স্টামফোর্ড শিক্ষার্থী সিফাত-শিপ্রার মুক্তি দাবি
jugantor
শাহবাগে সহপাঠীদের মানববন্ধন
স্টামফোর্ড শিক্ষার্থী সিফাত-শিপ্রার মুক্তি দাবি

  যুগান্তর রিপোর্ট  

০৮ আগস্ট ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

স্টামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই শিক্ষার্থী সাহেদুল ইসলাম সিফাত ও শিপ্রা রানী দেবনাথের মুক্তি এবং নিরাপত্তার দাবিতে মানববন্ধন করেছেন তাদের সহপাঠীরা। শুক্রবার বিকেলে রাজধানীর জাতীয় জাদুঘরের সামনে এ মানববন্ধন করেন তারা। বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিল্ম অ্যান্ড মিডিয়া বিভাগের শিক্ষার্থীরা কর্মসূচির আয়োজন করেন। এতে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ সংহতি প্রকাশ করেন।

কক্সবাজারের টেকনাফে পুলিশের গুলিতে নিহত সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মো. রাশেদ খানের তথ্যচিত্র নির্মাণ সহযোগী ছিলেন সিফাত ও শিপ্রা। ঘটনাস্থল থেকে তাদের গ্রেফতার করে বর্তমানে কারাগারে রাখা হয়েছে। গ্রেফতারের পর থেকেই তাদের মুক্তির দাবিতে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করে আসছেন সহপাঠীরা। দাবি আদায়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকেও চলছে প্রচারণা।

মানববন্ধনে শিক্ষার্থীরা চারটি দাবি তুলে ধরেন। এগুলো হচ্ছে, শিপ্রা ও সিফাতের সার্বিক নিরাপত্তা এবং নিঃশর্ত মুক্তি দিতে হবে; মেজর (অব.) সিনহা হত্যার সুষ্ঠু তদন্ত ও শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করতে হবে; সামাজিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে; মানসিক প্রহসন থেকে মুক্তি দিতে হবে। পাশাপাশি মেজর সিনহা হত্যাকাণ্ডের সুষ্ঠু বিচারও দাবি করেন তারা। স্ট্যামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে মানববন্ধনে সংহতি প্রকাশ করে ছাত্র ইউনিয়ন, ছাত্র ফেডারেশন, স্বতন্ত্র জোট, থিয়েটার ৫২, ফ্রাইডে থিয়েটার, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়, বিভিন্ন চলচ্চিত্র সংগঠন ও চলচ্চিত্র নির্মাতারা এবং কয়েকটি ব্যান্ড দল। আরও সংহতি প্রকাশ করেন স্ট্যামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের প্রতিনিধিরা। কর্মসূচিকালে সিফাত ও শিপ্রার সহপাঠী সানাউল কবির সিদ্দিক বলেন, সিফাত-শিপ্রার বিরুদ্ধে পুলিশ যেসব অভিযোগ তুলেছে তা মিথ্যা ও সাজানো গল্প। তাদের ফাঁসানো হয়েছে। তারা সেখানে একটা তথ্যচিত্র বানানোর জন্য গিয়েছিল। এ প্রজেক্টে শিপ্রা পরিচালক ও সিফাত সিনেমাটোগ্রাফার হিসেবে ছিল।

শাহবাগে সহপাঠীদের মানববন্ধন

স্টামফোর্ড শিক্ষার্থী সিফাত-শিপ্রার মুক্তি দাবি

 যুগান্তর রিপোর্ট 
০৮ আগস্ট ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

স্টামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই শিক্ষার্থী সাহেদুল ইসলাম সিফাত ও শিপ্রা রানী দেবনাথের মুক্তি এবং নিরাপত্তার দাবিতে মানববন্ধন করেছেন তাদের সহপাঠীরা। শুক্রবার বিকেলে রাজধানীর জাতীয় জাদুঘরের সামনে এ মানববন্ধন করেন তারা। বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিল্ম অ্যান্ড মিডিয়া বিভাগের শিক্ষার্থীরা কর্মসূচির আয়োজন করেন। এতে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ সংহতি প্রকাশ করেন।

কক্সবাজারের টেকনাফে পুলিশের গুলিতে নিহত সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মো. রাশেদ খানের তথ্যচিত্র নির্মাণ সহযোগী ছিলেন সিফাত ও শিপ্রা। ঘটনাস্থল থেকে তাদের গ্রেফতার করে বর্তমানে কারাগারে রাখা হয়েছে। গ্রেফতারের পর থেকেই তাদের মুক্তির দাবিতে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করে আসছেন সহপাঠীরা। দাবি আদায়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকেও চলছে প্রচারণা।

মানববন্ধনে শিক্ষার্থীরা চারটি দাবি তুলে ধরেন। এগুলো হচ্ছে, শিপ্রা ও সিফাতের সার্বিক নিরাপত্তা এবং নিঃশর্ত মুক্তি দিতে হবে; মেজর (অব.) সিনহা হত্যার সুষ্ঠু তদন্ত ও শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করতে হবে; সামাজিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে; মানসিক প্রহসন থেকে মুক্তি দিতে হবে। পাশাপাশি মেজর সিনহা হত্যাকাণ্ডের সুষ্ঠু বিচারও দাবি করেন তারা। স্ট্যামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে মানববন্ধনে সংহতি প্রকাশ করে ছাত্র ইউনিয়ন, ছাত্র ফেডারেশন, স্বতন্ত্র জোট, থিয়েটার ৫২, ফ্রাইডে থিয়েটার, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়, বিভিন্ন চলচ্চিত্র সংগঠন ও চলচ্চিত্র নির্মাতারা এবং কয়েকটি ব্যান্ড দল। আরও সংহতি প্রকাশ করেন স্ট্যামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের প্রতিনিধিরা। কর্মসূচিকালে সিফাত ও শিপ্রার সহপাঠী সানাউল কবির সিদ্দিক বলেন, সিফাত-শিপ্রার বিরুদ্ধে পুলিশ যেসব অভিযোগ তুলেছে তা মিথ্যা ও সাজানো গল্প। তাদের ফাঁসানো হয়েছে। তারা সেখানে একটা তথ্যচিত্র বানানোর জন্য গিয়েছিল। এ প্রজেক্টে শিপ্রা পরিচালক ও সিফাত সিনেমাটোগ্রাফার হিসেবে ছিল।