মাদক ব্যবসায় রাজি না হওয়ায় সিলেটে কিশোরকে হত্যা
jugantor
মাদক ব্যবসায় রাজি না হওয়ায় সিলেটে কিশোরকে হত্যা

  সিলেট ব্যুরো  

২৯ অক্টোবর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

মাদক ব্যবসায় রাজি না হওয়ায় সিলেটে এক কিশোরকে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। তার নাম জহিরুল ইসলাম। বাবার নাম নজরুল মিয়া। পেশায় রং মিস্ত্রি। বাড়ি সুনামগঞ্জ জেলার শাল্লা থানার সিরাই গ্রামে। সে পরিবার নিয়ে কদমতলী জেসমিন ভিলায় ভাড়া থাকত। সোমবার সন্ধ্যায় দক্ষিণ সুরমার জৈনপুর এলাকায় তার ওপর হামলা হয়। বুধবার সিলেট ওসমানী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়।

পারিবারিক সূত্র জানায়, কয়েক দিন আগে জৈনপুর হাওরের বাড়ি এলাকার মাদক ব্যবসায়ী ফখরুল জহিরুল ইসলামকে মাদক ব্যবসার প্রস্তাব দেয়। জহিরুল রাজি হয়নি। সে এই ঘটনা তার বাবা-মা ও এক বন্ধুকে জানায়। এতে ফখরুল ক্ষিপ্ত হয়। সোমবার সন্ধ্যায় জহিরুলকে শিববাড়ী এলাকায় পেয়ে ধরে নিয়ে যায় মাদক ব্যবসায়ী ফখরুল, জায়েদ, উজ্জল, মাসুক ও সাঙ্গপাঙ্গরা। তারা জহিরুলকে জৈনপুর হাওরবাড়ী এলাকার নির্জন স্থানে নিয়ে ইট, পাথর দিয়ে শরীরের বিভিন্ন স্থানে ও মাথায় আঘাত করে রেললাইনে ফেলে যায়। টহল পুলিশ জহিরকে উদ্ধার করে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়।

মোগলাবাজার থানার পরিদর্শক তদন্ত মো. ফরিদ উদ্দিন খান বলেন, লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। সুরতহাল করা হয়েছে। জিডি করে তদন্ত চলছে।

মাদক ব্যবসায় রাজি না হওয়ায় সিলেটে কিশোরকে হত্যা

 সিলেট ব্যুরো 
২৯ অক্টোবর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

মাদক ব্যবসায় রাজি না হওয়ায় সিলেটে এক কিশোরকে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। তার নাম জহিরুল ইসলাম। বাবার নাম নজরুল মিয়া। পেশায় রং মিস্ত্রি। বাড়ি সুনামগঞ্জ জেলার শাল্লা থানার সিরাই গ্রামে। সে পরিবার নিয়ে কদমতলী জেসমিন ভিলায় ভাড়া থাকত। সোমবার সন্ধ্যায় দক্ষিণ সুরমার জৈনপুর এলাকায় তার ওপর হামলা হয়। বুধবার সিলেট ওসমানী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়।

পারিবারিক সূত্র জানায়, কয়েক দিন আগে জৈনপুর হাওরের বাড়ি এলাকার মাদক ব্যবসায়ী ফখরুল জহিরুল ইসলামকে মাদক ব্যবসার প্রস্তাব দেয়। জহিরুল রাজি হয়নি। সে এই ঘটনা তার বাবা-মা ও এক বন্ধুকে জানায়। এতে ফখরুল ক্ষিপ্ত হয়। সোমবার সন্ধ্যায় জহিরুলকে শিববাড়ী এলাকায় পেয়ে ধরে নিয়ে যায় মাদক ব্যবসায়ী ফখরুল, জায়েদ, উজ্জল, মাসুক ও সাঙ্গপাঙ্গরা। তারা জহিরুলকে জৈনপুর হাওরবাড়ী এলাকার নির্জন স্থানে নিয়ে ইট, পাথর দিয়ে শরীরের বিভিন্ন স্থানে ও মাথায় আঘাত করে রেললাইনে ফেলে যায়। টহল পুলিশ জহিরকে উদ্ধার করে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়।

মোগলাবাজার থানার পরিদর্শক তদন্ত মো. ফরিদ উদ্দিন খান বলেন, লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। সুরতহাল করা হয়েছে। জিডি করে তদন্ত চলছে।