নূরের সংগঠনের নয়জনসহ গ্রেফতার ১০
jugantor
চট্টগ্রামে পূজামণ্ডপে হামলা
নূরের সংগঠনের নয়জনসহ গ্রেফতার ১০

  চট্টগ্রাম ব্যুরো  

২৩ অক্টোবর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

চট্টগ্রামে জেএমসেন হল পূজামণ্ডপের বাইরে পোস্টার ও ব্যানার ছেঁড়া এবং পুলিশের ওপর হামলার ঘটনায় করা মামলায় আরও ১০ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতার নয়জনই ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নূরের সংগঠন ‘বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার ও যুব পরিষদ’-এর নেতাকর্মী। বৃহস্পতিবার রাতে নগরীর বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়। এ মামলায় এ পর্যন্ত একশ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

গ্রেফতাররা হলো- বাংলাদেশ যুব অধিকার পরিষদ চট্টগ্রাম মহানগর আহ্বায়ক এনএম নাছির উদ্দিন, সদস্য সচিব ইঞ্জিনিয়ার মিজানুর রহমান, দপ্তর সম্পাদক ইমন মোহাম্মদ, বায়েজিদ থানার আহ্বায়ক ডা. রাসেল, মো. মিজান, ইয়ার মোহাম্মদ, গিয়াস উদ্দিন, ইয়াসিন আরাফাত, মো. হাবিবুল্লাহ মিজান ও মো. ইমরান হোসেন। এদের মধ্যে ইমরান হোসেন ছাড়া বাকিরা ছাত্র অধিকার ও যুব পরিষদের নেতাকর্মী বলে পুলিশ জানিয়েছে। কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নেজাম উদ্দিন যুগান্তরকে বলেন, ‘চট্টগ্রামে পূজামণ্ডপ ও পুলিশের ওপর হামলার নেতৃত্বে ছিল ভিপি নূরের সংগঠন ছাত্র অধিকার ও যুব পরিষদের নেতাকর্মীরা। গ্রেফতারের পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদেও তারা বিষয়টি স্বীকার করেছেন। সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে ৭ জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৭ দিন করে রিমান্ড আবেদন করা হলে আদালত একদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।’

কুমিল্লায় পূজামণ্ডপে কুরআন অবমাননার অভিযোগে গত ১৬ অক্টোবর নগরীর আন্দরকিল্লা শাহী জামে মসজিদ থেকে জুমার নামাজের পর বিক্ষোভ মিছিল বের করে একদল মুসল্লি। মিছিল থেকে জেএমসেন হল পূজামণ্ডপের বাইরে পূজার পোস্টার ও ব্যানার ছিঁড়ে ফেলা হয় এবং পূজামণ্ডপে ঢিল ছোড়া হয়। এতে পুলিশ বাধা দিতে গেলে কয়েকজন পুলিশও আহত হয়। এ ঘটনায় পুলিশ ৮৪ জনের নাম উল্লেখসহ ৪০০-৫০০ জনকে অজ্ঞাত আসামি করে কোতোয়ালি থানায় বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা দায়ের করে। মামলায় এ পর্যন্ত ১০০ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

চট্টগ্রামে পূজামণ্ডপে হামলা

নূরের সংগঠনের নয়জনসহ গ্রেফতার ১০

 চট্টগ্রাম ব্যুরো 
২৩ অক্টোবর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

চট্টগ্রামে জেএমসেন হল পূজামণ্ডপের বাইরে পোস্টার ও ব্যানার ছেঁড়া এবং পুলিশের ওপর হামলার ঘটনায় করা মামলায় আরও ১০ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতার নয়জনই ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নূরের সংগঠন ‘বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার ও যুব পরিষদ’-এর নেতাকর্মী। বৃহস্পতিবার রাতে নগরীর বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়। এ মামলায় এ পর্যন্ত একশ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

গ্রেফতাররা হলো- বাংলাদেশ যুব অধিকার পরিষদ চট্টগ্রাম মহানগর আহ্বায়ক এনএম নাছির উদ্দিন, সদস্য সচিব ইঞ্জিনিয়ার মিজানুর রহমান, দপ্তর সম্পাদক ইমন মোহাম্মদ, বায়েজিদ থানার আহ্বায়ক ডা. রাসেল, মো. মিজান, ইয়ার মোহাম্মদ, গিয়াস উদ্দিন, ইয়াসিন আরাফাত, মো. হাবিবুল্লাহ মিজান ও মো. ইমরান হোসেন। এদের মধ্যে ইমরান হোসেন ছাড়া বাকিরা ছাত্র অধিকার ও যুব পরিষদের নেতাকর্মী বলে পুলিশ জানিয়েছে। কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নেজাম উদ্দিন যুগান্তরকে বলেন, ‘চট্টগ্রামে পূজামণ্ডপ ও পুলিশের ওপর হামলার নেতৃত্বে ছিল ভিপি নূরের সংগঠন ছাত্র অধিকার ও যুব পরিষদের নেতাকর্মীরা। গ্রেফতারের পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদেও তারা বিষয়টি স্বীকার করেছেন। সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে ৭ জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৭ দিন করে রিমান্ড আবেদন করা হলে আদালত একদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।’

কুমিল্লায় পূজামণ্ডপে কুরআন অবমাননার অভিযোগে গত ১৬ অক্টোবর নগরীর আন্দরকিল্লা শাহী জামে মসজিদ থেকে জুমার নামাজের পর বিক্ষোভ মিছিল বের করে একদল মুসল্লি। মিছিল থেকে জেএমসেন হল পূজামণ্ডপের বাইরে পূজার পোস্টার ও ব্যানার ছিঁড়ে ফেলা হয় এবং পূজামণ্ডপে ঢিল ছোড়া হয়। এতে পুলিশ বাধা দিতে গেলে কয়েকজন পুলিশও আহত হয়। এ ঘটনায় পুলিশ ৮৪ জনের নাম উল্লেখসহ ৪০০-৫০০ জনকে অজ্ঞাত আসামি করে কোতোয়ালি থানায় বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা দায়ের করে। মামলায় এ পর্যন্ত ১০০ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন