অতীতের বীরত্বগাথা স্মরণ রাষ্ট্রকে এগিয়ে নেয়: তথ্যমন্ত্রী
jugantor
মুক্তিযুদ্ধের দুর্লভচিত্র প্রদর্শনী উদ্বোধন
অতীতের বীরত্বগাথা স্মরণ রাষ্ট্রকে এগিয়ে নেয়: তথ্যমন্ত্রী

  সাংস্কৃতিক প্রতিবেদক  

২৬ নভেম্বর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, রাষ্ট্রকে এগিয়ে নিতে অতীতের বীরত্বগাথা স্মরণ করতে হয়, বীরদের সম্মান জানাতে হয়। রাজধানী শিল্পকলা একাডেমির চিত্রশালা মিলনায়তনে বৃহস্পতিবার স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষ্যে সশস্ত্রবাহিনী বিভাগ আয়োজিত স্বাধীনতাযুদ্ধ চলাকালীন ধারণকৃত দুর্লভচিত্রের তিন দিনব্যাপী প্রদর্শনী ‘বাঙালির বীরত্বের চিত্রগাথা’ উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় মন্ত্রী এ কথা বলেন। সশস্ত্রবাহিনী বিভাগের প্রিন্সিপাল স্টাফ অফিসার (পিএসও) লেফটেন্যান্ট জেনারেল ওয়াকার-উজ-জামান অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন। সেনা, নৌ ও বিমানবাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, গণমাধ্যম ব্যক্তিত্বসহ আমন্ত্রিত বিশিষ্ট অতিথিরা অনুষ্ঠানে অংশ নেন।

প্রদর্শনী এবং এ উপলক্ষ্যে অ্যালবাম প্রকাশের জন্য সশস্ত্রবাহিনী বিভাগকে ধন্যবাদ জানিয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, স্বাধীনতা যুদ্ধের আলোকচিত্র খুব বেশি নেই এবং যদি সংরক্ষণ করা না হয় তাহলে সেগুলো ধীরে ধীরে হারিয়ে যাবে। এগুলোকে সন্নিবেশিত করে একটি অ্যালবাম বের করে এটিকে সংরক্ষণের উদ্যোগ অত্যন্ত প্রশংসনীয়।

অনুষ্ঠানে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, পিএসও লে. জেনারেল ওয়াকার-উজ-জামান, রিয়ার অ্যাডমিরাল এম লোকমানুর রহমান, রিয়ার অ্যাডমিরাল মাহবুব-উল-ইসলাম, মেজর জেনারেল এফএম জাহিদ হোসেন, এয়ার কমোডর রিয়াদাত হোসেন, উপাচার্য অধ্যাপক আতিকুল ইসলাম, বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক কবি মুহম্মদ নূরুল হুদা, বীর মুক্তিযোদ্ধা অবসরপ্রাপ্ত মেজর এম আলী আশরাফ, বীরপ্রতীক প্রদর্শনী উপলক্ষ্যে প্রকাশিত ‘বাঙালির বীরত্বের চিত্রগাথা’ অ্যালবামের মোড়ক উন্মোচন করেন। আমন্ত্রিত অতিথিরা নির্মিত প্রামাণ্যচিত্র অবলোকন করেন ও চিত্রপ্রদর্শনী ঘুরে দেখেন। বাংলাদেশ নৌবাহিনীর ব্যবস্থাপনায় ২৭ নভেম্বর পর্যন্ত প্রতিদিন বেলা ১১টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত প্রদর্শনীটি সবার জন্য উন্মুক্ত রয়েছে।

নোনাজলের কাব্য চলচ্চিত্রের প্রিমিয়ারে তথ্যমন্ত্রী : সন্ধ্যায় রাজধানীর মহাখালীতে এসকেএস টাওয়ারে স্টার সিনেপ্লেক্সে বাংলাদেশ-ফ্রান্স যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত নোনাজলের কাব্য চলচ্চিত্রের প্রিমিয়ার শো’তে প্রধান অতিথি হিসাবে যোগ দেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

এ সময় মন্ত্রী দেশের লোকজ সংস্কৃতি ও ভাবধারা নিয়ে চলচ্চিত্র নির্মাণের জন্য এর পরিচালক রেজওয়ান শাহরিয়ার সুমিতের প্রশংসা করেন। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর হাত ধরে সূত্রপাত ঘটা চলচ্চিত্র শিল্পকে এগিয়ে নিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যে উদ্যোগ নিয়েছেন তা বাস্তবায়ন করতে নতুন প্রজন্মকে এগিয়ে আসতে হবে। সিনেমাটির অভিনয় শিল্পী-তিতাস জিয়া, ফজলুর রহমান বাবু, তাসনুভা তামান্না, শতাব্দী ওয়াদুদ, অশোক ব্যাপারীসহ সব কলাকুশলীকে অভিনন্দন জানান।

মুক্তিযুদ্ধের দুর্লভচিত্র প্রদর্শনী উদ্বোধন

অতীতের বীরত্বগাথা স্মরণ রাষ্ট্রকে এগিয়ে নেয়: তথ্যমন্ত্রী

 সাংস্কৃতিক প্রতিবেদক 
২৬ নভেম্বর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, রাষ্ট্রকে এগিয়ে নিতে অতীতের বীরত্বগাথা স্মরণ করতে হয়, বীরদের সম্মান জানাতে হয়। রাজধানী শিল্পকলা একাডেমির চিত্রশালা মিলনায়তনে বৃহস্পতিবার স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষ্যে সশস্ত্রবাহিনী বিভাগ আয়োজিত স্বাধীনতাযুদ্ধ চলাকালীন ধারণকৃত দুর্লভচিত্রের তিন দিনব্যাপী প্রদর্শনী ‘বাঙালির বীরত্বের চিত্রগাথা’ উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় মন্ত্রী এ কথা বলেন। সশস্ত্রবাহিনী বিভাগের প্রিন্সিপাল স্টাফ অফিসার (পিএসও) লেফটেন্যান্ট জেনারেল ওয়াকার-উজ-জামান অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন। সেনা, নৌ ও বিমানবাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, গণমাধ্যম ব্যক্তিত্বসহ আমন্ত্রিত বিশিষ্ট অতিথিরা অনুষ্ঠানে অংশ নেন।

প্রদর্শনী এবং এ উপলক্ষ্যে অ্যালবাম প্রকাশের জন্য সশস্ত্রবাহিনী বিভাগকে ধন্যবাদ জানিয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, স্বাধীনতা যুদ্ধের আলোকচিত্র খুব বেশি নেই এবং যদি সংরক্ষণ করা না হয় তাহলে সেগুলো ধীরে ধীরে হারিয়ে যাবে। এগুলোকে সন্নিবেশিত করে একটি অ্যালবাম বের করে এটিকে সংরক্ষণের উদ্যোগ অত্যন্ত প্রশংসনীয়।

অনুষ্ঠানে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, পিএসও লে. জেনারেল ওয়াকার-উজ-জামান, রিয়ার অ্যাডমিরাল এম লোকমানুর রহমান, রিয়ার অ্যাডমিরাল মাহবুব-উল-ইসলাম, মেজর জেনারেল এফএম জাহিদ হোসেন, এয়ার কমোডর রিয়াদাত হোসেন, উপাচার্য অধ্যাপক আতিকুল ইসলাম, বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক কবি মুহম্মদ নূরুল হুদা, বীর মুক্তিযোদ্ধা অবসরপ্রাপ্ত মেজর এম আলী আশরাফ, বীরপ্রতীক প্রদর্শনী উপলক্ষ্যে প্রকাশিত ‘বাঙালির বীরত্বের চিত্রগাথা’ অ্যালবামের মোড়ক উন্মোচন করেন। আমন্ত্রিত অতিথিরা নির্মিত প্রামাণ্যচিত্র অবলোকন করেন ও চিত্রপ্রদর্শনী ঘুরে দেখেন। বাংলাদেশ নৌবাহিনীর ব্যবস্থাপনায় ২৭ নভেম্বর পর্যন্ত প্রতিদিন বেলা ১১টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত প্রদর্শনীটি সবার জন্য উন্মুক্ত রয়েছে।

নোনাজলের কাব্য চলচ্চিত্রের প্রিমিয়ারে তথ্যমন্ত্রী : সন্ধ্যায় রাজধানীর মহাখালীতে এসকেএস টাওয়ারে স্টার সিনেপ্লেক্সে বাংলাদেশ-ফ্রান্স যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত নোনাজলের কাব্য চলচ্চিত্রের প্রিমিয়ার শো’তে প্রধান অতিথি হিসাবে যোগ দেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

এ সময় মন্ত্রী দেশের লোকজ সংস্কৃতি ও ভাবধারা নিয়ে চলচ্চিত্র নির্মাণের জন্য এর পরিচালক রেজওয়ান শাহরিয়ার সুমিতের প্রশংসা করেন। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধুর হাত ধরে সূত্রপাত ঘটা চলচ্চিত্র শিল্পকে এগিয়ে নিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যে উদ্যোগ নিয়েছেন তা বাস্তবায়ন করতে নতুন প্রজন্মকে এগিয়ে আসতে হবে। সিনেমাটির অভিনয় শিল্পী-তিতাস জিয়া, ফজলুর রহমান বাবু, তাসনুভা তামান্না, শতাব্দী ওয়াদুদ, অশোক ব্যাপারীসহ সব কলাকুশলীকে অভিনন্দন জানান।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন