লালপুরে শতবর্ষের আজিমনগর স্টেশন বন্ধ ঘোষণা
jugantor
লালপুরে শতবর্ষের আজিমনগর স্টেশন বন্ধ ঘোষণা

  লালপুর (নাটোর) প্রতিনিধি  

১৭ অক্টোবর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

জনবল সংকট দেখিয়ে বন্ধ করা হলো প্রায় শতবর্ষের রেলস্টেশন আজিমনগর। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ছয়টা থেকে স্টেশনের কার্যক্রম অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়। ১৯৩২ সালে প্রতিষ্ঠিত স্টেশনটি এ নিয়ে চতুর্থবারের মতো বন্ধ ঘোষণা করা হলো। ২০২০ সালে একই কারণ দেখিয়ে বন্ধ ঘোষণা করা হয়। এ ঘোষণায় যাত্রীদের দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

স্টেশন সূত্রে জানা গেছে, আজিমনগর স্টেশন দিয়ে প্রতিদিন ৬০টি ট্রেন যাতায়াত করে থাকে। এর মধ্যে লালমনিরহাট থেকে ঢাকাগামী লালমনি এক্সপ্রেস, খুলনা থেকে রাজশাহীগামী কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস, খুলনা থেকে রাজশাহীগামী সাগরদাঁড়ি এক্সপ্রেস রাজশাহী থেকে খুলনাগামী সাগরদাঁড়ি এক্সপ্রেস, ঈশ্বরদী থেকে রহনপুর কমিউটার এক্সপ্রেস, পাবনার ঢালারচর থেকে রাজশাহীগামী ঢালারচর এক্সপ্রেস ছাড়াও প্রায় ২০টি ট্রেনের স্টপেজ রয়েছে এখানে। এ সময় ৭০০ থেকে ৮০০ যাত্রী যাতায়াত করে থাকেন। এখানে স্টেশনমাস্টার দুটি, পয়েসম্যান তিনটি, পোটার দুটি ও বুকিং সহকারী হিসাবে একটি পদ রয়েছে। সর্বশেষ স্টেশন মাস্টার পদে মুস্তাফিজুর রহমান এখানে কর্মরত থাকলেও তাকে গত বৃহস্পতিবার ঈশ্বরদী স্টেশনে যুক্ত করা হয়েছে। শনিবার সকাল সাড়ে এগারোটা পর্যন্ত স্টেশন মাস্টার মুস্তাফিজুর রহমানের সঙ্গে মোবাইলে একাধিকবার যোগাযোগ করে পাওয়া যায়নি। স্টেশন এলাকার একজন ব্যবসায়ী সাইফুল ইসলাম জানান, এলাকায় জনপ্রতিনিধিরা তাদের দায়িত্ব পালন করতে ব্যর্থ হয়েছেন। স্টেশনটি গুরুত্বপূর্ণ যোগাযোগ মাধ্যম হওয়া সত্ত্বেও সংশ্লিষ্টদের উদাসীনতার কারণে বারবার এ বন্ধের সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে। লালপুর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মনোয়ার হোসেন মনি জানান, বিষয়টি অত্যন্ত দুঃখজনক। এলাকার ব্যবসা, চিকিৎসা, শিক্ষাসহ বিভিন্ন সেবা গ্রহণে যোগাযোগের অন্যতম মাধ্যম হচ্ছে রেল। স্টেশনটি অবিলম্বে চালু করার দাবি জানান তিনি। এ বিষয়ে নাটোর-১ (লালপুর-বাগাতিপাড়া) আসনের সংসদ সদস্য শহিদুল ইসলাম বকুল বলেন, বিষয়টি দুঃখজনক ঘটনা। আজিমনগর রেলওয়ে স্টেশনটি প্রাচীনতম স্টেশন। বিষয়টি নিয়ে রেলমন্ত্রীর সঙ্গে কথা হয়েছে। শিগগিরই এই সংকট দূর হয়ে যাবে বলে জানান তিনি।

লালপুরে শতবর্ষের আজিমনগর স্টেশন বন্ধ ঘোষণা

 লালপুর (নাটোর) প্রতিনিধি 
১৭ অক্টোবর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

জনবল সংকট দেখিয়ে বন্ধ করা হলো প্রায় শতবর্ষের রেলস্টেশন আজিমনগর। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ছয়টা থেকে স্টেশনের কার্যক্রম অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়। ১৯৩২ সালে প্রতিষ্ঠিত স্টেশনটি এ নিয়ে চতুর্থবারের মতো বন্ধ ঘোষণা করা হলো। ২০২০ সালে একই কারণ দেখিয়ে বন্ধ ঘোষণা করা হয়। এ ঘোষণায় যাত্রীদের দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

স্টেশন সূত্রে জানা গেছে, আজিমনগর স্টেশন দিয়ে প্রতিদিন ৬০টি ট্রেন যাতায়াত করে থাকে। এর মধ্যে লালমনিরহাট থেকে ঢাকাগামী লালমনি এক্সপ্রেস, খুলনা থেকে রাজশাহীগামী কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস, খুলনা থেকে রাজশাহীগামী সাগরদাঁড়ি এক্সপ্রেস রাজশাহী থেকে খুলনাগামী সাগরদাঁড়ি এক্সপ্রেস, ঈশ্বরদী থেকে রহনপুর কমিউটার এক্সপ্রেস, পাবনার ঢালারচর থেকে রাজশাহীগামী ঢালারচর এক্সপ্রেস ছাড়াও প্রায় ২০টি ট্রেনের স্টপেজ রয়েছে এখানে। এ সময় ৭০০ থেকে ৮০০ যাত্রী যাতায়াত করে থাকেন। এখানে স্টেশনমাস্টার দুটি, পয়েসম্যান তিনটি, পোটার দুটি ও বুকিং সহকারী হিসাবে একটি পদ রয়েছে। সর্বশেষ স্টেশন মাস্টার পদে মুস্তাফিজুর রহমান এখানে কর্মরত থাকলেও তাকে গত বৃহস্পতিবার ঈশ্বরদী স্টেশনে যুক্ত করা হয়েছে। শনিবার সকাল সাড়ে এগারোটা পর্যন্ত স্টেশন মাস্টার মুস্তাফিজুর রহমানের সঙ্গে মোবাইলে একাধিকবার যোগাযোগ করে পাওয়া যায়নি। স্টেশন এলাকার একজন ব্যবসায়ী সাইফুল ইসলাম জানান, এলাকায় জনপ্রতিনিধিরা তাদের দায়িত্ব পালন করতে ব্যর্থ হয়েছেন। স্টেশনটি গুরুত্বপূর্ণ যোগাযোগ মাধ্যম হওয়া সত্ত্বেও সংশ্লিষ্টদের উদাসীনতার কারণে বারবার এ বন্ধের সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে। লালপুর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মনোয়ার হোসেন মনি জানান, বিষয়টি অত্যন্ত দুঃখজনক। এলাকার ব্যবসা, চিকিৎসা, শিক্ষাসহ বিভিন্ন সেবা গ্রহণে যোগাযোগের অন্যতম মাধ্যম হচ্ছে রেল। স্টেশনটি অবিলম্বে চালু করার দাবি জানান তিনি। এ বিষয়ে নাটোর-১ (লালপুর-বাগাতিপাড়া) আসনের সংসদ সদস্য শহিদুল ইসলাম বকুল বলেন, বিষয়টি দুঃখজনক ঘটনা। আজিমনগর রেলওয়ে স্টেশনটি প্রাচীনতম স্টেশন। বিষয়টি নিয়ে রেলমন্ত্রীর সঙ্গে কথা হয়েছে। শিগগিরই এই সংকট দূর হয়ে যাবে বলে জানান তিনি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন