সাহারার আসনে হাবিব নাসিমের আসনে তানভীর
jugantor
আ’লীগের মনোনয়ন
সাহারার আসনে হাবিব নাসিমের আসনে তানভীর

  যুগান্তর রিপোর্ট  

০১ অক্টোবর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুনের মৃত্যুতে শূন্য হওয়া ঢাকা-১৮ আসনে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন দলটির নেতা মোহাম্মদ হাবিব হাসান। আর সাবেক মন্ত্রী ও দলের আরেক প্রেসিডিয়াম সদস্য মোহাম্মদ নাসিমের মৃত্যুতে শূন্য হওয়া আসনের উপনির্বাচনে চূড়ান্ত মনোনয়ন পেয়েছেন তার ছেলে তানভীর শাকিল জয়।

বুধবার সকালে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের তার সরকারি বাসভবনে ব্রিফিংকালে প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করেন। এ সময় তিনি ঘোষিত প্রার্থীদের বিজয়ী করতে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহ্বান জানান। দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশে ওবায়দুল কাদের বলেন, ঘোষিত প্রার্থীদের বিজয়ী করতে সব ভেদাভেদ ভুলে মনোনয়ন বোর্ডের সিদ্ধান্ত মেনে সবাই ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করবেন। হাবিব হাসান ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। তৃণমূলের এই নেতা এর আগে দীর্ঘদিন বৃহত্তর উত্তরা থানা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এবং সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছেন।

মনোনয়ন পাওয়ার পর প্রতিক্রিয়ায় তিনি যুগান্তরকে বলেন, আল্লাহর কাছে শুকরিয়া আদায় করছি এবং আমাদের প্রিয় নেত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি। ঢাকা-১৮ আসনের মানুষের সংকট ও সম্ভাবনা চিহ্নিত করে নিরন্তর কাজ করতে চাই।

জাতীয় চার নেতার অন্যতম শহীদ ক্যাপ্টেন এম মনসুর আলীর নাতি এবং মোহাম্মদ নাসিমপুত্র তানভীর শাকিল জয়। তিনি আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সহসভাপতি ছিলেন। জয় এর আগেও ২০০৮ সালে এই আসন থেকে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পেয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন। প্রতিক্রিয়ায় তানভীর শাকিল জয় বলেন, নেত্রী যে বিশ্বাসে আমাকে মনোনয়ন দিয়েছেন তার মর্যাদা রাখার চেষ্টা করব। এ সময় তিনি বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বাস্তবায়নে কাজ করে যাওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

নির্বাচন কমিশন ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী আগামী ১২ নভেম্বর এ দু’টি আসনের উপনির্বাচনের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার শেষ সময় ১৩ অক্টোবর, যাচাই-বাছাই ১৫ অক্টোবর, প্রার্থিতা প্রত্যাহার ২২ অক্টোবর। দু’টি আসনের উপনির্বাচন ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) অনুষ্ঠিত হবে। ১৩ জুন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য এবং সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মাদ নাসিমের মৃত্যুর মধ্য দিয়ে সিরাজগঞ্জ-১ আসনটি শূন্য হয়। ৯ জুলাই আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুনের মৃত্যুর মধ্য দিয়ে ঢাকা-১৮ আসনটি শূন্য হয়।

আ’লীগের মনোনয়ন

সাহারার আসনে হাবিব নাসিমের আসনে তানভীর

 যুগান্তর রিপোর্ট 
০১ অক্টোবর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুনের মৃত্যুতে শূন্য হওয়া ঢাকা-১৮ আসনে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পেয়েছেন দলটির নেতা মোহাম্মদ হাবিব হাসান। আর সাবেক মন্ত্রী ও দলের আরেক প্রেসিডিয়াম সদস্য মোহাম্মদ নাসিমের মৃত্যুতে শূন্য হওয়া আসনের উপনির্বাচনে চূড়ান্ত মনোনয়ন পেয়েছেন তার ছেলে তানভীর শাকিল জয়।

বুধবার সকালে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের তার সরকারি বাসভবনে ব্রিফিংকালে প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করেন। এ সময় তিনি ঘোষিত প্রার্থীদের বিজয়ী করতে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার আহ্বান জানান। দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশে ওবায়দুল কাদের বলেন, ঘোষিত প্রার্থীদের বিজয়ী করতে সব ভেদাভেদ ভুলে মনোনয়ন বোর্ডের সিদ্ধান্ত মেনে সবাই ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করবেন। হাবিব হাসান ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। তৃণমূলের এই নেতা এর আগে দীর্ঘদিন বৃহত্তর উত্তরা থানা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এবং সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছেন।

মনোনয়ন পাওয়ার পর প্রতিক্রিয়ায় তিনি যুগান্তরকে বলেন, আল্লাহর কাছে শুকরিয়া আদায় করছি এবং আমাদের প্রিয় নেত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি। ঢাকা-১৮ আসনের মানুষের সংকট ও সম্ভাবনা চিহ্নিত করে নিরন্তর কাজ করতে চাই।

জাতীয় চার নেতার অন্যতম শহীদ ক্যাপ্টেন এম মনসুর আলীর নাতি এবং মোহাম্মদ নাসিমপুত্র তানভীর শাকিল জয়। তিনি আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সহসভাপতি ছিলেন। জয় এর আগেও ২০০৮ সালে এই আসন থেকে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন পেয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন। প্রতিক্রিয়ায় তানভীর শাকিল জয় বলেন, নেত্রী যে বিশ্বাসে আমাকে মনোনয়ন দিয়েছেন তার মর্যাদা রাখার চেষ্টা করব। এ সময় তিনি বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বাস্তবায়নে কাজ করে যাওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

নির্বাচন কমিশন ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী আগামী ১২ নভেম্বর এ দু’টি আসনের উপনির্বাচনের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার শেষ সময় ১৩ অক্টোবর, যাচাই-বাছাই ১৫ অক্টোবর, প্রার্থিতা প্রত্যাহার ২২ অক্টোবর। দু’টি আসনের উপনির্বাচন ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) অনুষ্ঠিত হবে। ১৩ জুন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য এবং সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মাদ নাসিমের মৃত্যুর মধ্য দিয়ে সিরাজগঞ্জ-১ আসনটি শূন্য হয়। ৯ জুলাই আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুনের মৃত্যুর মধ্য দিয়ে ঢাকা-১৮ আসনটি শূন্য হয়।