ঈদ ঘিরে মৌসুমি অপরাধীরা সক্রিয়
jugantor
ঈদ ঘিরে মৌসুমি অপরাধীরা সক্রিয়
বেড়েছে ছিনতাই

  ইকবাল হাসান ফরিদ  

১২ মে ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ঈদ ঘিরে রাজধানীসহ বিভিন্ন বিভাগীয় শহরে মৌসুমি অপরাধীরা সক্রিয় হয়ে উঠেছে। এর মধ্যে রয়েছে ছিনতাইকারী, অজ্ঞান ও মলম পার্টি, ডাকাত, প্রতারকসহ নানা ধরনের অপরাধী। আর এদের খপ্পরে পড়ে সর্বস্ব খোয়াচ্ছেন সাধারণ মানুষ। লকডাউন কিছুটা শিথিল করায় বাড়ছে মানুষের চলাফেরা। রাজধানীসহ বিভিন্ন নগরীর বিভিন্ন মার্কেট শপিংমলে এখন উপচে পড়া ভিড়। নগর পরিবহণ চালুর পর ভিড় আরও বেড়েছে। আর এ সুযোগে বেশি তৎপর হয়ে উঠেছে মৌসুমি অপরাধীরা। তবে এদের রুখতে আগে থেকেই সতর্ক অবস্থানে রয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। অব্যাহত রয়েছে অভিযান। ধরাও পড়ছে অপরাধীরা। ঈদে বড় অঙ্কের টাকার লেনদেনের ক্ষেত্রে নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে জনগণের প্রতি মানিস্কট সেবা নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছে ঢাকা মহানগর পুলিশ-ডিএমপি। রাজধানীর আফতাবনগর এলাকায় ৬ মে সন্ধ্যায় ছিনতাইকারীর কবলে পড়েন বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের চাকরিজীবী আওলাদ হোসেন। রামপুরা থেকে নিজ বাসায় ফেরার পথে চাপাতি হাতে থাকা ছিনতাইকারীরা তাকে ঘিরে ধরে। এরপর তার কাছ থেকে একটি মোবাইল ফোন এবং পাঁচ হাজার টাকা নিয়ে যায়। আগের দিন কমলাপুর বিআরটিসি বাস ডিপোর সামনে ছিনতাইকারীরা ব্যাগ ধরে টান দিলে রিকশা থেকে পড়ে মারা যান গোপীবাগের বাসিন্দা সুনিতা রানী। ভোর ৬টায় গোপীবাগের বাসা থেকে ভাগ্নেকে সঙ্গে নিয়ে তিনি বৌদ্ধমন্দিরে কাজে যাচ্ছিলেন। এর আগে ৩ মে রাত ১২টার দিকে রাজধানীর মেয়র হানিফ ফ্লাইওভারের ওপর ছিনতাইকারীদের ছুরিকাঘাতে মামুন অর রশিদ (৪৫) নামের এক কাপড় ব্যবসায়ী আহত হন। তার কাছ থেকে ১৯ হাজার টাকা ও মোবাইল ফোন নিয়ে গেছে দুর্বৃত্তরা। ২৮ এপ্রিল ভোর সাড়ে ৫টার দিকে পলাশী এলাকায় ছিনতাইকারীদের ছুরিকাঘাতে সাগর (২৫) ও ইমরান (২১) নামে দুই যুবক আহত হন। পরে তাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়। দুর্বৃত্তরা তাদের কাছ থেকে চার হাজার টাকা ও মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নিয়ে যায়।

র‌্যাব-২ এর এএসপি আব্দুলাহ আল মামুন জানান, গত দুদিনে র‌্যাব-২ পৃথক অভিযান চালিয়ে মোহাম্মদপুরসহ বিভিন্ন এলাকা থেকে ২২ ছিনতাইকারীকে গ্রেফতার করেছে। এ ছাড়া পুলিশ ৭ মে দুপুরে গেন্ডারিয়া থানার বেগমগঞ্জ লেন নূর মসজিদের সামনে থেকে রাশেদুল ইসলাম রশিদ ও তুষার নামে দুই ছিনতাইকারীকে গ্রেফতার করে। তাদের কাছ থেকে ছিনতাইয়ের ৫০ হাজার টাকা, একটি মোটরসাইকেল এবং একটি ছুরি জব্দ করা হয়। মালিটোলা এসএ পরিবহণ থেকে ৫৭ হাজার টাকা উত্তোলন করে যাত্রাবাড়ীর উদ্দেশে রিকশাযোগে যাওয়ার সময় গেন্ডারিয়ার বেগমগঞ্জ লেনে রিকশা থামিয়ে এক ব্যক্তিকে ছুরিকাঘাত করে তারা অর্থকড়ি ছিনিয়ে নেয়। এ সময় চিৎকার শুনে আশপাশের লোকজন এসে রাশেদুল ইসলামকে ধরে ফেলে। পরে অভিযান চালিয়ে অপর ছিনতাইকারীকে পাকড়াও করে পুলিশ।

কাফরুল থানার সেনপাড়া এলাকায় ৫ মে অভিযান চালিয়ে পুলিশ মিলন মিয়া, মমিন হোসেন ও সুমন মিয়া নামে তিন ডাকাতকে গ্রেফতার করে। কাফরুল থানার ওসি সেলিমুজ্জামান জানান, এদের কাছ থেকে দেশীয় অস্ত্র জব্দ করা হয়েছে। আগের দিন মধ্যরাতে পল্লবী থানা পুলিশ ১২ নম্বর সেকশন এলাকায় অভিযান চালিয়ে অস্ত্রসহ দুই অপরাধীকে গ্রেফতার করে। তার হলো রাজ ও জুম্মন। কদমতলী থানার মাতুয়াইল এলাকায় ২ মে অভিযান চালিয়ে পুলিশ পারভেজ, শুভ দাস, শফিকুল ও ইব্রাহিম নামে চার ছিনতাইকারীকে গ্রেফতার করে। ওইদিন বেলা ১১টার দিকে যাত্রাবাড়ী চৌরাস্তা এলাকায় এক ব্যক্তির তিন হাজার টাকা ছিনিয়ে নেওয়ার সময় ট্রাফিক পুলিশ জাহিদ হাসান নামে এক ছিনতাইকারীকে হাতেনাতে ধরে ফেলে।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীসহ একাধিক সূত্র জানিয়েছে, ছিনতাইয়ে জড়িতদের বেশির ভাগই কিশোর, তরুণ ও গাড়িচালক। এ ছাড়া অন্য পেশার লোকজনও এ ধরনের অপরাধে জড়িয়ে পড়ছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখছে পুলিশ। কিছু ভুক্তভোগী মামলা করেন, অনেকেই করেন না। যে কারণে অনেক ঘটনাই অজানা থেকে যায়।

গোয়েন্দা সূত্রে জানা যায়, জাল নোট তৈরির সঙ্গে জড়িত চক্রগুলো সারা বছরের তুলনায় উৎসব টার্গেট করে বেপরোয়া হয়ে ওঠে। ইতোমধ্যে একাধিক চক্রকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আর হাসপাতালগুলোতে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, প্রতিদিনই অজ্ঞান পার্টির শিকার হয়ে মানুষ চিকিৎসা নিচ্ছেন।

ঈদ সামনে রেখে রাজধানীর বিভিন্ন মার্কেট, শপিংমল, বাসস্ট্যান্ড এলাকায় অজ্ঞান পার্টির সদস্যরা সক্রিয়। তারা চেতনানাশক ওষুধ মেশানো খাদ্যদ্রব্য যেমন চা, কফি, জুস, ডাবের পানি খাইয়ে অজ্ঞান করে সাধারণ মানুষের সব নিয়ে নিচ্ছে।

গোয়েন্দা পুলিশের যুগ্ম কমিশনার মাহবুব আলম বলেন, অন্যান্য বারের তুলনায় এবার রাজধানীতে অপরাধীদের তৎপরতা কম। তার পরও আমাদের নজরদারি রয়েছে। আমরা যে কোনো ধরনের অপরাধ রুখতে জিরো টলারেন্স নীতি অবলম্বন করছি।

ডিবির অতিক্তি কমিশনার একেএম হাফিজ আক্তার সাংবাদিকদের বলেন, সাম্প্রতিককালে ছিনতাইয়ের সঙ্গে গাড়িচালক, শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন পেশার মানুষ জড়িয়ে পড়ছে। এর কারণ অনুসন্ধান করা হচ্ছে।

ঢাকা মহানগর পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) যুগ্ম-কমিশনার মাহবুবুর রহমান জানান, এবার বড় অঙ্কের অর্থবহনের ক্ষেত্রে নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ডিএমপি মানিস্কর্ট সেবা দিচ্ছে। যারা বড় অঙ্কের অর্থ বহন ও উত্তোলন করেন তাদের এ সেবা নেওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন-পিবিআই প্রধান ডিআইজি বনজ কুমার মজুমদার যুগান্তরকে বলেন, প্রযুক্তির ব্যবহার করে অপরাধীদের পাকড়াও করা হচ্ছে। কখনো বিভিন্ন ঘটনার ছায়া তদন্ত করে আমরা অপরাধীদের আইনের আওতায় আনছি।

ঈদ ঘিরে মৌসুমি অপরাধীরা সক্রিয়

বেড়েছে ছিনতাই
 ইকবাল হাসান ফরিদ 
১২ মে ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ঈদ ঘিরে রাজধানীসহ বিভিন্ন বিভাগীয় শহরে মৌসুমি অপরাধীরা সক্রিয় হয়ে উঠেছে। এর মধ্যে রয়েছে ছিনতাইকারী, অজ্ঞান ও মলম পার্টি, ডাকাত, প্রতারকসহ নানা ধরনের অপরাধী। আর এদের খপ্পরে পড়ে সর্বস্ব খোয়াচ্ছেন সাধারণ মানুষ। লকডাউন কিছুটা শিথিল করায় বাড়ছে মানুষের চলাফেরা। রাজধানীসহ বিভিন্ন নগরীর বিভিন্ন মার্কেট শপিংমলে এখন উপচে পড়া ভিড়। নগর পরিবহণ চালুর পর ভিড় আরও বেড়েছে। আর এ সুযোগে বেশি তৎপর হয়ে উঠেছে মৌসুমি অপরাধীরা। তবে এদের রুখতে আগে থেকেই সতর্ক অবস্থানে রয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। অব্যাহত রয়েছে অভিযান। ধরাও পড়ছে অপরাধীরা। ঈদে বড় অঙ্কের টাকার লেনদেনের ক্ষেত্রে নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে জনগণের প্রতি মানিস্কট সেবা নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছে ঢাকা মহানগর পুলিশ-ডিএমপি। রাজধানীর আফতাবনগর এলাকায় ৬ মে সন্ধ্যায় ছিনতাইকারীর কবলে পড়েন বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের চাকরিজীবী আওলাদ হোসেন। রামপুরা থেকে নিজ বাসায় ফেরার পথে চাপাতি হাতে থাকা ছিনতাইকারীরা তাকে ঘিরে ধরে। এরপর তার কাছ থেকে একটি মোবাইল ফোন এবং পাঁচ হাজার টাকা নিয়ে যায়। আগের দিন কমলাপুর বিআরটিসি বাস ডিপোর সামনে ছিনতাইকারীরা ব্যাগ ধরে টান দিলে রিকশা থেকে পড়ে মারা যান গোপীবাগের বাসিন্দা সুনিতা রানী। ভোর ৬টায় গোপীবাগের বাসা থেকে ভাগ্নেকে সঙ্গে নিয়ে তিনি বৌদ্ধমন্দিরে কাজে যাচ্ছিলেন। এর আগে ৩ মে রাত ১২টার দিকে রাজধানীর মেয়র হানিফ ফ্লাইওভারের ওপর ছিনতাইকারীদের ছুরিকাঘাতে মামুন অর রশিদ (৪৫) নামের এক কাপড় ব্যবসায়ী আহত হন। তার কাছ থেকে ১৯ হাজার টাকা ও মোবাইল ফোন নিয়ে গেছে দুর্বৃত্তরা। ২৮ এপ্রিল ভোর সাড়ে ৫টার দিকে পলাশী এলাকায় ছিনতাইকারীদের ছুরিকাঘাতে সাগর (২৫) ও ইমরান (২১) নামে দুই যুবক আহত হন। পরে তাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়। দুর্বৃত্তরা তাদের কাছ থেকে চার হাজার টাকা ও মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নিয়ে যায়।

র‌্যাব-২ এর এএসপি আব্দুলাহ আল মামুন জানান, গত দুদিনে র‌্যাব-২ পৃথক অভিযান চালিয়ে মোহাম্মদপুরসহ বিভিন্ন এলাকা থেকে ২২ ছিনতাইকারীকে গ্রেফতার করেছে। এ ছাড়া পুলিশ ৭ মে দুপুরে গেন্ডারিয়া থানার বেগমগঞ্জ লেন নূর মসজিদের সামনে থেকে রাশেদুল ইসলাম রশিদ ও তুষার নামে দুই ছিনতাইকারীকে গ্রেফতার করে। তাদের কাছ থেকে ছিনতাইয়ের ৫০ হাজার টাকা, একটি মোটরসাইকেল এবং একটি ছুরি জব্দ করা হয়। মালিটোলা এসএ পরিবহণ থেকে ৫৭ হাজার টাকা উত্তোলন করে যাত্রাবাড়ীর উদ্দেশে রিকশাযোগে যাওয়ার সময় গেন্ডারিয়ার বেগমগঞ্জ লেনে রিকশা থামিয়ে এক ব্যক্তিকে ছুরিকাঘাত করে তারা অর্থকড়ি ছিনিয়ে নেয়। এ সময় চিৎকার শুনে আশপাশের লোকজন এসে রাশেদুল ইসলামকে ধরে ফেলে। পরে অভিযান চালিয়ে অপর ছিনতাইকারীকে পাকড়াও করে পুলিশ।

কাফরুল থানার সেনপাড়া এলাকায় ৫ মে অভিযান চালিয়ে পুলিশ মিলন মিয়া, মমিন হোসেন ও সুমন মিয়া নামে তিন ডাকাতকে গ্রেফতার করে। কাফরুল থানার ওসি সেলিমুজ্জামান জানান, এদের কাছ থেকে দেশীয় অস্ত্র জব্দ করা হয়েছে। আগের দিন মধ্যরাতে পল্লবী থানা পুলিশ ১২ নম্বর সেকশন এলাকায় অভিযান চালিয়ে অস্ত্রসহ দুই অপরাধীকে গ্রেফতার করে। তার হলো রাজ ও জুম্মন। কদমতলী থানার মাতুয়াইল এলাকায় ২ মে অভিযান চালিয়ে পুলিশ পারভেজ, শুভ দাস, শফিকুল ও ইব্রাহিম নামে চার ছিনতাইকারীকে গ্রেফতার করে। ওইদিন বেলা ১১টার দিকে যাত্রাবাড়ী চৌরাস্তা এলাকায় এক ব্যক্তির তিন হাজার টাকা ছিনিয়ে নেওয়ার সময় ট্রাফিক পুলিশ জাহিদ হাসান নামে এক ছিনতাইকারীকে হাতেনাতে ধরে ফেলে।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীসহ একাধিক সূত্র জানিয়েছে, ছিনতাইয়ে জড়িতদের বেশির ভাগই কিশোর, তরুণ ও গাড়িচালক। এ ছাড়া অন্য পেশার লোকজনও এ ধরনের অপরাধে জড়িয়ে পড়ছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখছে পুলিশ। কিছু ভুক্তভোগী মামলা করেন, অনেকেই করেন না। যে কারণে অনেক ঘটনাই অজানা থেকে যায়।

গোয়েন্দা সূত্রে জানা যায়, জাল নোট তৈরির সঙ্গে জড়িত চক্রগুলো সারা বছরের তুলনায় উৎসব টার্গেট করে বেপরোয়া হয়ে ওঠে। ইতোমধ্যে একাধিক চক্রকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আর হাসপাতালগুলোতে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, প্রতিদিনই অজ্ঞান পার্টির শিকার হয়ে মানুষ চিকিৎসা নিচ্ছেন।

ঈদ সামনে রেখে রাজধানীর বিভিন্ন মার্কেট, শপিংমল, বাসস্ট্যান্ড এলাকায় অজ্ঞান পার্টির সদস্যরা সক্রিয়। তারা চেতনানাশক ওষুধ মেশানো খাদ্যদ্রব্য যেমন চা, কফি, জুস, ডাবের পানি খাইয়ে অজ্ঞান করে সাধারণ মানুষের সব নিয়ে নিচ্ছে।

গোয়েন্দা পুলিশের যুগ্ম কমিশনার মাহবুব আলম বলেন, অন্যান্য বারের তুলনায় এবার রাজধানীতে অপরাধীদের তৎপরতা কম। তার পরও আমাদের নজরদারি রয়েছে। আমরা যে কোনো ধরনের অপরাধ রুখতে জিরো টলারেন্স নীতি অবলম্বন করছি।

ডিবির অতিক্তি কমিশনার একেএম হাফিজ আক্তার সাংবাদিকদের বলেন, সাম্প্রতিককালে ছিনতাইয়ের সঙ্গে গাড়িচালক, শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন পেশার মানুষ জড়িয়ে পড়ছে। এর কারণ অনুসন্ধান করা হচ্ছে।

ঢাকা মহানগর পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) যুগ্ম-কমিশনার মাহবুবুর রহমান জানান, এবার বড় অঙ্কের অর্থবহনের ক্ষেত্রে নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ডিএমপি মানিস্কর্ট সেবা দিচ্ছে। যারা বড় অঙ্কের অর্থ বহন ও উত্তোলন করেন তাদের এ সেবা নেওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন-পিবিআই প্রধান ডিআইজি বনজ কুমার মজুমদার যুগান্তরকে বলেন, প্রযুক্তির ব্যবহার করে অপরাধীদের পাকড়াও করা হচ্ছে। কখনো বিভিন্ন ঘটনার ছায়া তদন্ত করে আমরা অপরাধীদের আইনের আওতায় আনছি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন