শ্যালিকা ধর্ষণের মামলায় দুলাভাই কারাগারে
jugantor
শ্যালিকা ধর্ষণের মামলায় দুলাভাই কারাগারে

  সোনাগাজী (ফেনী) প্রতিনিধি  

২৬ নভেম্বর ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ফেনীর সোনাগাজীতে শ্যালিকাকে অপহরণ করে ধর্ষণের ঘটনায় মঙ্গলবার রাতে আবদুর রহিম নামে (৩৫) এক মুদি দোকানিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। অপহৃত স্কুলছাত্রীকে উদ্ধার করা হয়েছে। বুধবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে আবদুর রহিমকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। ফেনী জেনারেল হাসপাতালে ওই ছাত্রীর শারীরিক পরীক্ষা করা হয়েছে। বিকালে ফেনী সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শরাফ উদ্দিনের আদালতে ওই ছাত্রীর জবাবনবন্দি রেকর্ড করা হয়েছে। এলাকাবাসী জানায়, আমিরাবাদ ইউনিয়নের আহম্মদপুর গ্রামের আবদুর রহিম ৫-৬ বছর আগে একই ইউনিয়নের সফরপুর গ্রামের এক নারীকে বিয়ে করেন। তার এক কন্যা শিশু রয়েছে। কিন্তু শ্যালিকা দশম শ্রেণির ছাত্রীর ওপর তার কুনজর পড়ে। তাকে সে প্রতিনিয়ত বিয়ের প্রস্তাবে উত্ত্যক্ত করত। বিষয়টি ওই ছাত্রী তার মা ও বোনকে জানালে এতে ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে আবদুর রহিম। ১৭ নভেম্বর সকালে প্রাইভেট পড়তে যাওয়ার সময় সফরপুর মোল্লা বাড়ির সামনে থেকে ওই ছাত্রীকে আবদুর রহিম ও তার ৩-৪ জন সহযোগী অপহরণ করে অটোরিকশায় নিয়ে যায়। এ ব্যাপারে ছাত্রীর মা বাদী হয়ে আবদুর রহিমের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাত ৩-৪ জনকে আসামি করে সোনাগাজী মডেল থানায় মামলা করেছেন। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মঙ্গলকান্দি ইউনিয়নের ডাকবাংলা এলাকার একটি ভাড়া বাসা থেকে আবদুর রহমিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। সোনাগাজী মডেল থানার ওসি সাজেদুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

শ্যালিকা ধর্ষণের মামলায় দুলাভাই কারাগারে

 সোনাগাজী (ফেনী) প্রতিনিধি 
২৬ নভেম্বর ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ফেনীর সোনাগাজীতে শ্যালিকাকে অপহরণ করে ধর্ষণের ঘটনায় মঙ্গলবার রাতে আবদুর রহিম নামে (৩৫) এক মুদি দোকানিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। অপহৃত স্কুলছাত্রীকে উদ্ধার করা হয়েছে। বুধবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে আবদুর রহিমকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। ফেনী জেনারেল হাসপাতালে ওই ছাত্রীর শারীরিক পরীক্ষা করা হয়েছে। বিকালে ফেনী সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শরাফ উদ্দিনের আদালতে ওই ছাত্রীর জবাবনবন্দি রেকর্ড করা হয়েছে। এলাকাবাসী জানায়, আমিরাবাদ ইউনিয়নের আহম্মদপুর গ্রামের আবদুর রহিম ৫-৬ বছর আগে একই ইউনিয়নের সফরপুর গ্রামের এক নারীকে বিয়ে করেন। তার এক কন্যা শিশু রয়েছে। কিন্তু শ্যালিকা দশম শ্রেণির ছাত্রীর ওপর তার কুনজর পড়ে। তাকে সে প্রতিনিয়ত বিয়ের প্রস্তাবে উত্ত্যক্ত করত। বিষয়টি ওই ছাত্রী তার মা ও বোনকে জানালে এতে ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে আবদুর রহিম। ১৭ নভেম্বর সকালে প্রাইভেট পড়তে যাওয়ার সময় সফরপুর মোল্লা বাড়ির সামনে থেকে ওই ছাত্রীকে আবদুর রহিম ও তার ৩-৪ জন সহযোগী অপহরণ করে অটোরিকশায় নিয়ে যায়। এ ব্যাপারে ছাত্রীর মা বাদী হয়ে আবদুর রহিমের নাম উল্লেখ করে ও অজ্ঞাত ৩-৪ জনকে আসামি করে সোনাগাজী মডেল থানায় মামলা করেছেন। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মঙ্গলকান্দি ইউনিয়নের ডাকবাংলা এলাকার একটি ভাড়া বাসা থেকে আবদুর রহমিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। সোনাগাজী মডেল থানার ওসি সাজেদুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।