প্রাপ্তবয়স্কদের প্রতি ৪ জনে ১ জন উচ্চ রক্তচাপে ভুগছেন
jugantor
বিশ্ব উচ্চ রক্তচাপ দিবস আজ
প্রাপ্তবয়স্কদের প্রতি ৪ জনে ১ জন উচ্চ রক্তচাপে ভুগছেন

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

১৭ মে ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

আজ বিশ্ব উচ্চ রক্তচাপ দিবস। উচ্চ রক্তচাপের কারণে হৃদরোগ ও স্ট্রোকের ঝুঁকি বাড়ে। বাংলাদেশে প্রাপ্তবয়স্কদের প্রতি ৪ জনে ১ জন উচ্চ রক্তচাপ সমস্যায় ভুগছেন। উচ্চ রক্তচাপ কোনো রোগ নয়; এটি কিছু রোগের উপসর্গ মাত্র। বর্তমান বিশ্বে এটি মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়েছে। রোগটি সম্পর্কে মানুষকে সচেতন করার লক্ষ্যে ও প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের পাশাপাশি এই রোগের জটিলতা ও চিকিৎসা সম্পর্কে মানুষকে অবগত করার উদ্দেশ্যেই প্রতিবছর ১৭ মে দিবসটি পালন করা হয়।

বিশেষজ্ঞদের মতে, উচ্চ রক্তচাপের কারণে স্ট্রোক, হাইপারটেনসিভ এনসেফালোপ্যাথি, প্যারালাইসিস, মস্তিষ্কে জটিলতা, মস্তিষ্কের সাব অ্যারাকনয়েড স্পেসে রক্তক্ষরণ হয়ে থাকে। এছাড়া হৃৎপিণ্ড বড় হয়ে যাওয়া, হার্ট অ্যাটাক ও ফেইলিউর, করোনারি হার্ট ডিজিজ প্রভৃতি হতে পারে। এটি চোখেরও বিভিন্ন ক্ষতি করে থাকে। যেমন হাইপারটেনসিভ রেটিনোপ্যাথি, দৃষ্টিশক্তির ব্যাঘাত, প্যাপিলিডিমা।

জানা গেছে, বিশ্বব্যাপী অন্য সব রোগের তুলনায় হৃদরোগে মৃত্যুর হার সবচেয়ে বেশি। বর্তমানে হৃদরোগকে বিশ্বের এক নম্বর মরণব্যাধি হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। হৃদরোগে প্রতিবছর প্রায় পৌনে দুই কোটি মানুষের মৃত্যু হয়। এ রোগে মৃত্যু ২০৩০ সাল নাগাদ দুই কোটি ত্রিশ লাখ ছাড়িয়ে যেতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। বিশ্বে যে পরিমাণ মানুষ মৃত্যুবরণ করে তার শতকরা প্রায় ৩১ শতাংশ হৃদরোগের কারণে হয়। বাংলাদেশেও হৃদরোগে আক্রান্তের সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে।

এ বিষয়ে আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. আফজালুর রহমান যুগান্তরকে বলেন, উচ্চ রক্তচাপ সব সময় নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে। এজন্য ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে। শারীরিক পরিশ্রম করতে হবে। বিশেষ করে নিয়মিত হাঁটা, সাঁতার কাটা, ব্যায়াম করতে হবে। যারা ধূমপান করেন তাদের ধূমপান থেকে বিরত থাকতে হবে। অধিক পরিমাণে গরু-ছাগলের মাংস ও তৈলাক্ত খাবার পরিহার করতে হবে। শাক-সবজি-ফলমূল ইত্যাদি বেশি করে খেতে হবে। তিনি বলেন, উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখতে চিকিৎসকের পরামর্শে নিয়মিত ওষুধ খেতে হবে। কারণ মনে রাখতে হবে, ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার চেয়ে উচ্চ রক্তচাপের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া অনেক বেশি।

এদিকে বিশ্ব উচ্চ রক্তচাপ দিবস উপলক্ষ্যে খাদ্যে ট্রান্সফ্যাট নিয়ন্ত্রণে খসড়া ‘খাদ্যদ্রব্য ট্রান্স ফ্যাটি অ্যাসিড নিয়ন্ত্রণ প্রবিধানমালা-২০২১’ অতিসত্বর চূড়ান্ত এবং বাস্তবায়নের দাবি জানিয়েছে অ্যাডভোকেসি ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান প্রজ্ঞা। হৃদরোগে অকালমৃত্যু ঝুঁকি হ্রাস করতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ২০২৩ সালের মধ্যে বিশ্বের খাদ্য সরবরাহ থেকে শিল্প উৎপাদিত ট্রান্স ফ্যাট নির্মূলের লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে।

বিশ্ব উচ্চ রক্তচাপ দিবস আজ

প্রাপ্তবয়স্কদের প্রতি ৪ জনে ১ জন উচ্চ রক্তচাপে ভুগছেন

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
১৭ মে ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

আজ বিশ্ব উচ্চ রক্তচাপ দিবস। উচ্চ রক্তচাপের কারণে হৃদরোগ ও স্ট্রোকের ঝুঁকি বাড়ে। বাংলাদেশে প্রাপ্তবয়স্কদের প্রতি ৪ জনে ১ জন উচ্চ রক্তচাপ সমস্যায় ভুগছেন। উচ্চ রক্তচাপ কোনো রোগ নয়; এটি কিছু রোগের উপসর্গ মাত্র। বর্তমান বিশ্বে এটি মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়েছে। রোগটি সম্পর্কে মানুষকে সচেতন করার লক্ষ্যে ও প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের পাশাপাশি এই রোগের জটিলতা ও চিকিৎসা সম্পর্কে মানুষকে অবগত করার উদ্দেশ্যেই প্রতিবছর ১৭ মে দিবসটি পালন করা হয়।

বিশেষজ্ঞদের মতে, উচ্চ রক্তচাপের কারণে স্ট্রোক, হাইপারটেনসিভ এনসেফালোপ্যাথি, প্যারালাইসিস, মস্তিষ্কে জটিলতা, মস্তিষ্কের সাব অ্যারাকনয়েড স্পেসে রক্তক্ষরণ হয়ে থাকে। এছাড়া হৃৎপিণ্ড বড় হয়ে যাওয়া, হার্ট অ্যাটাক ও ফেইলিউর, করোনারি হার্ট ডিজিজ প্রভৃতি হতে পারে। এটি চোখেরও বিভিন্ন ক্ষতি করে থাকে। যেমন হাইপারটেনসিভ রেটিনোপ্যাথি, দৃষ্টিশক্তির ব্যাঘাত, প্যাপিলিডিমা।

জানা গেছে, বিশ্বব্যাপী অন্য সব রোগের তুলনায় হৃদরোগে মৃত্যুর হার সবচেয়ে বেশি। বর্তমানে হৃদরোগকে বিশ্বের এক নম্বর মরণব্যাধি হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। হৃদরোগে প্রতিবছর প্রায় পৌনে দুই কোটি মানুষের মৃত্যু হয়। এ রোগে মৃত্যু ২০৩০ সাল নাগাদ দুই কোটি ত্রিশ লাখ ছাড়িয়ে যেতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। বিশ্বে যে পরিমাণ মানুষ মৃত্যুবরণ করে তার শতকরা প্রায় ৩১ শতাংশ হৃদরোগের কারণে হয়। বাংলাদেশেও হৃদরোগে আক্রান্তের সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে।

এ বিষয়ে আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. আফজালুর রহমান যুগান্তরকে বলেন, উচ্চ রক্তচাপ সব সময় নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে। এজন্য ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে। শারীরিক পরিশ্রম করতে হবে। বিশেষ করে নিয়মিত হাঁটা, সাঁতার কাটা, ব্যায়াম করতে হবে। যারা ধূমপান করেন তাদের ধূমপান থেকে বিরত থাকতে হবে। অধিক পরিমাণে গরু-ছাগলের মাংস ও তৈলাক্ত খাবার পরিহার করতে হবে। শাক-সবজি-ফলমূল ইত্যাদি বেশি করে খেতে হবে। তিনি বলেন, উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখতে চিকিৎসকের পরামর্শে নিয়মিত ওষুধ খেতে হবে। কারণ মনে রাখতে হবে, ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার চেয়ে উচ্চ রক্তচাপের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া অনেক বেশি।

এদিকে বিশ্ব উচ্চ রক্তচাপ দিবস উপলক্ষ্যে খাদ্যে ট্রান্সফ্যাট নিয়ন্ত্রণে খসড়া ‘খাদ্যদ্রব্য ট্রান্স ফ্যাটি অ্যাসিড নিয়ন্ত্রণ প্রবিধানমালা-২০২১’ অতিসত্বর চূড়ান্ত এবং বাস্তবায়নের দাবি জানিয়েছে অ্যাডভোকেসি ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান প্রজ্ঞা। হৃদরোগে অকালমৃত্যু ঝুঁকি হ্রাস করতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ২০২৩ সালের মধ্যে বিশ্বের খাদ্য সরবরাহ থেকে শিল্প উৎপাদিত ট্রান্স ফ্যাট নির্মূলের লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে।

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন