যশোরে হত্যা মামলার আসামি পেলেন নৌকা
jugantor
চাঁচড়া ইউপি নির্বাচন
যশোরে হত্যা মামলার আসামি পেলেন নৌকা
পালটাপালটি সংবাদ সম্মেলন

  যশোর ব্যুরো  

০৭ ডিসেম্বর ২০২১, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

যশোর সদর উপজেলার চাঁচড়া ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে হত্যা মামলার আসামিকে আওয়ামী লীগের (নৌকা) মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। নৌকার মনোনয়নপ্রাপ্ত সেলিম রেজা পান্নু মৎস্য ব্যবসায়ী ইমরোজ হত্যা মামলার চার্জশিটভুক্ত আসামি উল্লেখ করে তার দলীয় মনোনয়ন বাতিলের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করা হয়। পান্নুর পক্ষেও পালটা সংবাদ সম্মেলন করা হয়। সোমবার যশোর প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে পান্নুর বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেন চাঁচড়া ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী আওয়ামী লীগের সাত নেতা। পরে একই স্থানে পান্নুর পক্ষে পালটা সংবাদ সম্মেলন করেন আওয়ামী লীগের আরেকটি পক্ষ।

পান্নুর বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন চাঁচড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ওয়াজেদ আলী মোড়ল। এতে বলা হয়, আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দলের মনোনয়নের ব্যাপারে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় সর্বসম্মতিক্রমে যে নামের তালিকা পাঠানো হয় তাতে পান্নুর নাম ছিল না। অথচ কে বা কারা তার নাম প্রস্তাব করে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন বোর্ডে পাঠিয়েছে। ইউনিয়নের ত্যাগী ও পরীক্ষিত নেতাকে উপেক্ষা করে তাকে নৌকা দেওয়া হয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে পান্নুর বিরুদ্ধে হত্যা, সন্ত্রাস ও চাঁদাবাজির অভিযোগ করা হয়।

এতে আরও বলা হয়- ২০১৯ সালের ২৪ জুলাই প্রকাশ্যে চাঁচড়া এলাকায় মৎস্য ব্যবসায়ী ইমরোজকে কুপিয়ে হত্যা করেন পান্নু। এ ঘটনায় পুলিশ পান্নুর বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দিয়েছে। এছাড়া তার বিরুদ্ধে অস্ত্র ও চাঁদাবাজির অভিযোগ রয়েছে। পান্নুর মনোনয়ন অবিলম্বে বাতিলের দাবি জানানো হয়। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন মনোনয়ন প্রত্যাশী আনারুল করীম আনু, মোহাম্মদ কবিরুজ্জামান, শামীম রেজা, ফিরোজ কবীর পিকুল, মনজুরে মাহবুব, সাজ্জাদ হোসেন বাবু ও শেখ সাদিয়া মৌরীনের পক্ষে আব্দুর রাজ্জাক ফুল। পান্নুর পক্ষে পালটা সংবাদ সম্মেলন করেন তার অনুসারীরা। এতে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন চাঁচড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আজাহার আলী মোল্লা। এতে সব অভিযোগ অস্বীকার করে বলা হয়, পান্নু আওয়ামী লীগের একজন নিবেদিতপ্রাণ কর্মী। সাংগঠনিক কর্মকাণ্ডে অবদান রাখায় এবং করোনাকালে সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়ানোয় তার হাতে নৌকা তুলে দিয়েছেন দলের কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। এখন দলের একশ্রেণির নেতারা পান্নুর মনোনয়ন ছিনিয়ে নিতে ষড়যন্ত্র করছেন। ষড়যন্ত্রকারীরা বিএনপি-জামায়াতের নেতাকর্মী এবং ভাড়াটিয়া হিসাবে আওয়ামী লীগে ঢুকে তারা দল ও নৌকার ক্ষতি করছেন। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন চাঁচড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা বজলুর রহমান, আব্দুল আজিজ বিশ্বাস, ফিরোজ হোসেন, আব্দুর রাজ্জাক, আবুল হোসেন, আব্দুর রশিদ, রফিকুল ইসলাম, মতিয়ার রহমান, আব্দুল মাজেদ, কাজী বেদারুল কাদের স্বপন, মাহবুব আলম বুলু প্রমুখ। সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে নেতারা বলেন, হত্যা ও হত্যা প্রচেষ্টার অভিযোগে পান্নুর বিরুদ্ধে করা মামলা ষড়যন্ত্রেরই অংশ। এসব ষড়যন্ত্র পরিহার করে নৌকার পক্ষে নির্বাচনি মাঠে অংশগ্রহণের জন্য সবার প্রতি আহ্বান জানানো হয়। আগামী ৫ জানুয়ারি যশোর সদর উপজেলার ১৫টি ইউপিতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

চাঁচড়া ইউপি নির্বাচন

যশোরে হত্যা মামলার আসামি পেলেন নৌকা

পালটাপালটি সংবাদ সম্মেলন
 যশোর ব্যুরো 
০৭ ডিসেম্বর ২০২১, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

যশোর সদর উপজেলার চাঁচড়া ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে হত্যা মামলার আসামিকে আওয়ামী লীগের (নৌকা) মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। নৌকার মনোনয়নপ্রাপ্ত সেলিম রেজা পান্নু মৎস্য ব্যবসায়ী ইমরোজ হত্যা মামলার চার্জশিটভুক্ত আসামি উল্লেখ করে তার দলীয় মনোনয়ন বাতিলের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করা হয়। পান্নুর পক্ষেও পালটা সংবাদ সম্মেলন করা হয়। সোমবার যশোর প্রেস ক্লাব মিলনায়তনে পান্নুর বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করেন চাঁচড়া ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী আওয়ামী লীগের সাত নেতা। পরে একই স্থানে পান্নুর পক্ষে পালটা সংবাদ সম্মেলন করেন আওয়ামী লীগের আরেকটি পক্ষ।

পান্নুর বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন চাঁচড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ওয়াজেদ আলী মোড়ল। এতে বলা হয়, আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দলের মনোনয়নের ব্যাপারে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় সর্বসম্মতিক্রমে যে নামের তালিকা পাঠানো হয় তাতে পান্নুর নাম ছিল না। অথচ কে বা কারা তার নাম প্রস্তাব করে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন বোর্ডে পাঠিয়েছে। ইউনিয়নের ত্যাগী ও পরীক্ষিত নেতাকে উপেক্ষা করে তাকে নৌকা দেওয়া হয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে পান্নুর বিরুদ্ধে হত্যা, সন্ত্রাস ও চাঁদাবাজির অভিযোগ করা হয়।

এতে আরও বলা হয়- ২০১৯ সালের ২৪ জুলাই প্রকাশ্যে চাঁচড়া এলাকায় মৎস্য ব্যবসায়ী ইমরোজকে কুপিয়ে হত্যা করেন পান্নু। এ ঘটনায় পুলিশ পান্নুর বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দিয়েছে। এছাড়া তার বিরুদ্ধে অস্ত্র ও চাঁদাবাজির অভিযোগ রয়েছে। পান্নুর মনোনয়ন অবিলম্বে বাতিলের দাবি জানানো হয়। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন মনোনয়ন প্রত্যাশী আনারুল করীম আনু, মোহাম্মদ কবিরুজ্জামান, শামীম রেজা, ফিরোজ কবীর পিকুল, মনজুরে মাহবুব, সাজ্জাদ হোসেন বাবু ও শেখ সাদিয়া মৌরীনের পক্ষে আব্দুর রাজ্জাক ফুল। পান্নুর পক্ষে পালটা সংবাদ সম্মেলন করেন তার অনুসারীরা। এতে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন চাঁচড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আজাহার আলী মোল্লা। এতে সব অভিযোগ অস্বীকার করে বলা হয়, পান্নু আওয়ামী লীগের একজন নিবেদিতপ্রাণ কর্মী। সাংগঠনিক কর্মকাণ্ডে অবদান রাখায় এবং করোনাকালে সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়ানোয় তার হাতে নৌকা তুলে দিয়েছেন দলের কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। এখন দলের একশ্রেণির নেতারা পান্নুর মনোনয়ন ছিনিয়ে নিতে ষড়যন্ত্র করছেন। ষড়যন্ত্রকারীরা বিএনপি-জামায়াতের নেতাকর্মী এবং ভাড়াটিয়া হিসাবে আওয়ামী লীগে ঢুকে তারা দল ও নৌকার ক্ষতি করছেন। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন চাঁচড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা বজলুর রহমান, আব্দুল আজিজ বিশ্বাস, ফিরোজ হোসেন, আব্দুর রাজ্জাক, আবুল হোসেন, আব্দুর রশিদ, রফিকুল ইসলাম, মতিয়ার রহমান, আব্দুল মাজেদ, কাজী বেদারুল কাদের স্বপন, মাহবুব আলম বুলু প্রমুখ। সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে নেতারা বলেন, হত্যা ও হত্যা প্রচেষ্টার অভিযোগে পান্নুর বিরুদ্ধে করা মামলা ষড়যন্ত্রেরই অংশ। এসব ষড়যন্ত্র পরিহার করে নৌকার পক্ষে নির্বাচনি মাঠে অংশগ্রহণের জন্য সবার প্রতি আহ্বান জানানো হয়। আগামী ৫ জানুয়ারি যশোর সদর উপজেলার ১৫টি ইউপিতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন