উপনির্বাচন ১৪ জুলাই

নির্বাচনী প্রতিশ্রুতিতে ভাসছে বগুড়া-১

  বগুড়া ব্যুরো ১০ জুলাই ২০২০, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

বগুড়া-১ (সারিয়াকান্দি-সোনাতলা) আসনের উপনির্বাচনের দিনক্ষণ ঘনিয়ে আসায় জমে উঠেছে প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারণা। করোনা বিস্তারের মধ্যে ১৪ জুলাইয়ের এ নির্বাচনে প্রার্থীরা যাচ্ছেন ভোটারদের দ্বারে দ্বারে। দিচ্ছেন নানা প্রতিশ্রুতি। চলছে মন জয়ের নানামুখী চেষ্টা। করোনা ও বন্যার অজুহাতে বিএনপি নির্বাচন থেকে সরে যাওয়ার ঘোষণা দেয়ায় মনে করা হচ্ছিল নির্বাচন শেষ পর্যন্ত প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক হবে না। কিন্তু সময় গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে মনে হচ্ছে লড়াই হবে নৌকার প্রার্থীর সঙ্গে স্বতন্ত্র প্রার্থীর। এলাকায় বসবাস করেন না এমন প্রার্থীদের ‘বসন্তের কোকিল’ আখ্যায়িত করে তাদের বর্জনের চিন্তাভাবনা করছেন ভোটারদের অনেকেই।

প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা হচ্ছেন- প্রয়াত সংসদ সদস্য আবদুল মান্নানের স্ত্রী সাহাদারা মান্নান শিল্পী (নৌকা), বিএনপি প্রার্থী একেএম আহসানুল তৈয়ব জাকির (ধানের শীষ), জাতীয় পার্টির অধ্যক্ষ মোকছেদুল আলম (লাঙ্গল), প্রগতিশীল গণতান্ত্রিক দলের মো. রনি (বাঘ), বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের নজরুল ইসলাম (বটগাছ) ও স্বতন্ত্র ইয়াসির রহমতুল্লাহ ইন্তাজ (ট্রাক)।

বিএনপি উপনির্বাচন বর্জন করায় তুলামূলক বগুড়া-১ আসনে ভোটের আমেজ কমে গেছে। রোদ ও বৃষ্টি উপেক্ষা করে প্রার্থীরা গণসংযোগ, উঠান বৈঠক ও লিফলেট বিতরণ করছেন। মোটরসাইকেল, মাইক্রোবাস নিয়ে এলাকায় শোডাউনও চলছে। আওয়ামী লীগ প্রার্থী তার স্বামীর অসমাপ্ত কাজগুলো সমাপ্ত ও নতুন নতুন কাজ করার ঘোষণা দিয়েছেন। আবার অন্যরা নির্বাচিত হলে দুটি উপজেলায় বাঙালি ও যমুনা নদীর ভাঙনরোধ, বিভিন্ন উন্নয়ন ও মাদক এবং সন্ত্রাসবিরোধী এলাকা উপহার দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন। আওয়ামী লীগ প্রার্থী সাহাদারা মান্নান বলেছেন, আমার স্বামী আবদুল মান্নান পর পর তিনবার এ আসনে সংসদ সদস্য ছিলেন। তিনি কোটি কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ করেছেন। এ আসনের যত উন্নয়ন তার (মান্নান) মাধ্যমেই হয়েছে। তাই তিনি নির্বাচিত হলে মান্নানের অসম্পন্ন কাজগুলো শেষ করবেন। এছাড়া সাধ্যমতো আরও উন্নয়ন কাজ করবেন।

বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের প্রার্থী নজরুল ইসলাম বলেছেন, তিনি নির্বাচিত হলে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা করবেন। গাবতলী থেকে সারিয়াকান্দি ও ধুনট হয়ে যমুনা সেতু পর্যন্ত রেললাইন স্থাপন, বিমানবন্দর চালু, যমুনা ও বাঙালি নদীর তীর সংরক্ষণ ও নদী ভাঙনরোধে স্থায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ, সারিয়াকান্দিতে সার কারখানা, নৌবন্দর স্থাপনসহ নানা উন্নয়ন কাজ বাস্তবায়ন করা হবে।

প্রগতিশীল গণতান্ত্রিক দলের প্রার্থী মো. রনি বলেছেন, তিনি নির্বাচিত হলে সোনাতলা ও সারিয়াকান্দিকে সন্ত্রাস, মাদক ও দুর্নীতিমুক্ত করবেন। নদী ভাঙনরোধে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন। জনগণের নাগরিক অধিকারগুলো যথাযথভাবে পূরণ করার চেষ্টা করবেন। সব ধরনের প্রতিষ্ঠানের ভৌত অবকাঠামোর উন্নয়নসহ প্রয়োজনীয় সব উন্নয়ন কাজ করবেন।

জাতীয় পার্টির প্রার্থী অধ্যক্ষ মোকছেদুল আলম বলেছেন, নির্বাচিত হলে যোগাযোগ ও শিক্ষা খাতকে গুরুত্ব দেবেন। নদী ভাঙনরোধে স্থায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ, চরাঞ্চলে ঘরে ঘরে সৌর বিদ্যুতের আলো পৌঁছে দেয়া, মৌলিক অধিকার নিশ্চিত করা, অন্যায়ের বিপক্ষে রুখে দাঁড়ানো, এলাকাকে মাদক ও সন্ত্রাসমুক্ত করা ছাড়াও ঘুষ এবং দুর্নীতির মূলোৎপাটনের প্রতিশ্রুতি দেন। স্বতন্ত্র প্রার্থী ইয়াসির রহমতুল্লাহ ইন্তাজ বলেন, নির্বাচিত হলে রাক্ষুসী যমুনা ও বাঙালি নদীর ভাঙন থেকে সোনাতলা-সারিয়াকান্দিবাসীকে রক্ষায় বলিষ্ঠ ভূমিকা রাখবেন। তিনি বলেছেন, প্রকল্পের বরাদ্দ ও ব্যয়ের হিসাব জনসম্মুখে তুলে ধরা ও বেকার যুবকদের কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি করবেন।

তবে ভোটাররা বলছেন, তারা উন্নয়নের সঙ্গে আছেন এবং থাকবেন। সাবেক এমপি আবদুল মান্নান এলাকার উন্নয়নে ব্যাপক কাজ করেছেন। সাহাদারা মান্নান সোনাতলার মেয়ে ও সারিয়াকান্দির পুত্রবধূ। তাই তারা কোনো বসন্তের কোকিলকে নয়, যে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে পারবে তাকে ভোট দেবেন। এদিকে বিএনপি সমর্থিত ভোটারদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, তারা ভোটদানে বিরত থাকবেন। আর কেন্দ্রে গেলেও স্বতন্ত্র প্রার্থীকে ভোট দেবেন।

জেলা সিনিয়র নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং অফিসার মাহবুব আলম শাহ্ জানান, নির্বাচন গ্রহণের প্রস্তুতি চলছে। ১২৪টি কেন্দ্রে ভোটার সংখ্যা তিন লাখ ৩০ হাজার ৮৯২ জন। ১৮ জানুয়ারি সংসদ সদস্য আবদুল মান্নানের মৃত্যুতে আসনটি শূন্য হয়। ২৯ মার্চ উপনির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হলেও করোনা প্রাদুর্ভাবের কারণে নির্বাচন স্থগিত করা হয়েছিল।

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত