয়ম হয়েছে কিনা তা খতিয়ে দেখা হবে।

শরণখোলা (বাগেরহাট) : তালিকাভুক্ত ব্যক্তিদের নামের পাশে পৃথকভাবে প্রত্যেকের মোবাইল নম্বর উল্লেখ করার কথা থাকলেও কিছু ইউপি সদস্য নিজের ফোন নম্বর লিখে দিয়েছেন। মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে সরকার সুবিধাভোগীদের স্ব স্ব ফোন নম্বরে টাকা দেয়ার ব্যবস্থা করায় তারা এ কৌশলের আশ্রয় নিয়েছেন। বিষয়টি ধরা পরার পর সরকারি কর্মকর্তাদের বাড়ি বাড়ি পাঠিয়ে উপজেলা প্রশাসন তালিকা সংশোধন করেছেন। এদিকে, সংশ্লিষ্ট ইউপি সদস্যদের বিরুদ্ধে কোনো আইনগত ব্যবস্থা এখনও নেয়া হয়নি।

তালিকায় অনিয়মের বিষয়টি ইউএনও ধরে ফেলেন। এ ঘটনা ছাড়াও ওই তালিকায় অপেক্ষাকৃত সচ্ছল ও অন্যান্য সুবিধাভোগী তালিকায় অনেকের নাম থাকায় তিনি সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বাড়ি বাড়ি পাঠিয়ে তালিকা হালনাগাদ করেন। ইউএনও মোস্তফা শাহিন বলেন, এ ঘটনায় অভিযুক্তদের শোকজ করা হচ্ছে।

 

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত