দেবিদ্বারে বৃদ্ধাকে নির্যাতনের ভিডিও ভাইরাল
jugantor
দেবিদ্বারে বৃদ্ধাকে নির্যাতনের ভিডিও ভাইরাল
নির্যাতনকারী গ্রেফতার

  কুমিল্লা ব্যুরো  

১১ মে ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

দেবিদ্বার উপজেলায় জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে বৃদ্ধা আসমা বেগমকে নির্যাতন করার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। তাকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে রক্তাক্ত করা হয়। তাকে রক্ষা করতে গিয়ে তার স্বামী হাবিবুর রহমানও আহত হন। সোমবার আদালতের মাধ্যমে নির্যাতনকারী একজনকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

সোমবার দেবিদ্বার থানার ওসি আরিফুল ইসলাম জানান, বৃদ্ধাকে নির্যাতনের অভিযোগ পেয়ে রোববার রাতে থানার কুইক রেসপন্স টিম অভিযান চালিয়ে নির্যাতনকারীদের মধ্যে কামরুল হাসানকে গ্রেফতার করে। এ ঘটনায় বৃদ্ধার পুত্রবধূ তাসলিমা বেগম বাদী হয়ে পাঁচজনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন। গ্রেফতার কামরুলকে সোমবার আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। হামলায় জড়িত অপর আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, উপজেলার ভানী ইউনিয়নের কটকসার গ্রামের হারুন অর রশীদের সঙ্গে একই বাড়ির হাবিবুর রহমানের জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। এ নিয়ে পালটাপালটি মামলাও হয়েছে। এ বিরোধের জের ধরে শনিবার বিকালে হারুন অর রশীদের ছেলে ফারুক হাসান ও কামরুল হাসানসহ পরিবারের লোকজন আসমা বেগমের উপর নির্যাতন চালায়। ভাইরাল হওয়া ১ মিনিট ৫০ সেকেন্ডের ভিডিওতে দেখা যায়-প্রথমে ফারুক টেনেহিঁচড়ে তাকে মাটিতে ফেলে ধারালো দা দিয়ে কোপাতে থাকেন। এ সময় লাঠি হাতে তার ভাই কামরুল ও অপর এক নারী আসমাকে পেটাতে থাকেন। এ সময় স্ত্রীকে রক্ষা করতে গিয়ে বৃদ্ধ হাবিবুর রহমানও রক্তাক্ত হন। একই বাড়ির এক ব্যক্তি এ নির্যাতনের ভিডিও মোবাইল ফোনে ধারণ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করেন। এরই মধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিষয়টি ভাইরাল হয়।

দেবিদ্বারে বৃদ্ধাকে নির্যাতনের ভিডিও ভাইরাল

নির্যাতনকারী গ্রেফতার
 কুমিল্লা ব্যুরো 
১১ মে ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

দেবিদ্বার উপজেলায় জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে বৃদ্ধা আসমা বেগমকে নির্যাতন করার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। তাকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে রক্তাক্ত করা হয়। তাকে রক্ষা করতে গিয়ে তার স্বামী হাবিবুর রহমানও আহত হন। সোমবার আদালতের মাধ্যমে নির্যাতনকারী একজনকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

সোমবার দেবিদ্বার থানার ওসি আরিফুল ইসলাম জানান, বৃদ্ধাকে নির্যাতনের অভিযোগ পেয়ে রোববার রাতে থানার কুইক রেসপন্স টিম অভিযান চালিয়ে নির্যাতনকারীদের মধ্যে কামরুল হাসানকে গ্রেফতার করে। এ ঘটনায় বৃদ্ধার পুত্রবধূ তাসলিমা বেগম বাদী হয়ে পাঁচজনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন। গ্রেফতার কামরুলকে সোমবার আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। হামলায় জড়িত অপর আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, উপজেলার ভানী ইউনিয়নের কটকসার গ্রামের হারুন অর রশীদের সঙ্গে একই বাড়ির হাবিবুর রহমানের জমি নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। এ নিয়ে পালটাপালটি মামলাও হয়েছে। এ বিরোধের জের ধরে শনিবার বিকালে হারুন অর রশীদের ছেলে ফারুক হাসান ও কামরুল হাসানসহ পরিবারের লোকজন আসমা বেগমের উপর নির্যাতন চালায়। ভাইরাল হওয়া ১ মিনিট ৫০ সেকেন্ডের ভিডিওতে দেখা যায়-প্রথমে ফারুক টেনেহিঁচড়ে তাকে মাটিতে ফেলে ধারালো দা দিয়ে কোপাতে থাকেন। এ সময় লাঠি হাতে তার ভাই কামরুল ও অপর এক নারী আসমাকে পেটাতে থাকেন। এ সময় স্ত্রীকে রক্ষা করতে গিয়ে বৃদ্ধ হাবিবুর রহমানও রক্তাক্ত হন। একই বাড়ির এক ব্যক্তি এ নির্যাতনের ভিডিও মোবাইল ফোনে ধারণ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করেন। এরই মধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিষয়টি ভাইরাল হয়।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন