বশেমুরবিপ্রবির বিভাগীয় সভাপতিকে অব্যাহতি
jugantor
ছাত্রীকে অনৈতিক প্রস্তাব
বশেমুরবিপ্রবির বিভাগীয় সভাপতিকে অব্যাহতি

  গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি  

২৬ জানুয়ারি ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বশেমুরবিপ্রবির বিভাগীয় সভাপতিকে অব্যাহতি

ছাত্রীর সঙ্গে অনৈতিক ফোনালাপের অডিও ফাঁসসহ বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগে গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) কৃষি বিভাগের সভাপতি এইচএম আনিসুজ্জামানকে সাময়িক অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত ওই বিভাগের ডিন মোজাহার আলীকে সভাপতির দায়িত্ব পালন করতে বলা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার মোরাদ হোসেন স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে মঙ্গলবার এ তথ্য জানানো হয়েছে। তিনি বলেন, পত্র-পত্রিকার খবর ও শিক্ষার্থীদের আবেদনের বিষয়ে সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে এইচএম আনিসুজ্জামানকে সভাপতির পদ থেকে সাময়িক অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হবে। তদন্তের পরে অভিযোগ প্রমাণিত না হলে তাকে পুনরায় সভাপতির দায়িত্ব দেওয়া হবে।

এর আগে গত রোববার কৃষি বিভাগের সভাপতি এইচএম আনিসুজ্জামানের বিরুদ্ধে রেজিস্ট্রার দফতরে বিভাগের শিক্ষার্থীরা নানা অনিয়ম, দুর্নীতি ও এক ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগ করেন। অভিযোগের মধ্যে রয়েছে পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস, পরীক্ষার নম্বরপত্রে গরমিল করা, উত্তরপত্রে নিজের ইচ্ছামাফিক নম্বর বসিয়ে দেওয়া, শিক্ষাসফরের অর্থনৈতিক অনুদান ও হিসাব-নিকাশে অস্বচ্ছতা, ছাত্রছাত্রীদের পরীক্ষায় অনুত্তীর্ণ করানোর হুমকি দেওয়া। বিভাগের শিক্ষার্থীরা জানান, সম্প্রতি এক ছাত্রীর সঙ্গে এইচএম আনিসুজ্জামানের আপত্তিকর ফোনালাপের অডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়। এ বিষয়ে অভিযুক্ত শিক্ষক আনিসুজ্জামানের কাছে জানতে চাইলে তিনি বিষয়টি অস্বীকার করেন। তিনি বলেন, এগুলো সম্পূর্ণ বানোয়াট। ভাইরাল হওয়া অডিওর কণ্ঠ তার নয়। তার দাবি, এটা সম্পূর্ণ শত্রুতামূলক ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। কিছুদিন আগে শিক্ষক সমিতির নির্বাচন ছিল। আমি নির্বাচনে অংশ নিয়েছিলাম। রাজনৈতিকভাবে হেয় করার জন্য প্রতিপক্ষ এই কাজ করেছে।

প্রসঙ্গত, এ পর্যন্ত বশেমুরবিপ্রবির সাবেক উপাচার্যসহ ১২ জন শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ পাওয়া গেল।

ছাত্রীকে অনৈতিক প্রস্তাব

বশেমুরবিপ্রবির বিভাগীয় সভাপতিকে অব্যাহতি

 গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি 
২৬ জানুয়ারি ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ
বশেমুরবিপ্রবির বিভাগীয় সভাপতিকে অব্যাহতি
সংগৃহীত

ছাত্রীর সঙ্গে অনৈতিক ফোনালাপের অডিও ফাঁসসহ বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগে গোপালগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) কৃষি বিভাগের সভাপতি এইচএম আনিসুজ্জামানকে সাময়িক অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত ওই বিভাগের ডিন মোজাহার আলীকে সভাপতির দায়িত্ব পালন করতে বলা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার মোরাদ হোসেন স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে মঙ্গলবার এ তথ্য জানানো হয়েছে। তিনি বলেন, পত্র-পত্রিকার খবর ও শিক্ষার্থীদের আবেদনের বিষয়ে সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে এইচএম আনিসুজ্জামানকে সভাপতির পদ থেকে সাময়িক অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হবে। তদন্তের পরে অভিযোগ প্রমাণিত না হলে তাকে পুনরায় সভাপতির দায়িত্ব দেওয়া হবে।

এর আগে গত রোববার কৃষি বিভাগের সভাপতি এইচএম আনিসুজ্জামানের বিরুদ্ধে রেজিস্ট্রার দফতরে বিভাগের শিক্ষার্থীরা নানা অনিয়ম, দুর্নীতি ও এক ছাত্রীকে যৌন হয়রানির অভিযোগ করেন। অভিযোগের মধ্যে রয়েছে পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস, পরীক্ষার নম্বরপত্রে গরমিল করা, উত্তরপত্রে নিজের ইচ্ছামাফিক নম্বর বসিয়ে দেওয়া, শিক্ষাসফরের অর্থনৈতিক অনুদান ও হিসাব-নিকাশে অস্বচ্ছতা, ছাত্রছাত্রীদের পরীক্ষায় অনুত্তীর্ণ করানোর হুমকি দেওয়া। বিভাগের শিক্ষার্থীরা জানান, সম্প্রতি এক ছাত্রীর সঙ্গে এইচএম আনিসুজ্জামানের আপত্তিকর ফোনালাপের অডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়। এ বিষয়ে অভিযুক্ত শিক্ষক আনিসুজ্জামানের কাছে জানতে চাইলে তিনি বিষয়টি অস্বীকার করেন। তিনি বলেন, এগুলো সম্পূর্ণ বানোয়াট। ভাইরাল হওয়া অডিওর কণ্ঠ তার নয়। তার দাবি, এটা সম্পূর্ণ শত্রুতামূলক ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। কিছুদিন আগে শিক্ষক সমিতির নির্বাচন ছিল। আমি নির্বাচনে অংশ নিয়েছিলাম। রাজনৈতিকভাবে হেয় করার জন্য প্রতিপক্ষ এই কাজ করেছে।

প্রসঙ্গত, এ পর্যন্ত বশেমুরবিপ্রবির সাবেক উপাচার্যসহ ১২ জন শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ পাওয়া গেল।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন