দেশকে অস্থিতিশীল করতেই বিশেষ গোষ্ঠী মাঠে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী
jugantor
দেশকে অস্থিতিশীল করতেই বিশেষ গোষ্ঠী মাঠে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

  সিলেট ব্যুরো  

২৪ অক্টোবর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আব্দুল মোমেন বলেছেন, দুই বছর পর দেশে সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এ নির্বাচন সামনে রেখে বিশেষ একটি গোষ্ঠী দেশকে অস্থিতিশীল করতে মাঠে নেমেছে। এ লক্ষ্যেই সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টের চেষ্টা করা হচ্ছে। রোহিঙ্গাদের মধ্যে অসন্তোষ ও হত্যাকাণ্ডের মতো ঘটনা ঘটানো হচ্ছে। তিনি বলেন, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতিতে বাংলাদেশ বিশ্বের অন্যতম। আর এ সম্প্রীতিতে আঘাত হানার চেষ্টা করছে ষড়যন্ত্রকারীরা। কারণ তারা দেশের অগ্রযাত্রা ব্যাহত করতে চায়। শনিবার সকালে ইলেকট্রনিক মিডিয়া জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশন (ইমজা) সিলেটের কার্যালয় পরিদর্শন শেষে তিনি এসব কথা বলেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেন আরও বলেন, আগামী সাধারণ নির্বাচনকে সামনে রেখে আরও ষড়যন্ত্র হতে পারে। দেশের বড় বড় উন্নয়ন কাজ বাধাগ্রস্ত করতে ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে। তিনি বলেন, বাংলাদেশে ধর্মীয় সম্প্রীতি চিরঞ্জীব। এ দেশে সব ধর্মের মানুষ সমান সুযোগ-সুবিধা পান। এটা শুধু রাষ্ট্র নয়, দল হিসাবে আওয়ামী লীগ তা হৃদয়ে ধারণ করে। তাই সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্টের ষড়যন্ত্রকারীদের মোকাবিলায় সরকার কঠোর অবস্থানে রয়েছে। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, দেশের বিভিন্ন স্থানে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করতে যারা চেষ্টা করছে তাদের বিরুদ্ধে সরকার যে ব্যবস্থা নিচ্ছে তাতে প্রতিবেশী দেশ ভারত আমাদের প্রশংসা করেছে। তিনি বলেন, বর্তমান সরকার দেশের সব শ্রেণির মানুষের মঙ্গলের জন্য কাজ করে যাচ্ছে। এ মঙ্গল অর্জনে দেশের সব মানুষের সক্রিয় অংশগ্রহণ দরকার।

নগরীর জিন্দাবাজারে ইমজা কার্যালয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেনকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান ইমজা নেতারা। এ সময় মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মাসুক আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক জাকির হোসেন, সিলেট জেলা প্রেস ক্লাবের সভাপতি আল আজাদ, সিটি কাউন্সিলর আজাদুর রহমান আজাদ, সিলেট প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি ইকরামুল কবির, ইমজার সভাপতি বাপ্পা ঘোষ চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক আনিস রহমান উপস্থিত ছিলেন।

নগরীর বারুতখানায় সিলমার্ট কমপ্লেক্সে জেলা প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে সম্মাননা দেওয়া হয়। করোনাকালে কূটনৈতিক তৎপরতায় সফলতার জন্য তাকে জেলা প্রেস ক্লাবের উদ্যোগে এ সম্মাননা দেওয়া হয়। এ সময় পররাষ্ট্র ড. মোমেন বলেন, করোনাকালে কূটনৈতিক সফলতা আমার একা নয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সব দিকনির্দেশনা দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে টিকা কার্যক্রম সম্পূর্ণ বিনামূল্যে করা হয়েছে। এটি বাংলাদেশের বড় অর্জন। হাতেগোনা কয়টি দেশ বিনামূল্যে টিকা দিচ্ছে। তিনি আরও বলেন, দেশে করোনা টিকার কোনো অভাব নেই। বাংলাদেশও টিকা উৎপাদনে যেতে প্রস্তুত।

জেলা প্রেস ক্লাব সভাপতি আল আজাদের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক ছামির মাহমুদের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন প্রেস ক্লাবের কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্য ও সিটি কাউন্সিলর রেজওয়ান আহমদ। এ সময় জেলা প্রশাসক এম. কাজী এমদাদুল ইসলাম, মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মাসুক উদ্দিন আহমদ ও সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক জাকির হোসেন, বাংলাদেশ রেডক্রিসেন্ট সোসাইটি ব্যবস্থাপনা পরিষদের সদস্য আব্দুল জব্বার জলিল, সিটি কাউন্সিলর আজাদুর রহমান আজাদ ও ছালেহ আহমদ সেলিম, কোতোয়ালি থানার সহকারী কমিশনার শামসুদ্দীন সালেহ আহমদ চৌধুরী প্রমুখ। এছাড়া প্রেস ক্লাবের সাবেক আহ্বায়ক সালাম মশরুর, সাবেক সাধারণ সম্পাদক লিয়াকত শাহ ফরিদী, মোহাম্মদ মহসীন, সাবেক সাধারণ সম্পাদক সংগ্রাম সিংহ, ফখরুল ইসলাম, ফয়সল আহমদ বাবলু, সাবেক সাধারণ সম্পাদক শাহ দিদার আলম নবেল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

দেশকে অস্থিতিশীল করতেই বিশেষ গোষ্ঠী মাঠে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

 সিলেট ব্যুরো 
২৪ অক্টোবর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আব্দুল মোমেন বলেছেন, দুই বছর পর দেশে সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এ নির্বাচন সামনে রেখে বিশেষ একটি গোষ্ঠী দেশকে অস্থিতিশীল করতে মাঠে নেমেছে। এ লক্ষ্যেই সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্টের চেষ্টা করা হচ্ছে। রোহিঙ্গাদের মধ্যে অসন্তোষ ও হত্যাকাণ্ডের মতো ঘটনা ঘটানো হচ্ছে। তিনি বলেন, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতিতে বাংলাদেশ বিশ্বের অন্যতম। আর এ সম্প্রীতিতে আঘাত হানার চেষ্টা করছে ষড়যন্ত্রকারীরা। কারণ তারা দেশের অগ্রযাত্রা ব্যাহত করতে চায়। শনিবার সকালে ইলেকট্রনিক মিডিয়া জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশন (ইমজা) সিলেটের কার্যালয় পরিদর্শন শেষে তিনি এসব কথা বলেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেন আরও বলেন, আগামী সাধারণ নির্বাচনকে সামনে রেখে আরও ষড়যন্ত্র হতে পারে। দেশের বড় বড় উন্নয়ন কাজ বাধাগ্রস্ত করতে ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে। তিনি বলেন, বাংলাদেশে ধর্মীয় সম্প্রীতি চিরঞ্জীব। এ দেশে সব ধর্মের মানুষ সমান সুযোগ-সুবিধা পান। এটা শুধু রাষ্ট্র নয়, দল হিসাবে আওয়ামী লীগ তা হৃদয়ে ধারণ করে। তাই সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্টের ষড়যন্ত্রকারীদের মোকাবিলায় সরকার কঠোর অবস্থানে রয়েছে। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, দেশের বিভিন্ন স্থানে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করতে যারা চেষ্টা করছে তাদের বিরুদ্ধে সরকার যে ব্যবস্থা নিচ্ছে তাতে প্রতিবেশী দেশ ভারত আমাদের প্রশংসা করেছে। তিনি বলেন, বর্তমান সরকার দেশের সব শ্রেণির মানুষের মঙ্গলের জন্য কাজ করে যাচ্ছে। এ মঙ্গল অর্জনে দেশের সব মানুষের সক্রিয় অংশগ্রহণ দরকার।

নগরীর জিন্দাবাজারে ইমজা কার্যালয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেনকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান ইমজা নেতারা। এ সময় মহানগর আওয়ামী লীগ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মাসুক আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক জাকির হোসেন, সিলেট জেলা প্রেস ক্লাবের সভাপতি আল আজাদ, সিটি কাউন্সিলর আজাদুর রহমান আজাদ, সিলেট প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি ইকরামুল কবির, ইমজার সভাপতি বাপ্পা ঘোষ চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক আনিস রহমান উপস্থিত ছিলেন।

নগরীর বারুতখানায় সিলমার্ট কমপ্লেক্সে জেলা প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে সম্মাননা দেওয়া হয়। করোনাকালে কূটনৈতিক তৎপরতায় সফলতার জন্য তাকে জেলা প্রেস ক্লাবের উদ্যোগে এ সম্মাননা দেওয়া হয়। এ সময় পররাষ্ট্র ড. মোমেন বলেন, করোনাকালে কূটনৈতিক সফলতা আমার একা নয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সব দিকনির্দেশনা দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে টিকা কার্যক্রম সম্পূর্ণ বিনামূল্যে করা হয়েছে। এটি বাংলাদেশের বড় অর্জন। হাতেগোনা কয়টি দেশ বিনামূল্যে টিকা দিচ্ছে। তিনি আরও বলেন, দেশে করোনা টিকার কোনো অভাব নেই। বাংলাদেশও টিকা উৎপাদনে যেতে প্রস্তুত।

জেলা প্রেস ক্লাব সভাপতি আল আজাদের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক ছামির মাহমুদের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন প্রেস ক্লাবের কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্য ও সিটি কাউন্সিলর রেজওয়ান আহমদ। এ সময় জেলা প্রশাসক এম. কাজী এমদাদুল ইসলাম, মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মাসুক উদ্দিন আহমদ ও সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক জাকির হোসেন, বাংলাদেশ রেডক্রিসেন্ট সোসাইটি ব্যবস্থাপনা পরিষদের সদস্য আব্দুল জব্বার জলিল, সিটি কাউন্সিলর আজাদুর রহমান আজাদ ও ছালেহ আহমদ সেলিম, কোতোয়ালি থানার সহকারী কমিশনার শামসুদ্দীন সালেহ আহমদ চৌধুরী প্রমুখ। এছাড়া প্রেস ক্লাবের সাবেক আহ্বায়ক সালাম মশরুর, সাবেক সাধারণ সম্পাদক লিয়াকত শাহ ফরিদী, মোহাম্মদ মহসীন, সাবেক সাধারণ সম্পাদক সংগ্রাম সিংহ, ফখরুল ইসলাম, ফয়সল আহমদ বাবলু, সাবেক সাধারণ সম্পাদক শাহ দিদার আলম নবেল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন