হাইকোর্ট বললেন দুঃখজনক
jugantor
১২ বছরের শিশুর ঘাড়ে হত্যার দায়
হাইকোর্ট বললেন দুঃখজনক

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

২২ জুন ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বগুড়ার সারিয়াকান্দিতে ১২ বছরের এক শিশুর ঘাড়ে তার ছোট ভাই হত্যার দায় চাপানোর ঘটনায় উষ্মা প্রকাশ করেছেন হাইকোর্ট। আদালত বলেছেন, এমন ঘটনা যদি সত্যি হয়ে থাকে, এটা হবে দেশের জন্য অত্যন্ত দুঃখজনক। সোমবার ওই মামলার নথি তলব চেয়ে আবেদনের শুনানিতে বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেন ও বিচারপতি মো. আতাউর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ মন্তব্য করেন।

আদালত ২৯ জুন এই আবেদনের পরবর্তী শুনানি এবং আদেশের জন্য দিন ধার্য করেছেন। ওইদিন অ্যাটর্নি জেনারেল এএম আমিন উদ্দিনকে শুনানিতে থাকতে বলা হয়েছে। ‘পুলিশের ভুলে ১২ বছরের শিশুর ঘাড়ে ছোট ভাই হত্যার দায়’ শিরোনামে একটি গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হয়। ওই সংবাদ যুক্ত করে হাইকোর্টে আবেদন করেন সুপ্রিমকোর্টের আইনজীবী মো. শিশির মনির।

শুনানিতে আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ড. মো. বশির উল্লাহ। শুনানিতে আইনজীবী শিশির মনির বলেন, একজন বাবা তার এক সন্তানকে হারালেন, ওই সন্তান হত্যার অভিযোগে বড় ছেলে, যার বয়স ১২ বছর, সে হয় আসামি। উলটো বাড়িঘরও ছাড়তে হয়েছে সন্তানের বাবা-মাকে। এটিকে একটি অমানবিক ঘটনা বলেও উল্লেখ করেন আইনজীবী। আইনজীবী বলেন, ১২ বছরের একটি শিশুকে নির্যাতন করে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি নেওয়া হলো। শিশু আদালতের সামনে এলো। অথচ আইন থাকার পরও কোনো পদক্ষেপ নেই। এ কারণে বিষয়টি দেখভালের জন্য আমরা আপনাদের কাছে এসেছি।

১২ বছরের শিশুর ঘাড়ে হত্যার দায়

হাইকোর্ট বললেন দুঃখজনক

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
২২ জুন ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বগুড়ার সারিয়াকান্দিতে ১২ বছরের এক শিশুর ঘাড়ে তার ছোট ভাই হত্যার দায় চাপানোর ঘটনায় উষ্মা প্রকাশ করেছেন হাইকোর্ট। আদালত বলেছেন, এমন ঘটনা যদি সত্যি হয়ে থাকে, এটা হবে দেশের জন্য অত্যন্ত দুঃখজনক। সোমবার ওই মামলার নথি তলব চেয়ে আবেদনের শুনানিতে বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেন ও বিচারপতি মো. আতাউর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ মন্তব্য করেন।

আদালত ২৯ জুন এই আবেদনের পরবর্তী শুনানি এবং আদেশের জন্য দিন ধার্য করেছেন। ওইদিন অ্যাটর্নি জেনারেল এএম আমিন উদ্দিনকে শুনানিতে থাকতে বলা হয়েছে। ‘পুলিশের ভুলে ১২ বছরের শিশুর ঘাড়ে ছোট ভাই হত্যার দায়’ শিরোনামে একটি গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হয়। ওই সংবাদ যুক্ত করে হাইকোর্টে আবেদন করেন সুপ্রিমকোর্টের আইনজীবী মো. শিশির মনির।

শুনানিতে আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ড. মো. বশির উল্লাহ। শুনানিতে আইনজীবী শিশির মনির বলেন, একজন বাবা তার এক সন্তানকে হারালেন, ওই সন্তান হত্যার অভিযোগে বড় ছেলে, যার বয়স ১২ বছর, সে হয় আসামি। উলটো বাড়িঘরও ছাড়তে হয়েছে সন্তানের বাবা-মাকে। এটিকে একটি অমানবিক ঘটনা বলেও উল্লেখ করেন আইনজীবী। আইনজীবী বলেন, ১২ বছরের একটি শিশুকে নির্যাতন করে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি নেওয়া হলো। শিশু আদালতের সামনে এলো। অথচ আইন থাকার পরও কোনো পদক্ষেপ নেই। এ কারণে বিষয়টি দেখভালের জন্য আমরা আপনাদের কাছে এসেছি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন