চাঁদাবাজির মামলায় বরিশালে আ.লীগ নেতা গ্রেফতার, থানা ঘেরাও
jugantor
চাঁদাবাজির মামলায় বরিশালে আ.লীগ নেতা গ্রেফতার, থানা ঘেরাও

  বরিশাল ব্যুরো  

১৮ মে ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

চাঁদাবাজি মামলায় গ্রেফতার হওয়া আওয়ামী লীগ নেতাকে ছাড়িয়ে নিতে বরিশাল নগরীর বিমানবন্দর থানা ঘেরাও করে বিক্ষোভ করেছে মহানগর আওয়ামী লীগের একাংশ। সোমবার দুপুর ১২টা থেকে বেলা সোয়া ১টা পর্যন্ত থানা ঘেরাও করা হয়। এরপর আওয়ামী লীগ কার্যালয়ের সামনে আয়োজিত সমাবেশ থেকে কঠোর আন্দোলনের হুশিয়ারি দেওয়া হয়।

বিমানবন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কমলেশ চন্দ্র হালদার জানান, মহানগর আওয়ামী লীগের ২৯ নম্বর ওয়ার্ড কমিটির সদস্য রিপন বিশ্বাসকে আদালতের মাধ্যমে সোমবার জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। তিনি বলেন, মামলার তদন্ত শেষে নগরীর কাশিপুরের ভূঁইয়া বাড়ির বাসিন্দা রিপনকে রোববার রাতে গ্রেফতার করা হয়েছে। তবে থানা ঘেরাওয়ের ঘটনা অস্বীকার করে তিনি বলেন, দলীয় লোকজন এসেছিলেন। তারা কথা বলে চলে গেছেন। রিপনকে মুক্তি দেওয়া না দেওয়া আদালতের ব্যাপার।

জানা গেছে, কাশিপুর বাজারে চলাচলরত অবৈধ ইজিবাইক চালকদের কাছে একটি চক্র চাঁদা দাবি করে আসছে। কিন্তু ইজিবাইক সংগ্রাম কমিটির সদস্যরা চাঁদা দিতে অস্বীকার করায় সংগঠনের সদস্যদের ওপর হামলা এবং ইজিবাইক ভাঙচুর করা হয়। চাঁদাবাজি ও হামলার অভিযোগে ৩০ মার্চ সংগঠনটির নেতা গোলাম রসুল মামলা করেন। মামলায় রিপনকে প্রধান আসামি করা হয়। এছাড়া ছয়জনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাতনামা ১০-১৫ জনকে আসামি করা হয়।

রিপনকে গ্রেফতারের প্রতিবাদে মহানগর ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা সোমবার দুপুর ১২টার দিকে বিমানবন্দর থানা ঘেরাও করে বিক্ষোভ করেন। এরপর সদর রোডের দলীয় কার্যালয়ের সামনে তারা সমাবেশ করেন। মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাসান মাহমুদ বাবু বলেন, সরকারবিরোধী একটি চক্র আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা দিয়ে হয়রানি করছে। রিপনকে গ্রেফতার করা এরই একটি অংশমাত্র। তাকে মুক্তি দেওয়া না হলে কঠোর আন্দোলন করা হবে।

হিজলায় আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ৫০ : হিজলা উপজেলার হরিনাথপুর ইউনিয়নে রোববার মধ্যরাতে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে ৫০ জন আহত হয়েছে। ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ কার্যালয়ও ভাঙচুর করা হয়েছে। হরিনাথপুরের বর্তমান চেয়ারম্যান ও নৌকা প্রতীকের প্রার্থী (স্থগিত নির্বাচন) আলহাজ লতিফ খান এবং বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তৌফিক রহমানের (ঘোড়া) সমর্থকদের মধ্যে হরিনাথপুর বাজারে সংঘর্ষ হয়।

হিজলা থানার ওসি অসীম কুমার সিকদার জানান, ঘটনাস্থলে গিয়ে তিনি পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। তবে কোনো গ্রুপ থানায় অভিযোগ করেনি। চেয়ারম্যান লতিফ খান জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষ্যে রোববার রাতে হরিনাথপুর বাজারে দলীয় কার্যালয়ে আলোচনা সভা করেন। রাত সাড়ে ১০টার দিকে তৌফিকের নেতৃত্বে তার লোকজন দলীয় কার্যালয়ে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে।

অপরদিকে তৌফিক রহমান বলেন, ৭ নম্বর ওয়ার্ডের দুই মেম্বার প্রার্র্থী মোক্তার হোসেন ও জহির রায়হানের মধ্যে ঝগড়ার জেরে সংঘর্ষ হয়। দুই প্রার্থী আপন চাচা-ভাতিজা। এ ঘটনাকে ভিন্ন দিকে নিতে চেয়ারম্যান লতিফ তাকে (তৌফিক) জড়াচ্ছেন। একই উদ্দেশ্যে চেয়ারম্যানের লোকজন দলীয় কার্যালয় ভেঙেছে বলে তিনি দাবি করেন।

চাঁদাবাজির মামলায় বরিশালে আ.লীগ নেতা গ্রেফতার, থানা ঘেরাও

 বরিশাল ব্যুরো 
১৮ মে ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

চাঁদাবাজি মামলায় গ্রেফতার হওয়া আওয়ামী লীগ নেতাকে ছাড়িয়ে নিতে বরিশাল নগরীর বিমানবন্দর থানা ঘেরাও করে বিক্ষোভ করেছে মহানগর আওয়ামী লীগের একাংশ। সোমবার দুপুর ১২টা থেকে বেলা সোয়া ১টা পর্যন্ত থানা ঘেরাও করা হয়। এরপর আওয়ামী লীগ কার্যালয়ের সামনে আয়োজিত সমাবেশ থেকে কঠোর আন্দোলনের হুশিয়ারি দেওয়া হয়।

বিমানবন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কমলেশ চন্দ্র হালদার জানান, মহানগর আওয়ামী লীগের ২৯ নম্বর ওয়ার্ড কমিটির সদস্য রিপন বিশ্বাসকে আদালতের মাধ্যমে সোমবার জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। তিনি বলেন, মামলার তদন্ত শেষে নগরীর কাশিপুরের ভূঁইয়া বাড়ির বাসিন্দা রিপনকে রোববার রাতে গ্রেফতার করা হয়েছে। তবে থানা ঘেরাওয়ের ঘটনা অস্বীকার করে তিনি বলেন, দলীয় লোকজন এসেছিলেন। তারা কথা বলে চলে গেছেন। রিপনকে মুক্তি দেওয়া না দেওয়া আদালতের ব্যাপার।

জানা গেছে, কাশিপুর বাজারে চলাচলরত অবৈধ ইজিবাইক চালকদের কাছে একটি চক্র চাঁদা দাবি করে আসছে। কিন্তু ইজিবাইক সংগ্রাম কমিটির সদস্যরা চাঁদা দিতে অস্বীকার করায় সংগঠনের সদস্যদের ওপর হামলা এবং ইজিবাইক ভাঙচুর করা হয়। চাঁদাবাজি ও হামলার অভিযোগে ৩০ মার্চ সংগঠনটির নেতা গোলাম রসুল মামলা করেন। মামলায় রিপনকে প্রধান আসামি করা হয়। এছাড়া ছয়জনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাতনামা ১০-১৫ জনকে আসামি করা হয়।

রিপনকে গ্রেফতারের প্রতিবাদে মহানগর ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা সোমবার দুপুর ১২টার দিকে বিমানবন্দর থানা ঘেরাও করে বিক্ষোভ করেন। এরপর সদর রোডের দলীয় কার্যালয়ের সামনে তারা সমাবেশ করেন। মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাসান মাহমুদ বাবু বলেন, সরকারবিরোধী একটি চক্র আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা দিয়ে হয়রানি করছে। রিপনকে গ্রেফতার করা এরই একটি অংশমাত্র। তাকে মুক্তি দেওয়া না হলে কঠোর আন্দোলন করা হবে।

হিজলায় আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ৫০ : হিজলা উপজেলার হরিনাথপুর ইউনিয়নে রোববার মধ্যরাতে আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে ৫০ জন আহত হয়েছে। ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ কার্যালয়ও ভাঙচুর করা হয়েছে। হরিনাথপুরের বর্তমান চেয়ারম্যান ও নৌকা প্রতীকের প্রার্থী (স্থগিত নির্বাচন) আলহাজ লতিফ খান এবং বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তৌফিক রহমানের (ঘোড়া) সমর্থকদের মধ্যে হরিনাথপুর বাজারে সংঘর্ষ হয়।

হিজলা থানার ওসি অসীম কুমার সিকদার জানান, ঘটনাস্থলে গিয়ে তিনি পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। তবে কোনো গ্রুপ থানায় অভিযোগ করেনি। চেয়ারম্যান লতিফ খান জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষ্যে রোববার রাতে হরিনাথপুর বাজারে দলীয় কার্যালয়ে আলোচনা সভা করেন। রাত সাড়ে ১০টার দিকে তৌফিকের নেতৃত্বে তার লোকজন দলীয় কার্যালয়ে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে।

অপরদিকে তৌফিক রহমান বলেন, ৭ নম্বর ওয়ার্ডের দুই মেম্বার প্রার্র্থী মোক্তার হোসেন ও জহির রায়হানের মধ্যে ঝগড়ার জেরে সংঘর্ষ হয়। দুই প্রার্থী আপন চাচা-ভাতিজা। এ ঘটনাকে ভিন্ন দিকে নিতে চেয়ারম্যান লতিফ তাকে (তৌফিক) জড়াচ্ছেন। একই উদ্দেশ্যে চেয়ারম্যানের লোকজন দলীয় কার্যালয় ভেঙেছে বলে তিনি দাবি করেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন