ওয়ারী লকডাউন

ভেতরে মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি

  যুগান্তর রিপোর্ট ১২ জুলাই ২০২০, ০০:০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ওয়ারী লকডাউনের অষ্টম দিনে লোকজনের বাইরে যাওয়ার প্রবণতা কিছুটা কমেছে। তবে ভেতরে স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না অনেকেই। শনিবার ওয়ারীর নূর মসজিদ মোড়ে বিনামূল্যে সবজি বিক্রি করা হয়। সেই বিনামূল্যের সবজি নিতে গিয়ে হুড়োহুড়ি করতে দেখা গেছে মানুষকে। স্বাস্থ্যবিধি না মেনে কার আগে কে নেবেন এমন প্রতিযোগিতায় নামেন এলাকাবাসী। সামাজিক দূরত্ব না মানার পাশাপাশি ব্যক্তিগত সুরক্ষাও ছিল না অনেকের।

জানা গেছে, লকডাউনে থাকা এলাকাটির বাসিন্দাদের ভোগান্তি কমাতেই বিনামূল্যে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের ব্যবস্থা করা হয়েছে। কিন্তু পণ্য নিতে এসে যেন ঝুঁকিতে পড়তে না হয় সে আহ্বান জানিয়েছেন অনেকেই। ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের ৪১ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর সারওয়ার হাসান আলো যুগান্তরকে বলেন, পরবর্তীকালে সীমানা এঁকে দূরত্ব নিশ্চিত করা হবে।

এদিকে স্থানীয় এক ব্যক্তি নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানিয়েছে, লকডাউন এলাকায় স্বাস্থ্যবিধি না মেনেই অনেককে ঘোরাফেরা করতে দেখা যায়। বিভিন্ন মোড়ে দু-তিনজন মিলে আড্ডাও দিচ্ছেন।

এদিকে শনিবার এলাকা থেকে লোকজনের বের হওয়ার প্রবণতা অন্যদিনের তুলনায় কম ছিল। এদিন হুটহাট করে কাউকে গেটে ভিড় করতে দেখা যায়নি। রোগী ও একান্তই যাদের জরুরি প্রয়োজন তারাই শুধু বের হচ্ছেন। স্বেচ্ছাসেবক ও পুলিশের সঙ্গে কথা বলে এমনটাই জানা গেছে। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া কেউ বাইরে বের হচ্ছেন না। এলাকায় প্রবেশের ১৭টি গেটের মধ্যে ১৫টি গেট বন্ধ রয়েছে। কোনো গেট টপকে কাউকে বাইরে বের হতে বা প্রবেশ করতে দেখা যায়নি। টিপু সুলতান রোডের গেট দিয়ে প্রবেশ ও হট কেক গলি দিয়ে বের হওয়া যাচ্ছে জরুরি প্রয়োজনে। স্বেচ্ছাসেবক ও পুলিশ রয়েছে কঠোর অবস্থানে। আছে সেনাবাহিনীর টহল। এদিকে এলাকাজুড়ে নিয়মিত ব্লিচিং পাউডার মিশ্রিত পানি ছিটিয়েছে সিটি কর্পোরেশনের দুটি ওয়াটার ট্যাংক।

স্বেচ্ছাসেবক দলের প্রধান মফিজুল ইসলাম পাভেল যুগান্তরকে বলেন, শনিবার সকাল ১১টা পর্যন্ত ৭০ জন লোক বাইরে গেছেন। অন্যদিন এ সময়ে বের হতেন আড়াইশ’ থেকে তিনশ’ মানুষ। তিন-চার দিন ধরে আস্তে আস্তে কমছে মানুষের সংখ্যা। এখন রোগী এবং জরুরি সেবাকর্মী ছাড়া তেমন কেউ বের হচ্ছেন না। অপ্রয়োজনে কেউ বের হতে চাইলে আমাদের স্বেচ্ছাসেবকরা তাকে বুঝিয়ে বাসায় পাঠাচ্ছেন।

হট কেক গলিতে কর্তব্যরত ওয়ারী থানার এসআই হারুনুর রশিদ বলেন, আগে থেকে বের হওয়ার সংখ্যা অনেক কমেছে। খুব জরুরি প্রয়োজন ছাড়া কাউকে বের হতে দেখছি না।

করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় স্বাস্থ্য অধিদফতর ঘোষিত রেড জোন এলাকায় ওয়ারীর তিনটি সড়ক ও পাঁচটি গলি ৪ জুলাই থেকে লকডাউন করা হয়েছে। বাসিন্দাদের বিনা প্রয়োজনে বাইরে যেতে না যাওয়াসহ অন্যান্য পরিস্থিতি সামলাতে কঠোর অবস্থানে রয়েছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের সংশ্লিষ্টরা ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত