উত্তরাঞ্চলের ১৪ বাফার গুদামে সার মজুত বন্ধ
jugantor
বাঘাবাড়ীতে ট্রাক মালিক সমিতির ধর্মঘট
উত্তরাঞ্চলের ১৪ বাফার গুদামে সার মজুত বন্ধ

  শাহজাদপুর (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি  

০৬ নভেম্বর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

হঠাৎ জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির কারণে জ্বালানি খরচ বেড়ে যাওয়ায় ট্রাকের ভাড়া বৃদ্ধির দাবিতে শুক্রবার সকাল থেকে অনির্দিষ্টকালের ট্রাক ধর্মঘট শুরু করেছে সিরাজগঞ্জ জেলা ট্রাক মালিক সমিতি। ফলে বাঘাবাড়ী নৌবন্দর থেকে উত্তরাঞ্চলের ১৬ জেলার ১৪টি বাফার গুদামে রাসায়নিক ইউরিয়া সার সরবরাহ বন্ধ হয়ে গেছে। বিসিআইসির আপৎকালীন সার মজুদ কার্যক্রমও বন্ধ হয়ে গেছে। এতে চলতি রবি মৌসুমে আসন্ন ইরি-বোরো আবাদ ব্যাহত হওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। অপরদিকে ইরি-বোরো আবাদকালে কৃত্রিম সার সংকটের আশঙ্কায় কৃষকেরা দিশেহারা হয়ে পড়েছেন। এই সার সরবরাহের খবর ছড়িয়ে পড়লে উত্তরের ১৬ জেলার বিভিন্ন খুচরা বাজারে সারের দাম কেজিপ্রতি ২-৩ টাকা বেড়ে গেছে।

শাহজাদপুর উপজেলার বাঘাবাড়ী নৌবন্দরে অবস্থিত সিরাজগঞ্জ জেলা ট্রাক মালিক সমিতির সভাপতি সাইফুল ইসলাম মোল্লা বলেন, লিটারপ্রতি জ্বালানি তেল ১৫ টাকা বৃদ্ধি পাওয়ায় বাঘাবাড়ী থেকে উত্তরাঞ্চলের পঞ্চগড়, ঠাকুরগাঁও, কুড়িগ্রাম যেতে তেল খরচ বেড়েছে ১৫০০ টাকা থেকে ২০০০ টাকা। পরিবহণ ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান আমাদের পূর্বের রেট অনুযায়ী ভাড়া পরিশোধ করছে। এ পরিমাণ টাকা আমাদের লোকসান হচ্ছে। তিনি বলেন, বাঘাবাড়ীতে ২০০টি ট্রাক ছিল। করোনায় ক্ষতির কারণে অনেক মালিক ট্রাক বিক্রি করে দেওয়ায় এখন মাত্র ৭৫টি ট্রাক রয়েছে। যদি ভাড়া বৃদ্ধি করা না হয় তবে বাকি ট্রাকগুলোর মালিকরা বিক্রি করে দিতে বাধ্য হবে। এ কারণে আমরা নিরুপায় হয়ে ভাড়া বৃদ্ধির দাবিতে এ আন্দোলন শুরু করেছি।

এ পরিস্থিতি নিরসনে এদিন দুপুরে বাঘাবাড়ীতে শাহজাদপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহ মো. শামসুজ্জোহার সভাপতিত্বে এক সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে উপস্থিত ছিলেন বাঘাবাড়ী নৌবন্দরের লেবার এজেন্ট আব্দুস সালাম ব্যাপারী, আবুল সরকার, আব্দুল মজিদ, জেবার সমিতির সভাপতি মির্জা আনোয়ার হোসেন হিরা, পরিবহণ ঠিকাদারের প্রতিনিধি প্রটোন কোংয়ের সোহরাব হোসেন ও মেসার্স ফয়সাল কোংয়ের জালাল উদ্দিন, সিরাজগঞ্জ জেলা ট্রাক মালিক সমিতির সভাপতি সাইফুল ইসলাম মোল্লা, সাধারণ সম্পাদক মজনু সরকার, সাংগঠনিক সম্পাদক আজমত মোল্লা ও বন্দোবস্তকারী প্রতিষ্ঠানের সভাপতি জাহাঙ্গীর হোসেন, সাধারণ সম্পাদক আইয়ুব আলী প্রমুখ। ১ ঘণ্টাব্যাপী এ বৈঠক অমীমাংসিতভাবে শেষ হয়। ফলে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ট্রাক ধর্মঘট চলছিল।

শাহজাদপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহ মো. শামসুজ্জোহা বলেন, খবর পেয়ে বাঘাবাড়ী নৌবন্দরে গিয়ে ট্রাক মালিক সমিতির নেতা, পরিবহণ ঠিকাদারের প্রতিনিধি ও বন্দর লেবার নেতাদের নিয়ে বৈঠক করেছি। এরপর এদের নেতাদেরকে আলাদাভাবে বসে বিষয়টি সমন্বয় করে সমাধান করতে বলেছি। আশা করি, ২/১ দিনের মধ্যে এ সাময়িক সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে। বাঘাবাড়ী নৌবন্দর বাফার গুদাম ইনচার্জ হারুন আর রশিদ বলেন, তারা পরিবহণ বন্ধ রাখলেও আমরা সরকারি ব্যবস্থাপনায় উত্তরাঞ্চলের বাফার গুদামগুলোতে সার সরবরাহ অব্যাহত রাখবো। ফলে উত্তরাঞ্চলে সার সংকট হবে না।

সিরাজগঞ্জ মোটর বাস, মিনিবাস সমিতির সভাপতি হাসিব খান তরুণ বলেন, হঠাৎ জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির কারণে জ্বালানি খরচ বেড়ে গেছে। ফলে সারা দেশের সব ধরনের পরিবহণ বন্ধ রেখে আমরা এর প্রতিবাদ জানাচ্ছি। সেই সঙ্গে আমাদের ভাড়া সমন্বয় করা না হলে আমরা লোকসানে পড়ে যাচ্ছি। তাই ভাড়া সমন্বয় ও বৃদ্ধির দাবিতে আমরা সমস্ত পরিবহণ বন্ধ রেখে এ আন্দোলন শুরু করেছি। আমাদের দাবি পূরণ হলে আমরা আবার গাড়ি চালাব। তিনি আরও বলেন, রোববার ঢাকায় পরিবহণ নেতাদের সঙ্গে সরকারের এ নিয়ে একটি বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে। ফলপ্রসূ আলোচনা হলে ওইদিনই এর সমাধান হয়ে যাবে।

বাঘাবাড়ী নৌযান শ্রমিক ফেডারেশনের নবগঠিত কমিটির পরিচিতি অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি বাংলাদেশ নৌযান ফেডারেশনের সভাপতি শাহ আলম ভূইয়া শুক্রবার সকালে বলেন, জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধিতে নৌযান সেক্টরেরও খরচ বৃদ্ধি পাবে। ফলে নীতিগতভাবে জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে পরিবহণ সেক্টরের আন্দোলনের প্রতি আমরা সমর্থন জানিয়ে নৌযান শ্রমিকদের অবিলম্বে বেতন-ভাতা বৃদ্ধির জোর দাবি জানাচ্ছি।

ওয়াসিম আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন দাউদ উল ইসলাম, সিরাজুল ইসলাম, আমিনুল ইসলাম, কেন্দ্রীয় নেতা আফসার চৌধুরী, হাবিবুল্লাহ বাহার, আবু সাঈদ, আবুল কাশেম প্রমুখ। অপরদিকে জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে পরিবহণ বন্ধ থাকায় শাহজাদপুর উপজেলা ও সিরাজগঞ্জ জেলাসহ উত্তরাঞ্চলের ১৬ জেলায় যাত্রী দুর্ভোগ চরম আকার ধারণ করেছে। বিশেষ করে চাকরি প্রার্থীরা ঢাকায় যেতে পারেননি আবার অনেকে জরুরি কাজে দূরে যেতে না পাড়ায় অনেক ক্ষতির মুখে পড়েছেন।

বাঘাবাড়ীতে ট্রাক মালিক সমিতির ধর্মঘট

উত্তরাঞ্চলের ১৪ বাফার গুদামে সার মজুত বন্ধ

 শাহজাদপুর (সিরাজগঞ্জ) প্রতিনিধি 
০৬ নভেম্বর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

হঠাৎ জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির কারণে জ্বালানি খরচ বেড়ে যাওয়ায় ট্রাকের ভাড়া বৃদ্ধির দাবিতে শুক্রবার সকাল থেকে অনির্দিষ্টকালের ট্রাক ধর্মঘট শুরু করেছে সিরাজগঞ্জ জেলা ট্রাক মালিক সমিতি। ফলে বাঘাবাড়ী নৌবন্দর থেকে উত্তরাঞ্চলের ১৬ জেলার ১৪টি বাফার গুদামে রাসায়নিক ইউরিয়া সার সরবরাহ বন্ধ হয়ে গেছে। বিসিআইসির আপৎকালীন সার মজুদ কার্যক্রমও বন্ধ হয়ে গেছে। এতে চলতি রবি মৌসুমে আসন্ন ইরি-বোরো আবাদ ব্যাহত হওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। অপরদিকে ইরি-বোরো আবাদকালে কৃত্রিম সার সংকটের আশঙ্কায় কৃষকেরা দিশেহারা হয়ে পড়েছেন। এই সার সরবরাহের খবর ছড়িয়ে পড়লে উত্তরের ১৬ জেলার বিভিন্ন খুচরা বাজারে সারের দাম কেজিপ্রতি ২-৩ টাকা বেড়ে গেছে।

শাহজাদপুর উপজেলার বাঘাবাড়ী নৌবন্দরে অবস্থিত সিরাজগঞ্জ জেলা ট্রাক মালিক সমিতির সভাপতি সাইফুল ইসলাম মোল্লা বলেন, লিটারপ্রতি জ্বালানি তেল ১৫ টাকা বৃদ্ধি পাওয়ায় বাঘাবাড়ী থেকে উত্তরাঞ্চলের পঞ্চগড়, ঠাকুরগাঁও, কুড়িগ্রাম যেতে তেল খরচ বেড়েছে ১৫০০ টাকা থেকে ২০০০ টাকা। পরিবহণ ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান আমাদের পূর্বের রেট অনুযায়ী ভাড়া পরিশোধ করছে। এ পরিমাণ টাকা আমাদের লোকসান হচ্ছে। তিনি বলেন, বাঘাবাড়ীতে ২০০টি ট্রাক ছিল। করোনায় ক্ষতির কারণে অনেক মালিক ট্রাক বিক্রি করে দেওয়ায় এখন মাত্র ৭৫টি ট্রাক রয়েছে। যদি ভাড়া বৃদ্ধি করা না হয় তবে বাকি ট্রাকগুলোর মালিকরা বিক্রি করে দিতে বাধ্য হবে। এ কারণে আমরা নিরুপায় হয়ে ভাড়া বৃদ্ধির দাবিতে এ আন্দোলন শুরু করেছি।

এ পরিস্থিতি নিরসনে এদিন দুপুরে বাঘাবাড়ীতে শাহজাদপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহ মো. শামসুজ্জোহার সভাপতিত্বে এক সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে উপস্থিত ছিলেন বাঘাবাড়ী নৌবন্দরের লেবার এজেন্ট আব্দুস সালাম ব্যাপারী, আবুল সরকার, আব্দুল মজিদ, জেবার সমিতির সভাপতি মির্জা আনোয়ার হোসেন হিরা, পরিবহণ ঠিকাদারের প্রতিনিধি প্রটোন কোংয়ের সোহরাব হোসেন ও মেসার্স ফয়সাল কোংয়ের জালাল উদ্দিন, সিরাজগঞ্জ জেলা ট্রাক মালিক সমিতির সভাপতি সাইফুল ইসলাম মোল্লা, সাধারণ সম্পাদক মজনু সরকার, সাংগঠনিক সম্পাদক আজমত মোল্লা ও বন্দোবস্তকারী প্রতিষ্ঠানের সভাপতি জাহাঙ্গীর হোসেন, সাধারণ সম্পাদক আইয়ুব আলী প্রমুখ। ১ ঘণ্টাব্যাপী এ বৈঠক অমীমাংসিতভাবে শেষ হয়। ফলে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ট্রাক ধর্মঘট চলছিল।

শাহজাদপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহ মো. শামসুজ্জোহা বলেন, খবর পেয়ে বাঘাবাড়ী নৌবন্দরে গিয়ে ট্রাক মালিক সমিতির নেতা, পরিবহণ ঠিকাদারের প্রতিনিধি ও বন্দর লেবার নেতাদের নিয়ে বৈঠক করেছি। এরপর এদের নেতাদেরকে আলাদাভাবে বসে বিষয়টি সমন্বয় করে সমাধান করতে বলেছি। আশা করি, ২/১ দিনের মধ্যে এ সাময়িক সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে। বাঘাবাড়ী নৌবন্দর বাফার গুদাম ইনচার্জ হারুন আর রশিদ বলেন, তারা পরিবহণ বন্ধ রাখলেও আমরা সরকারি ব্যবস্থাপনায় উত্তরাঞ্চলের বাফার গুদামগুলোতে সার সরবরাহ অব্যাহত রাখবো। ফলে উত্তরাঞ্চলে সার সংকট হবে না।

সিরাজগঞ্জ মোটর বাস, মিনিবাস সমিতির সভাপতি হাসিব খান তরুণ বলেন, হঠাৎ জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির কারণে জ্বালানি খরচ বেড়ে গেছে। ফলে সারা দেশের সব ধরনের পরিবহণ বন্ধ রেখে আমরা এর প্রতিবাদ জানাচ্ছি। সেই সঙ্গে আমাদের ভাড়া সমন্বয় করা না হলে আমরা লোকসানে পড়ে যাচ্ছি। তাই ভাড়া সমন্বয় ও বৃদ্ধির দাবিতে আমরা সমস্ত পরিবহণ বন্ধ রেখে এ আন্দোলন শুরু করেছি। আমাদের দাবি পূরণ হলে আমরা আবার গাড়ি চালাব। তিনি আরও বলেন, রোববার ঢাকায় পরিবহণ নেতাদের সঙ্গে সরকারের এ নিয়ে একটি বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে। ফলপ্রসূ আলোচনা হলে ওইদিনই এর সমাধান হয়ে যাবে।

বাঘাবাড়ী নৌযান শ্রমিক ফেডারেশনের নবগঠিত কমিটির পরিচিতি অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি বাংলাদেশ নৌযান ফেডারেশনের সভাপতি শাহ আলম ভূইয়া শুক্রবার সকালে বলেন, জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধিতে নৌযান সেক্টরেরও খরচ বৃদ্ধি পাবে। ফলে নীতিগতভাবে জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে পরিবহণ সেক্টরের আন্দোলনের প্রতি আমরা সমর্থন জানিয়ে নৌযান শ্রমিকদের অবিলম্বে বেতন-ভাতা বৃদ্ধির জোর দাবি জানাচ্ছি।

ওয়াসিম আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন দাউদ উল ইসলাম, সিরাজুল ইসলাম, আমিনুল ইসলাম, কেন্দ্রীয় নেতা আফসার চৌধুরী, হাবিবুল্লাহ বাহার, আবু সাঈদ, আবুল কাশেম প্রমুখ। অপরদিকে জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে পরিবহণ বন্ধ থাকায় শাহজাদপুর উপজেলা ও সিরাজগঞ্জ জেলাসহ উত্তরাঞ্চলের ১৬ জেলায় যাত্রী দুর্ভোগ চরম আকার ধারণ করেছে। বিশেষ করে চাকরি প্রার্থীরা ঢাকায় যেতে পারেননি আবার অনেকে জরুরি কাজে দূরে যেতে না পাড়ায় অনেক ক্ষতির মুখে পড়েছেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন