ফুলবাড়ীর ওসিকে প্রত্যাহারের দাবিতে সড়ক অবরোধ
jugantor
ফুলবাড়ীর ওসিকে প্রত্যাহারের দাবিতে সড়ক অবরোধ

  দিনাজপুর প্রতিনিধি  

২৩ এপ্রিল ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে বৃহস্পতিবার ২ ঘণ্টা মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছে উপজেলার মুক্তিযোদ্ধা ও সাধারণ মানুষ। কয়েকজন বীর মুক্তিযোদ্ধাসহ প্যানেল মেয়রকে লাঞ্ছিতকারীদের গ্রেফতার ও ফুলবাড়ী থানার ওসি ফখরুল ইসলামকে প্রত্যাহারের দাবিতে এ কর্মসূচি পালন করা হয়। পরে ফুলবাড়ী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আসাদুজ্জামান আসাদ ঘটনাস্থলে গিয়ে ওসিকে এক সপ্তাহের মধ্যে প্রত্যাহারের আশ্বাস দিলে অবরোধ কর্মসূচি প্রত্যাহার করা হয়।

বিক্ষোভকারীরা জানায়, ২১ এপ্রিল ফুলবাড়ী পৌরসভার প্যানেল মেয়র মামুনুর রশিদ চৌধুরীর ব্যক্তিগত অফিসে আজিজার রহমান শাহ নামের এক বীর মুক্তিযোদ্ধা ও তার ভাতিজার জমির বিরোধ নিয়ে বৈঠক হয়। এ সময় মামুনুর রশিদ চৌধুরীসহ বেশ কয়েকজন বীর মুক্তিযোদ্ধাকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করা হয়। এ ঘটনায় মুক্তিযোদ্ধা মো. আজিজার রহমান শাহ্ মামলা করেন। মামলার পরও ওসি মো. ফখরুল ইসলাম আসামিদের গ্রেফতার না করায় বুধবার বিকালে প্যানেল মেয়র এর লোকজন থানা ঘেরাও করে। এরপর বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় ফুলাবাড়ীর সব মুক্তিযোদ্ধা ও পৌরবাসীর ব্যানারে ফুলবাড়ী পৌর এলাকার নিমতলা মোড়ে অবস্থান নিয়ে দিনাজপুর- গোবিন্দগঞ্জ আঞ্চলিক মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করা হয়। ফুলবাড়ী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আসাদুজ্জামান বলেন, আমরা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে কথা বলেছি। ওসি ফখরুল ইসলাম আপাতত অফিসিয়ালভাবে কোনো কাগজপত্রে স্বাক্ষর করবেন না। আগামী ৭ দিনের মধ্যে তাকে প্রত্যাহার করা হবে। এছাড়া মামলার আসামিদের দ্রুত গ্রেফতারের চেষ্টা করা হবে।

ফুলবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ফখরুল ইসলাম তার বিরুদ্ধে আনা আভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, বিষয়টি নিয়ে মামলা হয়েছে। তদন্ত চলছে, তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এদিকে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ সমাবেশ চলাকালে মহাসড়কের দুই পাশে শত শত পণ্যবাহী ট্রাকের যানজট সৃষ্টি হয়। প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নিরু সামসুন্নাহার, ইউপি চেয়ারম্যান উপাধ্যক্ষ শাহ আব্দুল কুদ্দুস, পৌর প্যানেল মেয়র মামুনুর রশিদ চৌধুরী, সাবেক কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা লিয়াকত আলী, সাবেক ডেপুটি কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. এছার উদ্দিন, বীর মুক্তিযোদ্ধা কাশেম মণ্ডল প্রমুখ।

ফুলবাড়ীর ওসিকে প্রত্যাহারের দাবিতে সড়ক অবরোধ

 দিনাজপুর প্রতিনিধি 
২৩ এপ্রিল ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে বৃহস্পতিবার ২ ঘণ্টা মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছে উপজেলার মুক্তিযোদ্ধা ও সাধারণ মানুষ। কয়েকজন বীর মুক্তিযোদ্ধাসহ প্যানেল মেয়রকে লাঞ্ছিতকারীদের গ্রেফতার ও ফুলবাড়ী থানার ওসি ফখরুল ইসলামকে প্রত্যাহারের দাবিতে এ কর্মসূচি পালন করা হয়। পরে ফুলবাড়ী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আসাদুজ্জামান আসাদ ঘটনাস্থলে গিয়ে ওসিকে এক সপ্তাহের মধ্যে প্রত্যাহারের আশ্বাস দিলে অবরোধ কর্মসূচি প্রত্যাহার করা হয়।

বিক্ষোভকারীরা জানায়, ২১ এপ্রিল ফুলবাড়ী পৌরসভার প্যানেল মেয়র মামুনুর রশিদ চৌধুরীর ব্যক্তিগত অফিসে আজিজার রহমান শাহ নামের এক বীর মুক্তিযোদ্ধা ও তার ভাতিজার জমির বিরোধ নিয়ে বৈঠক হয়। এ সময় মামুনুর রশিদ চৌধুরীসহ বেশ কয়েকজন বীর মুক্তিযোদ্ধাকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করা হয়। এ ঘটনায় মুক্তিযোদ্ধা মো. আজিজার রহমান শাহ্ মামলা করেন। মামলার পরও ওসি মো. ফখরুল ইসলাম আসামিদের গ্রেফতার না করায় বুধবার বিকালে প্যানেল মেয়র এর লোকজন থানা ঘেরাও করে। এরপর বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় ফুলাবাড়ীর সব মুক্তিযোদ্ধা ও পৌরবাসীর ব্যানারে ফুলবাড়ী পৌর এলাকার নিমতলা মোড়ে অবস্থান নিয়ে দিনাজপুর- গোবিন্দগঞ্জ আঞ্চলিক মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করা হয়। ফুলবাড়ী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আসাদুজ্জামান বলেন, আমরা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে কথা বলেছি। ওসি ফখরুল ইসলাম আপাতত অফিসিয়ালভাবে কোনো কাগজপত্রে স্বাক্ষর করবেন না। আগামী ৭ দিনের মধ্যে তাকে প্রত্যাহার করা হবে। এছাড়া মামলার আসামিদের দ্রুত গ্রেফতারের চেষ্টা করা হবে।

ফুলবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ফখরুল ইসলাম তার বিরুদ্ধে আনা আভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, বিষয়টি নিয়ে মামলা হয়েছে। তদন্ত চলছে, তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এদিকে সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ সমাবেশ চলাকালে মহাসড়কের দুই পাশে শত শত পণ্যবাহী ট্রাকের যানজট সৃষ্টি হয়। প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নিরু সামসুন্নাহার, ইউপি চেয়ারম্যান উপাধ্যক্ষ শাহ আব্দুল কুদ্দুস, পৌর প্যানেল মেয়র মামুনুর রশিদ চৌধুরী, সাবেক কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা লিয়াকত আলী, সাবেক ডেপুটি কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. এছার উদ্দিন, বীর মুক্তিযোদ্ধা কাশেম মণ্ডল প্রমুখ।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন