চার লক্ষাধিক টাকার গাছ ৭৮ হাজারে বিক্রি
jugantor
রংপুর মেডিকেল কলেজ
চার লক্ষাধিক টাকার গাছ ৭৮ হাজারে বিক্রি

  রংপুর ব্যুরো  

২১ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

রংপুর মেডিকেল কলেজ ক্যাম্পাসে উন্নয়ন প্রকল্পের কাজের নামে প্রায় চার লক্ষাধিক টাকার গাছ ৭৮ হাজার টাকায় বিক্রি করেছে কলেজ কর্তৃপক্ষ। এ ঘটনার তথ্য সংগ্রহ করতে গেলে গাছ নিলামের মাধ্যমে যে ব্যক্তি কেটে নিয়ে যাচ্ছিলেন তার সশস্ত্র বাহিনী যুগান্তর ব্যুারো প্রধানকে অপহরণের চেষ্টা চালায়। পরে খবর পেয়ে পুলিশ ও সাংবাদিকরা তাকে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে নিয়ে আসেন। এ ঘটনায় তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন রংপুরের সাংবাদিক সংগঠনের নেতারা।

সূত্র জানায়, নিলামে ওই গাছ ক্রয় করেন কলেজের চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারীর এক ছেলে, যিনি স্থানীয় স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতা বলে নিজেকে পরিচয় দিয়ে থাকেন। দু’দিন ধরে ওই গাছগুলো কেটে নিয়ে যাচ্ছিলেন নিলামে গাছ ক্রয়কারী ব্যক্তির লোকজন। যুগান্তর রংপুর ব্যুরো প্রধান মাহবুব রহমান রোববার দুপুরে ওই তথ্য সংগ্রহ ও ছবি তুলতে যান কলেজ ক্যাম্পাসে। এরপর তিনি কলেজ অধ্যক্ষ অধ্যাপক একেএম নুরুন্নবী লাইজুর কাছে এ সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহ করেন।

অধ্যক্ষের কক্ষ থেকে বের হলে অফিসের করিডোড়ে অপেক্ষমাণ এক দল সশস্ত্র সন্ত্রাসী তাকে সেখান থেকে অপহরণ করে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এ সময় তিনি অধ্যক্ষের কক্ষে গিয়ে আশ্রয় নেন। পরে তিনি এসএমএস পাঠিয়ে রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনারের কাছে সাহায্য প্রার্থনা করেন এবং সাংবাদিকদের বিষয়টি জানান। পরে পুলিশ ও সাংবাদিকরা গিয়ে সেখান থেকে তাকে উদ্ধার করে আনেন। এ ঘটনায় কোতোয়ালি থানায় একটি অভিযোগ করা হয়েছে। কলেজ অধ্যক্ষ স্বীকার করেন যে, সরকারি বিধি অনুযায়ী জীবন্ত গাছগুলো কেটে ফেলার জন্য নিলাম করা হয়নি। পূর্বের নিলাম প্রক্রিয়া অনুসরণ করা হয়েছে। কবে নিলাম করা হল, কারা অংশ গ্রহণ করেছেন- এসব বিষয়ে কলেজ অধ্যক্ষ তৎক্ষণিক কিছু জানাতে পারেননি।

বন বিভাগের সদর রেঞ্জ কর্মকর্তা মোশাররফ হোসেন জানান, গাছগুলোর মূল্য নির্ধারণের জন্য কলেজ কর্তৃপক্ষ তাদের পত্র দিয়েছিল ৫ আগস্ট। পরে মূল্য নির্ধারণ করে কলেজ কর্তৃপক্ষকে ২৭ আগস্ট অবিহিত করে পত্র দেয়া হয়। কিন্তু গাছ কাটার বিষয়ে তারা কোনো কিছুই জানাননি। ওই কর্মকর্তা জানান, সেখানে ১১ প্রজাতির ২৬টি গাছ আছে।

রংপুর মেডিকেল কলেজ

চার লক্ষাধিক টাকার গাছ ৭৮ হাজারে বিক্রি

 রংপুর ব্যুরো 
২১ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

রংপুর মেডিকেল কলেজ ক্যাম্পাসে উন্নয়ন প্রকল্পের কাজের নামে প্রায় চার লক্ষাধিক টাকার গাছ ৭৮ হাজার টাকায় বিক্রি করেছে কলেজ কর্তৃপক্ষ। এ ঘটনার তথ্য সংগ্রহ করতে গেলে গাছ নিলামের মাধ্যমে যে ব্যক্তি কেটে নিয়ে যাচ্ছিলেন তার সশস্ত্র বাহিনী যুগান্তর ব্যুারো প্রধানকে অপহরণের চেষ্টা চালায়। পরে খবর পেয়ে পুলিশ ও সাংবাদিকরা তাকে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে নিয়ে আসেন। এ ঘটনায় তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন রংপুরের সাংবাদিক সংগঠনের নেতারা।

সূত্র জানায়, নিলামে ওই গাছ ক্রয় করেন কলেজের চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারীর এক ছেলে, যিনি স্থানীয় স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতা বলে নিজেকে পরিচয় দিয়ে থাকেন। দু’দিন ধরে ওই গাছগুলো কেটে নিয়ে যাচ্ছিলেন নিলামে গাছ ক্রয়কারী ব্যক্তির লোকজন। যুগান্তর রংপুর ব্যুরো প্রধান মাহবুব রহমান রোববার দুপুরে ওই তথ্য সংগ্রহ ও ছবি তুলতে যান কলেজ ক্যাম্পাসে। এরপর তিনি কলেজ অধ্যক্ষ অধ্যাপক একেএম নুরুন্নবী লাইজুর কাছে এ সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহ করেন।

অধ্যক্ষের কক্ষ থেকে বের হলে অফিসের করিডোড়ে অপেক্ষমাণ এক দল সশস্ত্র সন্ত্রাসী তাকে সেখান থেকে অপহরণ করে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এ সময় তিনি অধ্যক্ষের কক্ষে গিয়ে আশ্রয় নেন। পরে তিনি এসএমএস পাঠিয়ে রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনারের কাছে সাহায্য প্রার্থনা করেন এবং সাংবাদিকদের বিষয়টি জানান। পরে পুলিশ ও সাংবাদিকরা গিয়ে সেখান থেকে তাকে উদ্ধার করে আনেন। এ ঘটনায় কোতোয়ালি থানায় একটি অভিযোগ করা হয়েছে। কলেজ অধ্যক্ষ স্বীকার করেন যে, সরকারি বিধি অনুযায়ী জীবন্ত গাছগুলো কেটে ফেলার জন্য নিলাম করা হয়নি। পূর্বের নিলাম প্রক্রিয়া অনুসরণ করা হয়েছে। কবে নিলাম করা হল, কারা অংশ গ্রহণ করেছেন- এসব বিষয়ে কলেজ অধ্যক্ষ তৎক্ষণিক কিছু জানাতে পারেননি।

বন বিভাগের সদর রেঞ্জ কর্মকর্তা মোশাররফ হোসেন জানান, গাছগুলোর মূল্য নির্ধারণের জন্য কলেজ কর্তৃপক্ষ তাদের পত্র দিয়েছিল ৫ আগস্ট। পরে মূল্য নির্ধারণ করে কলেজ কর্তৃপক্ষকে ২৭ আগস্ট অবিহিত করে পত্র দেয়া হয়। কিন্তু গাছ কাটার বিষয়ে তারা কোনো কিছুই জানাননি। ওই কর্মকর্তা জানান, সেখানে ১১ প্রজাতির ২৬টি গাছ আছে।