আখাউড়ায় নৌকার ধাক্কায় ভেঙে গেল রাস্তাহীন সেই সেতু
jugantor
আখাউড়ায় নৌকার ধাক্কায় ভেঙে গেল রাস্তাহীন সেই সেতু

  ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও আখাউড়া প্রতিনিধি  

০৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া উপজেলার ধরখার ইউনিয়নে বনগজ-কৃষ্ণনগর খালের ওপর নির্মিত রাস্তাহীন সেই সেতুটি নৌকার ধাক্কায় ভেঙে পড়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার সকাল ৯টার দিকে। ১৫ ফুট উঁচু সেতুটি গত ২২ বছর ঠাই দাঁড়িয়ে ছিল। এতে কেউ কখনও ওঠানামা করেনি।

জানা গেছে, ইট বোঝাই নৌকাটি সকালে উপজেলার ঘোলখারের উদ্দেশ্যে সেতুর নিচ দিয়ে যাচ্ছিল। এ সময় প্রবল স্রোত থাকায় মাঝি নৌকার নিয়ন্ত্রণ হারান। ফলে পিলারে ধাক্কা লাগলে সেতুটি ভেঙে নৌকার ওপরে পড়ে। এতে নৌকায় থাকা শ্রমিক আব্দুল খালেক (৪৫) ও হবি (৪২) আহত হন।

উপজেলা প্রকৌশল অফিস সূত্রে জানা যায়, ১৯৯৯ সালে এলজিইডির অধীনে উপজেলা পরিষদের রাজস্ব তহবিলের অর্থে ১২০ ফুট দৈর্ঘ্য ও ৮ ফুট প্রস্থের সেতুটি নির্মাণ করা হয়।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রোমানা আক্তার জানান, ভেঙে যাওয়ার সংবাদ পেয়ে সেখানে উপসহকারী প্রকৌশলী জহুরুল ইসলামকে পাঠানো হয়েছে। তিনি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে প্রতিবেদন দিলে সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আখাউড়ায় নৌকার ধাক্কায় ভেঙে গেল রাস্তাহীন সেই সেতু

 ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও আখাউড়া প্রতিনিধি 
০৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া উপজেলার ধরখার ইউনিয়নে বনগজ-কৃষ্ণনগর খালের ওপর নির্মিত রাস্তাহীন সেই সেতুটি নৌকার ধাক্কায় ভেঙে পড়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার সকাল ৯টার দিকে। ১৫ ফুট উঁচু সেতুটি গত ২২ বছর ঠাই দাঁড়িয়ে ছিল। এতে কেউ কখনও ওঠানামা করেনি।

জানা গেছে, ইট বোঝাই নৌকাটি সকালে উপজেলার ঘোলখারের উদ্দেশ্যে সেতুর নিচ দিয়ে যাচ্ছিল। এ সময় প্রবল স্রোত থাকায় মাঝি নৌকার নিয়ন্ত্রণ হারান। ফলে পিলারে ধাক্কা লাগলে সেতুটি ভেঙে নৌকার ওপরে পড়ে। এতে নৌকায় থাকা শ্রমিক আব্দুল খালেক (৪৫) ও হবি (৪২) আহত হন।

উপজেলা প্রকৌশল অফিস সূত্রে জানা যায়, ১৯৯৯ সালে এলজিইডির অধীনে উপজেলা পরিষদের রাজস্ব তহবিলের অর্থে ১২০ ফুট দৈর্ঘ্য ও ৮ ফুট প্রস্থের সেতুটি নির্মাণ করা হয়।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রোমানা আক্তার জানান, ভেঙে যাওয়ার সংবাদ পেয়ে সেখানে উপসহকারী প্রকৌশলী জহুরুল ইসলামকে পাঠানো হয়েছে। তিনি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে প্রতিবেদন দিলে সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন