চট্টগ্রামে ক্রেতা কম রাজশাহীতে ভিড়
jugantor
দোকানপাট খুললেও স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষিত
চট্টগ্রামে ক্রেতা কম রাজশাহীতে ভিড়

  যুগান্তর ডেস্ক  

১০ এপ্রিল ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

চট্টগ্রামে শপিংমল, দোকানপাট খুললেও শুক্রবার ক্রেতা উপস্থিতি ছিল কম। আবার রাজশাহীর দোকানপাট-শপিংমলে ছিল ভিড়। কিন্তু উভয়স্থানেই উপেক্ষিত হয়েছে স্বাস্থ্যবিধি। বরিশালে স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতে দোকানদারদের মাঝে লিফলেট বিতরণ করা হয়েছে। ব্যুরো অফিসগুলোর পাঠানো খবর-

চট্টগ্রাম : লকডাউনে টানা ৪ দিন বন্ধ থাকার পর চট্টগ্রামে শপিংমল ও মার্কেট খুলেছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে শুক্রবার সকাল ৯টায় খুলে দেওয়া হয় শপিংমল। কিন্তু ক্রেতা সমাগম ছিল একেবারে কম। সকাল ৯টা থেকে নগরীর রিয়াজউদ্দিন বাজার, টেরিবাজার, চকবাজারের বিভিন্ন শপিংমল খুলেছেন ব্যবসায়ীরা। এদিকে মার্কেট খুললেও স্বাস্থ্যবিধি মানার বালাই নেই বেশিরভাগ মার্কেট ও শপিংমলে।

সরেজমিন টেরিবাজার গিয়ে দেখা যায়, বড় বড় শপিং সেন্টার ও পাইকারি কাপড়ের সব দোকানই খোলা। কিছু দোকানে প্রবেশমুখেই রয়েছে লিক্যুইড সোপ দিয়ে হাত ধোয়ার ব্যবস্থা। হাত ধুয়ে জীবাণুনাশক টানেল পেরিয়ে আসা ক্রেতা-বিক্রেতাদের শরীরের তাপমাত্রা মাপছেন নিরাপত্তাকর্মীরা। পরীক্ষায় পাশ করলেই আবার হাতে স্যানিটাইজার দিয়ে দোকানে ঢোকার সুযোগ দেওয়া হচ্ছে। কোনো কোনো দোকানে স্বাস্থ্যবিধি ছাড়াই মানুষ কেনাকাটা করছে। শুক্রবার সীমিত পরিসরে রিয়াজুদ্দিনবাজার, টেরিবাজার ও জহুর হকার্স মার্কেটে ব্যবসায়ীরা দোকান খুলেছেন।

জহুর হকার্স মার্কেট ব্যবসায়ী নেতা আবুল কালাম বলেন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে আমরা সীমিত পরিসরে মার্কেট চালু করেছি। তবে শুক্রবার ক্রেতা কম ছিল বলে জানান তিনি। চাক্তাই খাতুনগঞ্জ আড়তদার সাধারণ ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির সাধারণ সম্পাদক মহিউদ্দিন বলেন, স্বাভাবিক ছিল ভোগ্যপণ্যের সরবরাহ। টেরিবাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক আবদুল মান্নান বলেন, সমিতির পক্ষ থেকে নির্দেশ দিয়েছি, সব ব্যবসায়ী যেন স্বাস্থ্যবিধি মেনে ব্যবসা পরিচালনা করেন। প্রথমদিন ক্রেতা ছিল না বললেই চলে।

রাজশাহী : রাজশাহীতে শুক্রবার সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত দোকানপাট, শোরুম এবং শপিংমল খোলা ছিল। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে মহানগরীর প্রায় সব মার্কেটের দোকানগুলোতে ভিড় বাড়তে শুরু করে। ফুটপাতেও ছিল একই রকম অবস্থা। কিন্তু ক্রেতা-বিক্রেতারা স্বাস্থ্যবিধি মানেননি।

আরডিএ মার্কেট ও কাপড়পট্টির অধিকাংশ কর্মচারীর মুখে মাস্ক ছিল না। আবার যারা মাস্ক ব্যবহার করছেন তারাও সঠিক নিয়মে মাস্ক পরছেন না। এসব দোকানে ক্রেতা ঠাসা ছিল। সামাজিক দূরত্বও মানা হয়নি।

স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতের বিষয়ে ব্যবসায়ীরা বলছেন, তারা সর্বাত্মক চেষ্টা করে যাচ্ছেন সরকারি নির্দেশনানুযায়ী মাস্কসহ সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করার। তবে একেবারে স্বাস্থ্যবিধি যে মানছেন না, এমনটা না।

শুক্রবার মহানগরীর কাঁচাবাজারসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দোকানগুলোতে সবচেয়ে বেশি ভিড় দেখা গেছে। মাস্টারপাড়া ও সাহেববাজার কাঁচাবাজারে পা রাখার জায়গা ছিল না। অথচ অধিকাংশ ব্যবসায়ীর মুখে মাস্ক ছিল না। সামাজিক দূরত্বেরও কোনো বালাই ছিল না। রাজশাহী মহানগর পুলিশের (আরএমপি) মুখপাত্র অতিরিক্ত উপ-কমিশনার গোলাম রুহুল কুদ্দুস জানান, স্বাস্থ্যবিধি পালনে ব্যত্যয় ঘটলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বরিশাল : বরিশালে স্বাস্থ্যনিরাপত্তা বিধি মেনে ব্যবসা পরিচালনায় উদ্বুদ্ধ করতে দোকানদারদের সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ করেছে জেলা প্রশাসন। শুক্রবার বেলা ১১টায় নগরীর চকবাজার এলাকায় এই লিফলেট বিতরণ করা হয়। নির্বাহী হাকিম সুব্রত কুমার বিশ্বাস বলেন, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে সরকারি সকল নির্দেশনা মেনে সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত ব্যবসা পরিচালনা করা যাবে। এই নিয়ম অমান্য করলে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে শাস্তির আওতায় আনা হবে।

দোকানপাট খুললেও স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষিত

চট্টগ্রামে ক্রেতা কম রাজশাহীতে ভিড়

 যুগান্তর ডেস্ক 
১০ এপ্রিল ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

চট্টগ্রামে শপিংমল, দোকানপাট খুললেও শুক্রবার ক্রেতা উপস্থিতি ছিল কম। আবার রাজশাহীর দোকানপাট-শপিংমলে ছিল ভিড়। কিন্তু উভয়স্থানেই উপেক্ষিত হয়েছে স্বাস্থ্যবিধি। বরিশালে স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতে দোকানদারদের মাঝে লিফলেট বিতরণ করা হয়েছে। ব্যুরো অফিসগুলোর পাঠানো খবর-

চট্টগ্রাম : লকডাউনে টানা ৪ দিন বন্ধ থাকার পর চট্টগ্রামে শপিংমল ও মার্কেট খুলেছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে শুক্রবার সকাল ৯টায় খুলে দেওয়া হয় শপিংমল। কিন্তু ক্রেতা সমাগম ছিল একেবারে কম। সকাল ৯টা থেকে নগরীর রিয়াজউদ্দিন বাজার, টেরিবাজার, চকবাজারের বিভিন্ন শপিংমল খুলেছেন ব্যবসায়ীরা। এদিকে মার্কেট খুললেও স্বাস্থ্যবিধি মানার বালাই নেই বেশিরভাগ মার্কেট ও শপিংমলে।

সরেজমিন টেরিবাজার গিয়ে দেখা যায়, বড় বড় শপিং সেন্টার ও পাইকারি কাপড়ের সব দোকানই খোলা। কিছু দোকানে প্রবেশমুখেই রয়েছে লিক্যুইড সোপ দিয়ে হাত ধোয়ার ব্যবস্থা। হাত ধুয়ে জীবাণুনাশক টানেল পেরিয়ে আসা ক্রেতা-বিক্রেতাদের শরীরের তাপমাত্রা মাপছেন নিরাপত্তাকর্মীরা। পরীক্ষায় পাশ করলেই আবার হাতে স্যানিটাইজার দিয়ে দোকানে ঢোকার সুযোগ দেওয়া হচ্ছে। কোনো কোনো দোকানে স্বাস্থ্যবিধি ছাড়াই মানুষ কেনাকাটা করছে। শুক্রবার সীমিত পরিসরে রিয়াজুদ্দিনবাজার, টেরিবাজার ও জহুর হকার্স মার্কেটে ব্যবসায়ীরা দোকান খুলেছেন।

জহুর হকার্স মার্কেট ব্যবসায়ী নেতা আবুল কালাম বলেন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে আমরা সীমিত পরিসরে মার্কেট চালু করেছি। তবে শুক্রবার ক্রেতা কম ছিল বলে জানান তিনি। চাক্তাই খাতুনগঞ্জ আড়তদার সাধারণ ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির সাধারণ সম্পাদক মহিউদ্দিন বলেন, স্বাভাবিক ছিল ভোগ্যপণ্যের সরবরাহ। টেরিবাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক আবদুল মান্নান বলেন, সমিতির পক্ষ থেকে নির্দেশ দিয়েছি, সব ব্যবসায়ী যেন স্বাস্থ্যবিধি মেনে ব্যবসা পরিচালনা করেন। প্রথমদিন ক্রেতা ছিল না বললেই চলে।

রাজশাহী : রাজশাহীতে শুক্রবার সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত দোকানপাট, শোরুম এবং শপিংমল খোলা ছিল। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে মহানগরীর প্রায় সব মার্কেটের দোকানগুলোতে ভিড় বাড়তে শুরু করে। ফুটপাতেও ছিল একই রকম অবস্থা। কিন্তু ক্রেতা-বিক্রেতারা স্বাস্থ্যবিধি মানেননি।

আরডিএ মার্কেট ও কাপড়পট্টির অধিকাংশ কর্মচারীর মুখে মাস্ক ছিল না। আবার যারা মাস্ক ব্যবহার করছেন তারাও সঠিক নিয়মে মাস্ক পরছেন না। এসব দোকানে ক্রেতা ঠাসা ছিল। সামাজিক দূরত্বও মানা হয়নি।

স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিতের বিষয়ে ব্যবসায়ীরা বলছেন, তারা সর্বাত্মক চেষ্টা করে যাচ্ছেন সরকারি নির্দেশনানুযায়ী মাস্কসহ সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করার। তবে একেবারে স্বাস্থ্যবিধি যে মানছেন না, এমনটা না।

শুক্রবার মহানগরীর কাঁচাবাজারসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দোকানগুলোতে সবচেয়ে বেশি ভিড় দেখা গেছে। মাস্টারপাড়া ও সাহেববাজার কাঁচাবাজারে পা রাখার জায়গা ছিল না। অথচ অধিকাংশ ব্যবসায়ীর মুখে মাস্ক ছিল না। সামাজিক দূরত্বেরও কোনো বালাই ছিল না। রাজশাহী মহানগর পুলিশের (আরএমপি) মুখপাত্র অতিরিক্ত উপ-কমিশনার গোলাম রুহুল কুদ্দুস জানান, স্বাস্থ্যবিধি পালনে ব্যত্যয় ঘটলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বরিশাল : বরিশালে স্বাস্থ্যনিরাপত্তা বিধি মেনে ব্যবসা পরিচালনায় উদ্বুদ্ধ করতে দোকানদারদের সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ করেছে জেলা প্রশাসন। শুক্রবার বেলা ১১টায় নগরীর চকবাজার এলাকায় এই লিফলেট বিতরণ করা হয়। নির্বাহী হাকিম সুব্রত কুমার বিশ্বাস বলেন, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে সরকারি সকল নির্দেশনা মেনে সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত ব্যবসা পরিচালনা করা যাবে। এই নিয়ম অমান্য করলে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে শাস্তির আওতায় আনা হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন