মোংলা বন্দরে ১৩২টি রিকন্ডিশন্ড গাড়ি নিলামে
jugantor
মোংলা বন্দরে ১৩২টি রিকন্ডিশন্ড গাড়ি নিলামে
করোনার কারণে তেমন সাড়া মেলেনি

  মোংলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি  

১৯ জানুয়ারি ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

মোংলা বন্দরে ১৩২টি রিকন্ডিশন্ড গাড়ি নিলামে

মোংলা বন্দরে দীর্ঘদিন পড়ে থাকা ১৩২টি বিলাসবহুল রিকন্ডিশন্ড গাড়িসহ ৫টি আমদানি পণ্যের লট নিলামে তোলা হয়। মঙ্গলবার মোংলা কাস্টম হাউজে এই নিলাম প্রক্রিয়া অনুষ্ঠিত হয়। তবে বছরের প্রথম এ নিলামে তেমন সাড়া মেলেনি। নিলামে ওঠা ১৩৭টি লটের বিপরীতে ৪০ জন বিডার টেন্ডারে অংশগ্রহণ ও দরপত্র দাখিল করেন।

কাস্টম হাউজ সূত্র জানায়, আইন অনুযায়ী আমদানির এক মাসের মধ্যে বন্দর থেকে গাড়ি ছাড়িয়ে নিতে হবে। নইলে কাস্টম কর্তৃপক্ষ নিলাম প্রক্রিয়া শুরু করে। বর্তমানে বন্দরে নিলামযোগ্য প্রায় ২,৮৮৪টি গাড়ি রয়েছে। এর মধ্যে মঙ্গলবার নিলামে তোলা হয় ১৩২টি গাড়ি ও আমদানি পণ্যের ৫টি লট। চলতি বছর প্রথম দফায় এ নিলাম প্রক্রিয়া অনুষ্ঠিত হয়। গত বছর একই প্রক্রিয়ায় ২১ দফায় নিলামে উঠেছিল আমদানি করা বিভিন্ন ব্রান্ডের সহস্রাধিক রিকন্ডিশন্ড গাড়ি। তবে করোনার কারণে এবার নিলাম প্রক্রিয়ায় অংশগ্রহণকারীদের উপস্থিতি কম বলে জানায় কাস্টমস কর্তৃপক্ষ।

এদিকে এ নিলাম প্রক্রিয়া নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন গাড়ি আমদানিকারকরা। বারভিডার (গাড়ি আমাদানিকারকদের সংগঠন) সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মাদ শহিদুল ইসলাম বলেন, করোনার কারণে ২ বছর রিকন্ডিশন্ড গাড়ি বেচাকেনা কমে যায়। এতে অপূরণীয় ক্ষতির মুখে পড়েন গাড়ি ব্যবসায়ীরা। তাই নিলাম প্রক্রিয়া বন্ধসহ এ ব্যবসা টিকিয়ে রাখতে সবার সহযোগিতা চান তিনি।

মোংলা বন্দরে ১৩২টি রিকন্ডিশন্ড গাড়ি নিলামে

করোনার কারণে তেমন সাড়া মেলেনি
 মোংলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি 
১৯ জানুয়ারি ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
মোংলা বন্দরে ১৩২টি রিকন্ডিশন্ড গাড়ি নিলামে
ফাইল ছবি

মোংলা বন্দরে দীর্ঘদিন পড়ে থাকা ১৩২টি বিলাসবহুল রিকন্ডিশন্ড গাড়িসহ ৫টি আমদানি পণ্যের লট নিলামে তোলা হয়। মঙ্গলবার মোংলা কাস্টম হাউজে এই নিলাম প্রক্রিয়া অনুষ্ঠিত হয়। তবে বছরের প্রথম এ নিলামে তেমন সাড়া মেলেনি। নিলামে ওঠা ১৩৭টি লটের বিপরীতে ৪০ জন বিডার টেন্ডারে অংশগ্রহণ ও দরপত্র দাখিল করেন।

কাস্টম হাউজ সূত্র জানায়, আইন অনুযায়ী আমদানির এক মাসের মধ্যে বন্দর থেকে গাড়ি ছাড়িয়ে নিতে হবে। নইলে কাস্টম কর্তৃপক্ষ নিলাম প্রক্রিয়া শুরু করে। বর্তমানে বন্দরে নিলামযোগ্য প্রায় ২,৮৮৪টি গাড়ি রয়েছে। এর মধ্যে মঙ্গলবার নিলামে তোলা হয় ১৩২টি গাড়ি ও আমদানি পণ্যের ৫টি লট। চলতি বছর প্রথম দফায় এ নিলাম প্রক্রিয়া অনুষ্ঠিত হয়। গত বছর একই প্রক্রিয়ায় ২১ দফায় নিলামে উঠেছিল আমদানি করা বিভিন্ন ব্রান্ডের সহস্রাধিক রিকন্ডিশন্ড গাড়ি। তবে করোনার কারণে এবার নিলাম প্রক্রিয়ায় অংশগ্রহণকারীদের উপস্থিতি কম বলে জানায় কাস্টমস কর্তৃপক্ষ।

এদিকে এ নিলাম প্রক্রিয়া নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন গাড়ি আমদানিকারকরা। বারভিডার (গাড়ি আমাদানিকারকদের সংগঠন) সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মাদ শহিদুল ইসলাম বলেন, করোনার কারণে ২ বছর রিকন্ডিশন্ড গাড়ি বেচাকেনা কমে যায়। এতে অপূরণীয় ক্ষতির মুখে পড়েন গাড়ি ব্যবসায়ীরা। তাই নিলাম প্রক্রিয়া বন্ধসহ এ ব্যবসা টিকিয়ে রাখতে সবার সহযোগিতা চান তিনি।

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন