নগরকান্দায় বৃদ্ধাকে মৃত দেখিয়ে ভাতা বাতিল
jugantor
নগরকান্দায় বৃদ্ধাকে মৃত দেখিয়ে ভাতা বাতিল
জয়পুরহাটে জীবিত নারী এনআইডিতে মৃত

  নগরকান্দা (ফরিদপুর) ও জয়পুরহাট প্রতিনিধি  

১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ফরিদপুরের নগরকান্দায় এক বিধবা বৃদ্ধা ভিক্ষুককে মৃত দেখিয়ে তার বয়স্কভাতা বাতিলের অভিযোগ পাওয়া গেছে। জয়পুরহাটে আরেক জীবিত নারীকে জাতীয় পরিচয়পত্রের (এনআইডি) তথ্যে মৃত দেখানো হয়েছে। ফলে তিনি ভোট দেওয়া থেকে শুরু করে অনেক নাগরিক সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন।

নগরকান্দা পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডের জগদিয়া বালিয়া গ্রামের মৃত সোনা মিয়ার স্ত্রী ভুক্তভোগী নূরজাহান বেগম বলেন, কিছু দিন আগে হঠাৎ ভাতা বন্ধ করে দেওয়া হয়। শুনেছি আমাকে মৃত দেখিয়ে ভাতা বন্ধ করা হয়েছে। আমার কোনো জায়গা-জমি নেই। গ্রামের পাকা রাস্তার পাশে সরকারি জায়গায় পাটকাঠি দিয়ে কুঁড়েঘর তৈরি করে থাকি। ভিক্ষা করে যা পাই, তা দিয়ে কোনো রকমে বেঁচে আছি। তিনি বলেন, বয়স্কভাতার টাকা দিয়ে ওষুধ কিনে খেতাম। এখন টাকাও পাই না, ওষুধও কিনতে পারি না। বিধবা নূরজাহান বেগমের জাতীয় পরিচয়পত্র (নং ২৯২৬২০৯৮০৬৪২৩) অনুসারে বয়স প্রায় ৮৪ বছর।

এ ব্যাপারে নগরকান্দা পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মিকু মিয়া বলেন, এ ধরনের ঘটনা খুবই দুঃখজনক। এ ব্যাপারে তদন্ত করে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া উচিত। উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ বলেন, নূরজাহান বেগমের নাম বয়স্কভাতা থেকে কেটে দেওয়া হয়েছে। তবে কী কারণে কাটা হয়েছে তা খতিয়ে দেখা হবে।

জয়পুরহাটে এনআইডিতে মৃত : রেহেনা খাতুন জয়পুরহাট সদর উপজেলার বম্বু ইউনিয়নের হানাইল-উত্তরপাড়া গ্রামের বাসিন্দা। বয়স ৪৩ বছর। সম্প্রতি করোনার টিকা নিবন্ধন করার সময় বারবার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন তিনি। এর আগে ভোট দিতে গিয়ে ভোটার লিস্টেও নাম খুঁজে পাননি তিনি। পরে নির্বাচন অফিসে খোঁজ নিয়ে জেনেছেন, জাতীয় পরিচয়পত্রের (নং ৩৮১৪৭১৯২১৯২১০) তথ্যে তাকে মৃত দেখানো হয়েছে।

এ ব্যাপরে জয়পুরহাট সদর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা জেবুন্নেছা শাম্মী বলেন, বিষয়টি খুবই দুঃখজনক। ভোটার তালিকা হালনাগাদের সময় তথ্য সংগ্রহকারী অথবা ডাটা এন্ট্রির সময় কম্পিউটার অপারেটরের ভুলে সমস্যাটি তৈরি হতে পারে। রেহেনা খাতুন লিখিত আবেদন করলে এ বিষয়ে দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

নগরকান্দায় বৃদ্ধাকে মৃত দেখিয়ে ভাতা বাতিল

জয়পুরহাটে জীবিত নারী এনআইডিতে মৃত
 নগরকান্দা (ফরিদপুর) ও জয়পুরহাট প্রতিনিধি 
১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ফরিদপুরের নগরকান্দায় এক বিধবা বৃদ্ধা ভিক্ষুককে মৃত দেখিয়ে তার বয়স্কভাতা বাতিলের অভিযোগ পাওয়া গেছে। জয়পুরহাটে আরেক জীবিত নারীকে জাতীয় পরিচয়পত্রের (এনআইডি) তথ্যে মৃত দেখানো হয়েছে। ফলে তিনি ভোট দেওয়া থেকে শুরু করে অনেক নাগরিক সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন।

নগরকান্দা পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডের জগদিয়া বালিয়া গ্রামের মৃত সোনা মিয়ার স্ত্রী ভুক্তভোগী নূরজাহান বেগম বলেন, কিছু দিন আগে হঠাৎ ভাতা বন্ধ করে দেওয়া হয়। শুনেছি আমাকে মৃত দেখিয়ে ভাতা বন্ধ করা হয়েছে। আমার কোনো জায়গা-জমি নেই। গ্রামের পাকা রাস্তার পাশে সরকারি জায়গায় পাটকাঠি দিয়ে কুঁড়েঘর তৈরি করে থাকি। ভিক্ষা করে যা পাই, তা দিয়ে কোনো রকমে বেঁচে আছি। তিনি বলেন, বয়স্কভাতার টাকা দিয়ে ওষুধ কিনে খেতাম। এখন টাকাও পাই না, ওষুধও কিনতে পারি না। বিধবা নূরজাহান বেগমের জাতীয় পরিচয়পত্র (নং ২৯২৬২০৯৮০৬৪২৩) অনুসারে বয়স প্রায় ৮৪ বছর।

এ ব্যাপারে নগরকান্দা পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মিকু মিয়া বলেন, এ ধরনের ঘটনা খুবই দুঃখজনক। এ ব্যাপারে তদন্ত করে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া উচিত। উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা আবুল কালাম আজাদ বলেন, নূরজাহান বেগমের নাম বয়স্কভাতা থেকে কেটে দেওয়া হয়েছে। তবে কী কারণে কাটা হয়েছে তা খতিয়ে দেখা হবে।

জয়পুরহাটে এনআইডিতে মৃত : রেহেনা খাতুন জয়পুরহাট সদর উপজেলার বম্বু ইউনিয়নের হানাইল-উত্তরপাড়া গ্রামের বাসিন্দা। বয়স ৪৩ বছর। সম্প্রতি করোনার টিকা নিবন্ধন করার সময় বারবার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন তিনি। এর আগে ভোট দিতে গিয়ে ভোটার লিস্টেও নাম খুঁজে পাননি তিনি। পরে নির্বাচন অফিসে খোঁজ নিয়ে জেনেছেন, জাতীয় পরিচয়পত্রের (নং ৩৮১৪৭১৯২১৯২১০) তথ্যে তাকে মৃত দেখানো হয়েছে।

এ ব্যাপরে জয়পুরহাট সদর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা জেবুন্নেছা শাম্মী বলেন, বিষয়টি খুবই দুঃখজনক। ভোটার তালিকা হালনাগাদের সময় তথ্য সংগ্রহকারী অথবা ডাটা এন্ট্রির সময় কম্পিউটার অপারেটরের ভুলে সমস্যাটি তৈরি হতে পারে। রেহেনা খাতুন লিখিত আবেদন করলে এ বিষয়ে দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন