নারায়ণগঞ্জ ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় গ্রেফতার ১৬
jugantor
হেফাজতের তাণ্ডব
নারায়ণগঞ্জ ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় গ্রেফতার ১৬

  যুগান্তর ডেস্ক  

২০ এপ্রিল ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে অবস্থিত রয়েল রিসোর্টে হেফাজত ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হক এক নারীসহ অবরুদ্ধ হওয়ার পর হেফাজত ইসলামের সহিংসতা ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের মামলায় সোনারগাঁ উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি আব্দুর রউফকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। নারায়ণগঞ্জ মহানগর জামায়াতে ইসলামের আমির মাওলানা মাঈনুদ্দিন আহমেদসহ তিনজনকে হেফাজতের হরতালে নাশকতার মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। এ মামলায় মাঈনুদ্দিনের ৭ দিনের রিমান্ড আবেদন করেছে পুলিশ। ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হেফাজতের ১২ কর্মী সমর্থককে গ্রেফতার করা হয়েছে। ব্যুরো, স্টাফ রিপোর্টার ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

সোনারগাঁ : আব্দুর রউফ উপজেলার শম্ভুপুরা ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান। শম্ভুপুরা ইউনিয়ন পরিষদে সোমবার দুপুর দেড়টায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করা হয়। সোনারগাঁ থানার ওসি (তদন্ত) খন্দকার তবিদুর রহমান গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। গ্রেফতার আব্দুর রউফকে নারায়ণগঞ্জ জেলা আদালতে পাঠানো হয়েছে। এর আগে গ্রেফতার করা হয় সোনারগাঁ পৌর কাউন্সিলর ও জাতীয় পার্টির নেতা ফারুক আহমেদ তপন ও সাবেক কাউন্সিলর জাতীয় পার্টির নেতা গরিবে নেওয়াজকে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া : ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হেফাজত ইসলামের কর্মী-সমর্থকদের ২৬, ২৭ ও ২৮ মার্চ শহরজুড়ে ব্যাপক তাণ্ডব চালানোর ঘটনায় রোববার রাতে আরও ১২ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এ নিয়ে ৫৫ মামলায় ৩১০ জনকে গ্রেফতার করা হলো। পুলিশের দাবি গ্রেফতার ব্যক্তিরা হেফাজতে ইসলামের কর্মী-সমর্থক। হেফাজতের তাণ্ডবের ঘটনায় জেলার বিভিন্ন থানায় ৫৫টি মামলা করা হয়েছে। এর মধ্যে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানায় ৪৯টি, আশুগঞ্জ থানায় চারটি, সরাইল থানায় দুটি। ৫৫টি মামলায় এজাহারনামীয় ৪১৪ জনসহ অজ্ঞাতনামা ৩৫ হাজার লোককে আসামি করা হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জ ও ফতুল্লা : আদালত মঙ্গলবার রিমান্ড শুনানির দিন ধার্য করে মাঈনুদ্দিনকে কারাগারে পাঠিয়েছেন। তার সঙ্গে গ্রেফতার ইসলাম ও জনিকে অন্য মামলায় আদালতে পাঠানো হয়েছে। এর সত্যতা নিশ্চিত করে নারায়ণগঞ্জ কোর্ট পুলিশের এসআই কামাল হোসেন বলেন, রোববার রাত ১টায় ফতুল্লার হাজীগঞ্জের নিজ বাড়ি থেকে মাওলানা মাঈনুদ্দিন আহমেদকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। একই সময় বিএনপি নেতা মো. ইসলাম ও জামায়াতে ইসলামীর সদস্য মো. জনিকেও গ্রেফতার করা হয়।

হেফাজতের তাণ্ডব

নারায়ণগঞ্জ ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় গ্রেফতার ১৬

 যুগান্তর ডেস্ক 
২০ এপ্রিল ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে অবস্থিত রয়েল রিসোর্টে হেফাজত ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হক এক নারীসহ অবরুদ্ধ হওয়ার পর হেফাজত ইসলামের সহিংসতা ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের মামলায় সোনারগাঁ উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি আব্দুর রউফকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। নারায়ণগঞ্জ মহানগর জামায়াতে ইসলামের আমির মাওলানা মাঈনুদ্দিন আহমেদসহ তিনজনকে হেফাজতের হরতালে নাশকতার মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। এ মামলায় মাঈনুদ্দিনের ৭ দিনের রিমান্ড আবেদন করেছে পুলিশ। ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হেফাজতের ১২ কর্মী সমর্থককে গ্রেফতার করা হয়েছে। ব্যুরো, স্টাফ রিপোর্টার ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

সোনারগাঁ : আব্দুর রউফ উপজেলার শম্ভুপুরা ইউনিয়ন পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান। শম্ভুপুরা ইউনিয়ন পরিষদে সোমবার দুপুর দেড়টায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করা হয়। সোনারগাঁ থানার ওসি (তদন্ত) খন্দকার তবিদুর রহমান গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। গ্রেফতার আব্দুর রউফকে নারায়ণগঞ্জ জেলা আদালতে পাঠানো হয়েছে। এর আগে গ্রেফতার করা হয় সোনারগাঁ পৌর কাউন্সিলর ও জাতীয় পার্টির নেতা ফারুক আহমেদ তপন ও সাবেক কাউন্সিলর জাতীয় পার্টির নেতা গরিবে নেওয়াজকে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া : ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হেফাজত ইসলামের কর্মী-সমর্থকদের ২৬, ২৭ ও ২৮ মার্চ শহরজুড়ে ব্যাপক তাণ্ডব চালানোর ঘটনায় রোববার রাতে আরও ১২ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এ নিয়ে ৫৫ মামলায় ৩১০ জনকে গ্রেফতার করা হলো। পুলিশের দাবি গ্রেফতার ব্যক্তিরা হেফাজতে ইসলামের কর্মী-সমর্থক। হেফাজতের তাণ্ডবের ঘটনায় জেলার বিভিন্ন থানায় ৫৫টি মামলা করা হয়েছে। এর মধ্যে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানায় ৪৯টি, আশুগঞ্জ থানায় চারটি, সরাইল থানায় দুটি। ৫৫টি মামলায় এজাহারনামীয় ৪১৪ জনসহ অজ্ঞাতনামা ৩৫ হাজার লোককে আসামি করা হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জ ও ফতুল্লা : আদালত মঙ্গলবার রিমান্ড শুনানির দিন ধার্য করে মাঈনুদ্দিনকে কারাগারে পাঠিয়েছেন। তার সঙ্গে গ্রেফতার ইসলাম ও জনিকে অন্য মামলায় আদালতে পাঠানো হয়েছে। এর সত্যতা নিশ্চিত করে নারায়ণগঞ্জ কোর্ট পুলিশের এসআই কামাল হোসেন বলেন, রোববার রাত ১টায় ফতুল্লার হাজীগঞ্জের নিজ বাড়ি থেকে মাওলানা মাঈনুদ্দিন আহমেদকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। একই সময় বিএনপি নেতা মো. ইসলাম ও জামায়াতে ইসলামীর সদস্য মো. জনিকেও গ্রেফতার করা হয়।

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন