হুমকি দিয়ে নির্বাচন বন্ধ করার ক্ষমতা বিএনপির নেই

হানিফ

  যুগান্তর রিপোর্ট ০৪ মে ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

হুমকি দিয়ে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন বন্ধ করার ক্ষমতা, শক্তি কোনোটাই বিএনপির নেই বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ। বিএনপি নেতাদের উদ্দেশে তিনি বলেন, দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন বানচালের চেষ্টা করেছিলেন, জনগণ সাড়া দেয়নি। আগামী নির্বাচন বন্ধের চেষ্টা করলে সাধারণ মানুষ দাঁতভাঙা জবাব দেবে। নির্ধারিত সময়েই নির্বাচন হবে। অংশগ্রহণ করা না করা আপনাদের নিজস্ব ব্যাপার। বৃহস্পতিবার বিকালে বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে মে দিবস উপলক্ষে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ শ্রমিক লীগের আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন। বিএনপি নেতাদের বক্তব্যের সমালোচনা করে হানিফ বলেন, আমার একটি কথায় বিএনপি নেতারা গোস্সা হয়েছেন। এখানে গোস্সা হওয়ার কি আছে? দেশের যে উন্নয়ন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা করেছেন তাতে বাংলার মানুষ বারবার ভোট দিয়ে তাকে ক্ষমতায় আনবে। তিনি বলেন, দেশের উন্নয়ন এগিয়ে নিতে কে আছে শেখ হাসিনা ছাড়া? শেখ হাসিনার বিকল্প নেই। এটাই বাস্তবতা। আওয়ামী লীগের এই প্রভাবশালী নেতা আরও বলেন, বিশ্বের নানা জরিপে উঠে এসেছে শেখ হাসিনা সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয় নেতা, আওয়ামী লীগ জনপ্রিয় দল। তাহলে বাংলার জনগণ শেখ হাসিনাকে ভোট না দিয়ে কি দুর্নীতিবাজ ও এতিমের টাকা আত্মসাৎকারী নেত্রীকে ভোট দেবে?

দুর্নীতিবাজ তারেক রহমানকে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান করার সমালোচনার জবাবে বিএনপি নেতারা বলেছেন, এটা তাদের দলীয় বিষয়। কে কি বলল তাতে কিছু যায় আসে না। এ বিষয়ে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক বলেন, অন্যের কিছু যায় আসে না ঠিক, কিন্তু আপনারা কোন নৈতিকতার বলে জনগণের কাছে ভোট চাইতে যাবেন? কোন লজ্জায় এই নেতৃত্ব নিয়ে বাংলার জনগণের কাছে আসতে চান? এতিমের টাকা আত্মসাৎকারী নেত্রী ও দুর্নীতিবাজ নেতাকে বাংলার মানুষ আর কখনও ক্ষমতায় দেখতে চায় না। সে কারণে বিএনপি থেকে মানুষ মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে। তাহলে শেখ হাসিনা ছাড়া আর বাকি থাকল কি? বিএনপির নির্বাচনে অংশ নেয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, নির্বাচনে অংশ নেয়া না নেয়া তাদের বিষয়। তবে নির্বাচনের নামে কোনো কয়েদিকে মুক্ত করার আন্দোলনের সুযোগ নেই। মুক্তির বিষয়টি আদালতের, আইনিভাবে সেটা মোকাবেলা করতে হবে।

খুলনা ও গাজীপুর সিটি নির্বাচন নিয়ে অতীতের মতো বিএনপি মিথ্যাচার করছে অভিযোগ করে হানিফ বলেন, তারা বলছে, ‘পুলিশ তাদের নেতাকর্মীদের ধরপাকড় করছে।’ যাদের বিরুদ্ধে আগে থেকে অভিযোগ আছে, যারা আসামি, তাদের নির্বাচনে কাজ করার সুযোগ নেই। আপনারা নির্বাচনের দোহাই দিয়ে দাগি আসামিদের আবারও নির্বাচনী মাঠে প্রতিষ্ঠিত করতে চাইলে সেটা করতে দেয়া হবে না।

তিনি বলেন, আমাদের কাছে খবর আছে, বিএনপি বরিশালের কিছু দাগি আসামি খুলনায় নিয়ে এসেছে নির্বাচনী কাজের জন্য। গাজীপুরেও কিছু আসামিকে নির্বাচনী কাজে ব্যবহারের জন্য আনা হয়েছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে বলব, এদের দেখামাত্র ব্যবস্থা নিতে হবে। কোনো আসামির নির্বাচনী কাজে অংশ নেয়ার সুযোগ নেই। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে আওয়ামী লীগের আরেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আবদুর রহমান বলেন, যারা নির্বাচনের জন্য বিএনপিকে অনিবার্য করে তুলতে চায় তারাই ষড়যন্ত্র করছে। তিনি বলেন, দেশে আরও ৪১টি নিবন্ধিত রাজনৈতিক দল আছে। তাদের বিষয়ে আপনারা বলছেন না; বিএনপিই কেন অপরিহার্য?

আবদুর রহমান বলেন, বিএনপি নির্বাচনে এলে অভিনন্দন জানাব। সমান সুযোগ তারা ভোগ করবে। তবে আন্দোলনের নামে সন্ত্রাসী কায়দায় মানুষের ভোগান্তি বাড়োনোর চেষ্টা হতে পারবে না। ঢাকা মহানগর দক্ষিণ শ্রমিক লীগের সভাপতি শামসুল আলম বকুলের সভাপতিত্বে আলোচনায় অংশ নেন আওয়ামী লীগের শ্রমবিষয়ক সম্পাদক হাবিবুর রহমান সিরাজ, জাতীয় শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম প্রমুখ।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
×