রাবিতে তিন দফা নিবন্ধনের পরও সমাবর্তন হয়নি

  রাবি প্রতিনিধি ০৫ মে ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

রাবিতে তিন দফা নিবন্ধনের পরও সমাবর্তন হয়নি

তিন দফায় গ্রাজুয়েটদের নিবন্ধন করিয়েও দশম সমাবর্তন আয়োজন করতে পারেনি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) কর্তৃপক্ষ।

দুই দফা তারিখ পিছিয়ে সবশেষে ২৪ মার্চ সমাবর্তন অনুষ্ঠান করার কথা থাকলেও তা ভেস্তে গেছে শিক্ষামন্ত্রীর ‘চোখের অপারেশন’র কারণে।

এতে ক্ষুব্ধ গ্রাজুয়েটরা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের ব্যর্থতাকে দায়ী করেছেন। আদৌ সমাবর্তন হবে কিনা সে ব্যাপারে সন্দিহান তারা। তাদের অভিযোগ, তিন দফা নিবন্ধন আর তারিখ ঘোষণা করেও সমাবর্তন অনুষ্ঠানের তারিখ পিছিয়ে ‘প্রহসন’ করা হচ্ছে।

গ্রাজুয়েটদের দাবি, বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাদেশ মেনে সমাবর্তনে রাষ্ট্রপতিকে সভাপতি হিসেবে চায় তারা। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন চাইলে শিগগির সমাবর্তন অনুষ্ঠান করা সম্ভব। তবে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ বলছে, সমাবর্তনের ব্যাপারে সরকারের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত বলে গণ্য হবে।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্র জানায়, ২০১৬ সালের ডিসেম্বর এবং পরে ২০১৭ সালের জানুয়ারিতে সমাবর্তনের

তারিখ ঘোষণা করেও তা পরিবর্তন করা হয়। পরে চলতি বছরের ২৪ মার্চ অনুষ্ঠানের তারিখ নির্ধারিত হয়। এতে ২০১১ থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত সময়ে স্নাতকোত্তর, এমফিল, পিএইচডি, এমবিবিএস, বিডিএস ডিগ্রি সম্পন্নকারী মোট ৬ হাজার ৯ জন নিবন্ধন করেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাদেশ অনুযায়ী সমাবর্তনে সভাপতিত্ব করবেন চ্যান্সেলর। তার অনুপস্থিতিতে সভাপতিত্ব করবেন ভিসি। কিন্তু সমাবর্তনে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ সভাপতিত্ব করবেন বলে ঠিক করা হয়।

শিক্ষামন্ত্রীর সভাপতিত্ব করা নিয়ে সমালোচনা করেন গ্রাজুয়েটরা। একটু দেরিতে হলেও তারা রাষ্ট্রপতিকেই চান। এরপর হঠাৎই মন্ত্রী সমাবর্তনে থাকবেন না জানালে ১৩ মার্চ প্রশাসন সমাবর্তন স্থগিত করে।

শান্ত সিয়াম নামে একজন গ্রাজুয়েট ফেসবুকে লিখেছেন- ‘সত্যি, চরম বিরক্ত এই নতুন প্রহসন দেখে! রেজিস্ট্রেশন ফি নিয়ে এক প্রহসন, তারিখ নিয়ে আরেক প্রহসন শুরু হল। না জানি আরও কত ভেল্কিবাজি অপেক্ষা করছে।’

নিবন্ধিত গ্রাজুয়েটরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রশাসনের সমালোচনা করে ‘রেজিস্ট্রেশনের টাকা ফেরত চাই’ বলে কমেন্ট করছেন। তবে সবশেষ নানা বিতর্কের মুখে সমার্বতন স্থগিত হওয়ায় মিশ্র প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন গ্রাজুয়েটরা।

একপক্ষের দাবি অনেকেই প্রস্তুতি নিয়েছিলেন, অনুষ্ঠান হলেই ভাল হতো। পরে আবার কবে হবে নাকি হবেই না তা নিয়ে সন্দেহ আছে। আরেক পক্ষ বলছে, সমাবর্তনের তারিখ স্থগিত হওয়ায় রাষ্ট্রপতির হাত থেকে সনদ পাওয়ার একটি সুযোগ তৈরি হল।

রাবি প্রোভিসি অধ্যাপক আনন্দ কুমার সাহা বলেন, সমাবর্তনের ব্যাপারে আমরা সরকারকে জানিয়েছি। সরকার এ ব্যাপারে এখনও সিদ্ধান্ত দেয়নি। তার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী তারিখ ঘোষণা করা হবে।

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter