সুখ-দুঃখে বাংলাদেশের পাশে থাকবে ভারত

-হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা

  সাংস্কৃতিক রিপোর্টার ০৪ মে ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

‘মুক্তিযোদ্ধা বৃত্তি’ প্রদান অনুষ্ঠানে বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতের হাইকমিশনার হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা
‘মুক্তিযোদ্ধা বৃত্তি’ প্রদান অনুষ্ঠানে বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতের হাইকমিশনার হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা

বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতের হাইকমিশনার হর্ষ বর্ধন শ্রিংলা বলেছেন, বাংলাদেশের সুসময় ও দুঃসময়ে প্রতিটি মুহূর্তে ভারত পাশে থাকবে। বাংলাদেশ ও ভারত একসঙ্গে মুক্তিযুদ্ধ করে বিজয় অর্জনের গৌরবের ঐতিহাসিক উত্তরাধিকারী। এটি আধুনিক ইতিহাসে একটি অনন্য উদাহরণ, যেখানে দুই দেশের সেনাবাহিনী সমন্বিতভাবে লড়াই করেছে এবং একই শত্রুকে পরাজিত করেছে।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ ভারত সম্পর্কের বন্ধন সময়ের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছে। আমাদের শহীদদের রক্ত এবং আত্মদানের মাধ্যমে এ শাশ্বত বন্ধন চিরস্থায়ী হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকালে জাতীয় জাদুঘরের প্রধান মিলনায়তনে মুক্তিযোদ্ধাদের সন্তান ও পরিবারের সদস্যদের মাঝে ‘মুক্তিযোদ্ধা বৃত্তি’ প্রদান অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

এদিন ঢাকা বিভাগের ৩০১ জন শিক্ষার্থীর হাতে বৃত্তির চেক তুলে দেয়ার জন্য অনুষ্ঠানের আয়োজন করে ঢাকাস্থ ভারতীয় হাইকমিশন। পরবর্তী কয়েক সপ্তাহে রংপুর, রাজশাহী, সিলেট, চট্টগ্রাম, কুমিল্লা, বরিশাল, যশোর এবং ময়মনসিংহ থেকে নির্বাচিত শিক্ষার্থীদের হাতে এ চেক প্রদান করা হবে।

ভারতীয় হাইকমিশনার আরও বলেন, মুক্তিযোদ্ধাদের কল্যাণমূলক এ উদ্যোগে আমাদের চেষ্টা ছিল বাংলাদেশের সব জেলায় মুক্তিযোদ্ধাদের কাছে পৌঁছানো। মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সক্রিয় সমর্থন ছাড়া প্রান্তিক এলাকায় মুক্তিযোদ্ধাদের কাছে পৌঁছানো সম্ভব ছিল না।

তিনি জানান, বাংলাদেশের মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানে ভারত সরকারের চালু করা তাদের পরিবারের ২ হাজার ২১ শিক্ষার্থীকে এ বছর মুক্তিযোদ্ধা বৃত্তি প্রদান করা হবে। এ বছর পুরাতন বৃত্তি প্রকল্পের আওতায় স্নাতক পর্যায়ের ৪শ’ জন আর নতুন প্রকল্পের আওতায় ১ হাজার ৬২১ জনকে এ বৃত্তি প্রদান করা হবে।

তিনি জানান, ২০০৬ সালে ভারত মুক্তিযোদ্ধাদের উত্তরাধিকারীদের জন্য এ বৃত্তি চালু করে। এর আওতায় উচ্চমাধ্যমিক ও স্নাতক পর্যায়ে এ পর্যন্ত ১০ হাজার ৯৩৬ জন শিক্ষার্থীকে এ বৃত্তি দেয়া হয়েছে। এতে খরচ হয়েছে ১৬ কোটি টাকা। আর নতুন প্রকল্পের আওতায় আগামী পাঁচ বছরে ১০ হাজার শিক্ষার্থীকে ৩ কোটি টাকা ব্যয়ে এ শিক্ষা বৃত্তি প্রদান করা হবে।

তিনি আরও জানান, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ঘোষণার ধারাবাহিকতায় ভারতীয় সামরিক হাসপাতালে ১০০ জন মুক্তিযোদ্ধার বিনামূল্যে চিকিৎসা প্রদান, সব মুক্তিযোদ্ধার পাঁচ বছরের মাল্টিপল অ্যান্ট্রি ভিসা এবং নতুন মুক্তিযোদ্ধা বৃত্তি স্কিম গ্রহণ করা হয়েছে।

এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, বিশেষ অতিথি ছিলেন খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম, সম্মানিত অতিথি ছিলেন মুক্তিয“দ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির সভাপতি ক্যাপ্টেন (অব) এবি তাজুল ইসলাম।

pran
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
bestelectronics

mans-world

 

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter