উখিয়ায় দারোগার বিরুদ্ধে নির্যাতনের অভিযোগ

  কক্সবাজার প্রতিনিধি ১৮ মে ২০২০, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

কক্সবাজারের উখিয়া থানার ইনানী পুলিশ ফাঁড়ি ইনচার্জ সিদ্ধার্থ সাহার নির্যাতনে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে এলাকার মানুষ।

স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মী এবং সাধারণ মানুষ এ দারোগার রোষানলে পড়ে প্রতিনিয়ত শারীরিক, মানসিক ও আর্থিক নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন।

গত কয়েক মাসে তার বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, পুলিশ প্রধান, ডিআইজি চট্টগ্রাম রেঞ্জসহ কক্সবাজার পুলিশ সুপার এবং জেলা প্রশাসক বরাবর লিখিত অভিযোগ করেছেন স্থানীয়রা।

উখিয়া থানার ইনানী পুলিশ ফাঁড়ি ইনচার্জ সিদ্ধার্থ সাহার বিরুদ্ধে ইয়াবা ও মানব পাচারে সহযোগিতা, মোটা অঙ্কে ম্যানেজ হয়ে একজনের জমি অন্যজনকে দখল করিয়ে দেয়া, ক্রসফায়ার দেয়ার হুমকি দিয়ে টাকা আদায়, আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের হয়রানি, বিচারপ্রার্থীদের মারধর এবং নারী ও শিশু নির্যাতনের অভিযোগ রয়েছে।

২ মে সিদ্ধার্থ সাহার বিরুদ্ধে সুনির্দিষ্ট ৭টি অভিযোগ নিয়ে উল্লিখিত দফতরে লিখিত অভিযোগ করেছেন উখিয়ার জালিয়াপালং ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক চেয়ারম্যান এসএম ছৈয়দ আলম, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট রুহুল আমিন চৌধুরী রাশেল, উখিয়া উপজেলা কমিউনিটি পুলিশিং ফোরামের সভাপতি নুরুল হুদা, সাধারণ সম্পাদক শহিদুল্লাহ কায়সার, ইউনিয়ন কমিউনিটি পুলিশিং ফোরামের সভাপতি লিয়াকত আলী বাবুলসহ ইউনিয়নের প্রত্যেক ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক ও কমিউনিটি পুলিশিং ফোরামের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদকসহ ভুক্তভোগীরা।

জালিয়াপালং ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট রুহুল আমিন চৌধুরী রাশেল জানান, সিদ্ধার্থ সাহা কেন জানি আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের প্রতিপক্ষ হিসেবে কাজ করছে। যারা (বিএনপি-জামায়াত) সমাজ, রাষ্ট্র ও সরকারের বিরুদ্ধে প্রতিনিয়ত কাজ করে যাচ্ছে তাদের সঙ্গে আঁতাত করে আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের হয়রানি করা খুবই দুঃখজনক।

ইনানী পুলিশ ফাঁড়ির আইসি সিদ্ধার্থ সাহার বিরুদ্ধে অভিযোগের ব্যাপারে জানার জন্য তার মোবাইল ফোনে একাধিকবার ফোন করা হলেও রিসিভ না করায় বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি। পরে তাকে প্রতিবেদকের পরিচয় দিয়ে খুদে বার্তা পাঠানো হলেও ফিরতি কোনো উত্তর আসেনি।

কক্সবাজার জেলা পুলিশের মুখপাত্র অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইকবাল হোসেন যুগান্তরকে বলেন, উখিয়া থানার ইনানী পুলিশ ফাঁড়ির আইসির বিরুদ্ধে আমার কাছে (অতিরিক্ত পুলিশ সুপার) দুটি অভিযোগ তদন্তাধীন রয়েছে। পাশাপাশি অন্যান্য অফিসারের কাছেও থাকতে পারে। করোনার কারণে তদন্ত শেষ করতে পারিনি। তবে দ্রুত তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত