বরিশালে ১৯ রুটে আড়াই ঘণ্টা বাস চলাচল বন্ধ
jugantor
বরিশালে ১৯ রুটে আড়াই ঘণ্টা বাস চলাচল বন্ধ

  বরিশাল ব্যুরো  

০৮ আগস্ট ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

রূপাতলী বাস মালিক সমিতির নেতৃত্বে চেকপোস্ট বসিয়ে থ্রি-হুইলার থেকে যাত্রী নামিয়ে বাসে তুলে নিচ্ছিল দীর্ঘদিন। আবার বাস মালিক সমিতির কথামতো রুটে না চললে থ্রি-হুইলার চালকদের মারধর করারও অভিযোগ পুরোনো। সেই ঘটনার প্রতিবাদ করায় হঠাৎ বাস চলাচল বন্ধ করে দেয় বরিশাল রূপাতলী বাস মালিক সমিতি। তাদের অভিযোগ, বাস শ্রমিকদের ওপর হামলা চালানো হয়েছে। এভাবে আড়াই ঘণ্টা দক্ষিণাঞ্চলের ১৯ রুটে বাস চলাচল বন্ধ রাখার পর আবার চালাতে শুরু করে বাস মালিক সমিতি। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে টেম্পো শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক পরিমলচন্দ্র দাস এবং টেম্পো মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আহমেদ শাহরিয়ার বাবু বলেন, তারা কিছুই জানেন না। পরিমলচন্দ্র বলেন, যারা সংঘর্ষে জড়িয়েছে তারা টেম্পো শ্রমিক ইউনিয়নের সদস্য নন।

জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরে বরিশাল-পটুয়াখালী আঞ্চলিক মহাসড়কের বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়সংলগ্ন কর্নকাঠি ভোলার রাস্তার মোড়ে রূপাতলী বাস মালিক সমিতির নেতৃত্বে চেকপোস্ট বসানো হয়। চেকপোস্টে বাস মালিক, শ্রমিক নেতারা ও এলাকার মাস্তানদের রাখা হতো বলে অভিযোগ করেন থ্রি-হুইলার চালকরা। চেকপোস্টে আলফা-মাহিন্দ্রা, হলুদ অটো, সিএনজি এবং রিকশা থেকে যাত্রী নামিয়ে রূপাতলী বাস মালিক সমিতির আওতায় চলাচল করা বাসে তুলে দিত। লকডাউন শিথিল করার পর থেকে সেই চেকপোস্ট নির্ধারিত নিয়মেই বসছিল। সদ্য সম্পন্ন ঈদুল আজহায় বাস মালিক সমিতির চেকপোস্ট আরও জোরালো করা হয়।

জানা গেছে, শুক্রবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে মাহিন্দ্রা থেকে যাত্রী নামিয়ে রাখার চেষ্টা করলে চেকপোস্টের বাস শ্রমিক নেতাদের সঙ্গে বাদানুবাদ হয়। একপর্যায়ে মাহিন্দ্রা শ্রমিকরা চেকপোস্টের চেয়ার ভাংচুর করে বলে দাবি করেছে বাস মালিক সমিতি। রূপাতলী বাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক কাওছার হোসেন শিপনের দাবি, মহাসড়কে অবৈধভাবে থ্রি-হুইলার চলাচল করে আসছে। বাস-মালিক শ্রমিকদের একটি প্রতিনিধি দল সেই থ্রি-হুইলার বন্ধের চেষ্টা করে আসছে। এ সময় মাহেন্দ্র শ্রমিকরা বাস মালিক-শ্রমিক প্রতিনিধিদের ওপর হামলা চালায়। খবর পেয়ে মালিক-শ্রমিকরা তাৎক্ষণিক বাস চলাচল বন্ধ করে দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে হামলাকারীদের বিচারের আশ্বাস দেয়ায় সকাল ১০টার দিকে আবার ওইসব রুটে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়। মেট্রোপলিটন পুলিশের ট্রাফিক বিভাগের সহকারী কমিশনার মাসুদ রানা জানিয়েছেন, অভিযোগের বিষয়ে খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তদন্তে যারা দোষী হবেন তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বরিশালে ১৯ রুটে আড়াই ঘণ্টা বাস চলাচল বন্ধ

 বরিশাল ব্যুরো 
০৮ আগস্ট ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

রূপাতলী বাস মালিক সমিতির নেতৃত্বে চেকপোস্ট বসিয়ে থ্রি-হুইলার থেকে যাত্রী নামিয়ে বাসে তুলে নিচ্ছিল দীর্ঘদিন। আবার বাস মালিক সমিতির কথামতো রুটে না চললে থ্রি-হুইলার চালকদের মারধর করারও অভিযোগ পুরোনো। সেই ঘটনার প্রতিবাদ করায় হঠাৎ বাস চলাচল বন্ধ করে দেয় বরিশাল রূপাতলী বাস মালিক সমিতি। তাদের অভিযোগ, বাস শ্রমিকদের ওপর হামলা চালানো হয়েছে। এভাবে আড়াই ঘণ্টা দক্ষিণাঞ্চলের ১৯ রুটে বাস চলাচল বন্ধ রাখার পর আবার চালাতে শুরু করে বাস মালিক সমিতি। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে টেম্পো শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক পরিমলচন্দ্র দাস এবং টেম্পো মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আহমেদ শাহরিয়ার বাবু বলেন, তারা কিছুই জানেন না। পরিমলচন্দ্র বলেন, যারা সংঘর্ষে জড়িয়েছে তারা টেম্পো শ্রমিক ইউনিয়নের সদস্য নন।

জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরে বরিশাল-পটুয়াখালী আঞ্চলিক মহাসড়কের বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়সংলগ্ন কর্নকাঠি ভোলার রাস্তার মোড়ে রূপাতলী বাস মালিক সমিতির নেতৃত্বে চেকপোস্ট বসানো হয়। চেকপোস্টে বাস মালিক, শ্রমিক নেতারা ও এলাকার মাস্তানদের রাখা হতো বলে অভিযোগ করেন থ্রি-হুইলার চালকরা। চেকপোস্টে আলফা-মাহিন্দ্রা, হলুদ অটো, সিএনজি এবং রিকশা থেকে যাত্রী নামিয়ে রূপাতলী বাস মালিক সমিতির আওতায় চলাচল করা বাসে তুলে দিত। লকডাউন শিথিল করার পর থেকে সেই চেকপোস্ট নির্ধারিত নিয়মেই বসছিল। সদ্য সম্পন্ন ঈদুল আজহায় বাস মালিক সমিতির চেকপোস্ট আরও জোরালো করা হয়।

জানা গেছে, শুক্রবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে মাহিন্দ্রা থেকে যাত্রী নামিয়ে রাখার চেষ্টা করলে চেকপোস্টের বাস শ্রমিক নেতাদের সঙ্গে বাদানুবাদ হয়। একপর্যায়ে মাহিন্দ্রা শ্রমিকরা চেকপোস্টের চেয়ার ভাংচুর করে বলে দাবি করেছে বাস মালিক সমিতি। রূপাতলী বাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক কাওছার হোসেন শিপনের দাবি, মহাসড়কে অবৈধভাবে থ্রি-হুইলার চলাচল করে আসছে। বাস-মালিক শ্রমিকদের একটি প্রতিনিধি দল সেই থ্রি-হুইলার বন্ধের চেষ্টা করে আসছে। এ সময় মাহেন্দ্র শ্রমিকরা বাস মালিক-শ্রমিক প্রতিনিধিদের ওপর হামলা চালায়। খবর পেয়ে মালিক-শ্রমিকরা তাৎক্ষণিক বাস চলাচল বন্ধ করে দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে হামলাকারীদের বিচারের আশ্বাস দেয়ায় সকাল ১০টার দিকে আবার ওইসব রুটে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়। মেট্রোপলিটন পুলিশের ট্রাফিক বিভাগের সহকারী কমিশনার মাসুদ রানা জানিয়েছেন, অভিযোগের বিষয়ে খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তদন্তে যারা দোষী হবেন তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।