কোলে চড়ে নববধূর পানি পার
jugantor
ছবি ভাইরাল
কোলে চড়ে নববধূর পানি পার

  রামগতি (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধি  

২৭ জুলাই ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

নববধূকে নিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন বর। পথে দেখেন বাড়ি যাওয়ার রাস্তা জোয়ারে ভেঙে গেছে। এমন পরিস্থিতিতে বিপাকে পড়েন বরসহ স্বজনরা। তাৎক্ষণিক নৌকার ব্যবস্থা করা যায়নি। বিকল্প উপায় না থাকায় শ্বশুর নববধূকে কোলে তুলে নিয়ে কোমরসমান পানির মধ্য দিয়ে এগোতে থাকেন। একপর্যায়ে বর নিজে কনেকে কোলে তুলে নেন। এভাবেই নববধূ শ্বশুরবাড়ি পৌঁছান। নববধূ নিয়ে পার হওয়ার এই দৃশ্য দেখতে উৎসুক মানুষ ভিড় করেন। মোবাইল ফোনে তোলেন ছবি। লক্ষ্মীপুরের কমলনগ চরমার্টিন এলাকায় এমন ঘটনা ঘটে। কোলে চড়ে নববধূর ভাঙা রাস্তা পাড়ি দেওয়ার ছবি ইতোমধ্যে ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে।

জানা যায়, শুক্রবার দুপুরে চরমার্টিন ইউনিয়নের মো. হারুনের ছেলে মো. রমিজের সঙ্গে পার্শ্ববর্তী কালকিনি ইউনিয়নের আবদুল মতিনের মেয়ে জান্নাত বেগমের বিয়ে হয়। বিকালে অটোরিকশায় নতুন বউ নিয়ে বাড়ি ফেরার পথে দেখেন রাস্তা নেই। জোয়ারের তোড়ে ভেঙে গেছে। ভাঙা অংশে কোমরসমান পানি। এমন পরিস্থিতিতে শ্বশুর ও স্বামীর কোলে চড়ে নববধূকে শ্বশুরবাড়ি যেতে হয়।

বরের বাবা মো. হারুন জানান, জোয়ারের তোড়ে রাস্তা ভেঙে যাওয়ায় নতুন বউ নিয়ে বাড়ি ফিরতে দুর্ভোগে পড়তে হয়েছে। স্থানীয় চরমার্টিন ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য নুরুল ইসলাম জানান, মেঘনা নদীর ভাঙনে বেড়িবাঁধ বিলীন হয়ে গেছে। যে কারণে জোয়ার এলেই ডুবে যায় বিস্তীর্ণ জনপদ। পূর্ণিমার প্রভাবে নদীতে অস্বাভাবিক জোয়ার রয়েছে। কয়েক দফা জোয়ারে চরমার্টিন এলাকার রাস্তাঘাটের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।

ছবি ভাইরাল

কোলে চড়ে নববধূর পানি পার

 রামগতি (লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধি 
২৭ জুলাই ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

নববধূকে নিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন বর। পথে দেখেন বাড়ি যাওয়ার রাস্তা জোয়ারে ভেঙে গেছে। এমন পরিস্থিতিতে বিপাকে পড়েন বরসহ স্বজনরা। তাৎক্ষণিক নৌকার ব্যবস্থা করা যায়নি। বিকল্প উপায় না থাকায় শ্বশুর নববধূকে কোলে তুলে নিয়ে কোমরসমান পানির মধ্য দিয়ে এগোতে থাকেন। একপর্যায়ে বর নিজে কনেকে কোলে তুলে নেন। এভাবেই নববধূ শ্বশুরবাড়ি পৌঁছান। নববধূ নিয়ে পার হওয়ার এই দৃশ্য দেখতে উৎসুক মানুষ ভিড় করেন। মোবাইল ফোনে তোলেন ছবি। লক্ষ্মীপুরের কমলনগ চরমার্টিন এলাকায় এমন ঘটনা ঘটে। কোলে চড়ে নববধূর ভাঙা রাস্তা পাড়ি দেওয়ার ছবি ইতোমধ্যে ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে।

জানা যায়, শুক্রবার দুপুরে চরমার্টিন ইউনিয়নের মো. হারুনের ছেলে মো. রমিজের সঙ্গে পার্শ্ববর্তী কালকিনি ইউনিয়নের আবদুল মতিনের মেয়ে জান্নাত বেগমের বিয়ে হয়। বিকালে অটোরিকশায় নতুন বউ নিয়ে বাড়ি ফেরার পথে দেখেন রাস্তা নেই। জোয়ারের তোড়ে ভেঙে গেছে। ভাঙা অংশে কোমরসমান পানি। এমন পরিস্থিতিতে শ্বশুর ও স্বামীর কোলে চড়ে নববধূকে শ্বশুরবাড়ি যেতে হয়।

বরের বাবা মো. হারুন জানান, জোয়ারের তোড়ে রাস্তা ভেঙে যাওয়ায় নতুন বউ নিয়ে বাড়ি ফিরতে দুর্ভোগে পড়তে হয়েছে। স্থানীয় চরমার্টিন ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য নুরুল ইসলাম জানান, মেঘনা নদীর ভাঙনে বেড়িবাঁধ বিলীন হয়ে গেছে। যে কারণে জোয়ার এলেই ডুবে যায় বিস্তীর্ণ জনপদ। পূর্ণিমার প্রভাবে নদীতে অস্বাভাবিক জোয়ার রয়েছে। কয়েক দফা জোয়ারে চরমার্টিন এলাকার রাস্তাঘাটের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন