রাষ্ট্রে আলেমদের কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠা করতে হবে
jugantor
ওলামা সম্মেলনে চরমোনাই পির
রাষ্ট্রে আলেমদের কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠা করতে হবে

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

০৭ মার্চ ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমির মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম (পির চরমোনাই) বলেছেন, দুর্নীতিবাজদের বর্জন করে রাষ্ট্রে আলেম-সমাজের কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠা করতে হবে। স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে সব দল ও সামাজিক সংগঠনকে বৃহত্তর স্বার্থে ইসলামের পক্ষে সম্পৃক্ত করার গুরুদায়িত্ব ওলামায়ে কেরামকে নিতে হবে। রাজধানীর ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে শনিবার জাতীয় ওলামা মাশায়েখ আইম্মা পরিষদ আয়োজিত জাতীয় ওলামা মাশায়েখ সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

রেজাউল করীম বলেন, দেশের সার্বিক পরিস্থিতি অত্যন্ত উদ্বেগজনক। ইসলামের নাম-নিশানা মুছে দিতে একটি চক্র উঠেপড়ে লেগেছে। ইসলামি শিক্ষা ও ইসলামি ব্যক্তিদেরকে কোণঠাসা করে রাখা হয়েছে।

সংগঠনের সভাপতি নূরুল হুদা ফয়েজীর সভাপতিত্বে সম্মেলনে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন ইসলামি আন্দোলনের সিনিয়র নায়েবে আমির মুফতি সৈয়দ ফয়জুল করীম, হাটহাজারী মাদ্রাসার শায়খুল হাদিস আল্লামা শেখ আহমদ চাটগামী, বগুড়া জামিল মাদ্রাসার মুহাদ্দিস মাওলানা আব্দুল হক আজাদ, চরমোনাই কামিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা সৈয়দ মোসাদ্দেক বিল্লাহ আল-মাদানী, ইসলামী আন্দোলনের মহাসচিব অধ্যক্ষ মাওলানা ইউনুছ আহমাদ, বরিশাল খাজা মাদ্রাসার মুহতামিম মাওলানা আব্দুল হালিম, শিবচর জামিয়াতুস সুন্নাহর প্রিন্সিপাল মাওলানা নেয়ামতুল্লাহ আল-ফরিদী, ইসলামী আন্দোলনের উপদেষ্টা ড. আ ফ ম খালিদ হোসাইন, খুলনা দারুল উলুমের মুহতামিম মুফতি মুশতাক আহমদ, জামিয়া ইউনুছিয়ার মুফতি আব্দুর রহীম কাসেমী, চাঁদপুরের মাওলানা খাজা মাঈনুদ্দীন, খুলনার মুফতি গোলামুর রহমান, খুলনার মাওলানা শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ প্রমুখ।

সম্মেলনে ঘোষণাপত্র পাঠ করেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মাওলানা গাজী আতাউর রহমান। সম্মেলনে মাওলানা নূরুল হুদা ফয়েজী সভাপতি এবং মাওলানা গাজী আতাউর রহমান সাধারণ সম্পাদক পুনর্নির্বাচিত হন। কমিটিতে অন্যদের মধ্যে রয়েছেন মাওলানা আব্দুল হক আজাদ সিনিয়র সহসভাপতি; মুফতি ওমর ফারুক সন্দ্বিপী, খালিদ সাইফুল্লাহ, ড. মুশতাক আহমদ, ড. আ ফ ম খালিদ হোসাইন ও মাওলানা নেয়ামতুল্লাহ আল-ফরিদী সহসভাপতি।

সম্মেলনে আরও বক্তব্য দেন ভাটারা জামিয়া সাঈদিয়ার মুহতামিম মাওলানা শেখ ফজলে বারী মাসউদ, দক্ষিণ সভাপতি মাওলানা মুহাম্মদ ইমতিয়াজ আলম, মাওলানা লোকমান হোসাইন জাফরী, মাওলানা কামাল উদ্দিন সিরাজ প্রমুখ।

সম্মেলনে ১৫ দাবি উপস্থাপন করা হয়। ঘোষণাপত্রে বলা হয়, সাম্য-মানবিক মর্যাদা ও সামাজিক ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা নিশ্চিত করতে দেশের শাসনতন্ত্র, সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান, রাজনৈতিক সংস্কৃতি ও নাগরিক মূল্যবোধকে ইসলামের আলোকে সাজিয়ে তুলতে সবাইকে যার যার স্থান থেকে ব্যবস্থা নিতে হবে। উম্মাহর খেলাফতবিহীন কাল আর দীর্ঘায়িত হতে দেওয়া যায় না। সেজন্য খেলাফত আলামিন হাজিন নবুওয়াহ প্রতিষ্ঠায় উম্মাহর সবাইকে বিশেষত ওলামায়ে কেরামকে ঐক্যবদ্ধ বাস্তবমুখী কার্যক্রম চালাতে হবে।

ওলামা সম্মেলনে চরমোনাই পির

রাষ্ট্রে আলেমদের কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠা করতে হবে

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
০৭ মার্চ ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমির মুফতি সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম (পির চরমোনাই) বলেছেন, দুর্নীতিবাজদের বর্জন করে রাষ্ট্রে আলেম-সমাজের কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠা করতে হবে। স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে সব দল ও সামাজিক সংগঠনকে বৃহত্তর স্বার্থে ইসলামের পক্ষে সম্পৃক্ত করার গুরুদায়িত্ব ওলামায়ে কেরামকে নিতে হবে। রাজধানীর ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে শনিবার জাতীয় ওলামা মাশায়েখ আইম্মা পরিষদ আয়োজিত জাতীয় ওলামা মাশায়েখ সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

রেজাউল করীম বলেন, দেশের সার্বিক পরিস্থিতি অত্যন্ত উদ্বেগজনক। ইসলামের নাম-নিশানা মুছে দিতে একটি চক্র উঠেপড়ে লেগেছে। ইসলামি শিক্ষা ও ইসলামি ব্যক্তিদেরকে কোণঠাসা করে রাখা হয়েছে।

সংগঠনের সভাপতি নূরুল হুদা ফয়েজীর সভাপতিত্বে সম্মেলনে বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন ইসলামি আন্দোলনের সিনিয়র নায়েবে আমির মুফতি সৈয়দ ফয়জুল করীম, হাটহাজারী মাদ্রাসার শায়খুল হাদিস আল্লামা শেখ আহমদ চাটগামী, বগুড়া জামিল মাদ্রাসার মুহাদ্দিস মাওলানা আব্দুল হক আজাদ, চরমোনাই কামিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা সৈয়দ মোসাদ্দেক বিল্লাহ আল-মাদানী, ইসলামী আন্দোলনের মহাসচিব অধ্যক্ষ মাওলানা ইউনুছ আহমাদ, বরিশাল খাজা মাদ্রাসার মুহতামিম মাওলানা আব্দুল হালিম, শিবচর জামিয়াতুস সুন্নাহর প্রিন্সিপাল মাওলানা নেয়ামতুল্লাহ আল-ফরিদী, ইসলামী আন্দোলনের উপদেষ্টা ড. আ ফ ম খালিদ হোসাইন, খুলনা দারুল উলুমের মুহতামিম মুফতি মুশতাক আহমদ, জামিয়া ইউনুছিয়ার মুফতি আব্দুর রহীম কাসেমী, চাঁদপুরের মাওলানা খাজা মাঈনুদ্দীন, খুলনার মুফতি গোলামুর রহমান, খুলনার মাওলানা শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ প্রমুখ।

সম্মেলনে ঘোষণাপত্র পাঠ করেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মাওলানা গাজী আতাউর রহমান। সম্মেলনে মাওলানা নূরুল হুদা ফয়েজী সভাপতি এবং মাওলানা গাজী আতাউর রহমান সাধারণ সম্পাদক পুনর্নির্বাচিত হন। কমিটিতে অন্যদের মধ্যে রয়েছেন মাওলানা আব্দুল হক আজাদ সিনিয়র সহসভাপতি; মুফতি ওমর ফারুক সন্দ্বিপী, খালিদ সাইফুল্লাহ, ড. মুশতাক আহমদ, ড. আ ফ ম খালিদ হোসাইন ও মাওলানা নেয়ামতুল্লাহ আল-ফরিদী সহসভাপতি।

সম্মেলনে আরও বক্তব্য দেন ভাটারা জামিয়া সাঈদিয়ার মুহতামিম মাওলানা শেখ ফজলে বারী মাসউদ, দক্ষিণ সভাপতি মাওলানা মুহাম্মদ ইমতিয়াজ আলম, মাওলানা লোকমান হোসাইন জাফরী, মাওলানা কামাল উদ্দিন সিরাজ প্রমুখ।

সম্মেলনে ১৫ দাবি উপস্থাপন করা হয়। ঘোষণাপত্রে বলা হয়, সাম্য-মানবিক মর্যাদা ও সামাজিক ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা নিশ্চিত করতে দেশের শাসনতন্ত্র, সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান, রাজনৈতিক সংস্কৃতি ও নাগরিক মূল্যবোধকে ইসলামের আলোকে সাজিয়ে তুলতে সবাইকে যার যার স্থান থেকে ব্যবস্থা নিতে হবে। উম্মাহর খেলাফতবিহীন কাল আর দীর্ঘায়িত হতে দেওয়া যায় না। সেজন্য খেলাফত আলামিন হাজিন নবুওয়াহ প্রতিষ্ঠায় উম্মাহর সবাইকে বিশেষত ওলামায়ে কেরামকে ঐক্যবদ্ধ বাস্তবমুখী কার্যক্রম চালাতে হবে।

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন