একনেক বৈঠকে অনুমোদন

প্রাথমিক শিক্ষার উন্নয়নে ৩৮ হাজার কোটি টাকা

পদ্মা সেতুর রেল সংযোগে ব্যয় ও মেয়াদ বাড়ছে

  যুগান্তর রিপোর্ট ২৩ মে ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

চতুর্থ প্রাথমিক শিক্ষা উন্নয়ন কর্মসূচি (পিইডিপি-৪) অনুমোদন দিয়েছে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক)। এটি বাস্তবায়নে ব্যয় হবে ৩৮ হাজার ৩৯৭ কোটি ১৬ লাখ টাকা। কর্মসূচিটি বাস্তবায়নে সহায়তা দেবে বিশ্বব্যাংক, এডিবি, জাইকাসহ ৬টি উন্নয়ন সহযোগী সংস্থা ও দেশ। এছাড়া পদ্মা সেতুতে রেল সংযোগ প্রকল্পের মেয়াদ ও ব্যয় বৃদ্ধিসহ মোট ১৬টি প্রকল্প অনুমোদন দেয়া হয়েছে। সবগুলো প্রকল্প বাস্তবায়নে ব্যয় ধরা হয়েছে ৯৬ হাজার ২৩৪ কোটি ৭৭ লাখ টাকা। এর মধ্যে সরকারি তহবিল থেকে ৫২ হাজার ৬৮৫ কোটি ৫ লাখ টাকা, বৈদেশিক সহায়তা থেকে ৪৩ হাজার ২২১ কোটি ১৭ লাখ এবং বাস্তবায়নকারী সংস্থাগুলো থেকে ৩২৮ কোটি ৫৫ লাখ টাকা ব্যয় করা হবে।

মঙ্গলবার রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত বৈঠকে এ অনুমোদন দেয়া হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন প্রধানমন্ত্রী ও একনেক চেয়ারপারসন শেখ হাসিনা। বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। এ সময় পরিকল্পনা সচিব জিয়াউল ইসলাম, সাধারণ অর্থনীতি বিভাগের সদস্য (সিনিয়র সচিব) ড. শামসুল আলম, আইএমইডি সচিব মফিজুল ইসলাম এবং ভৌত অবকাঠামো বিভাগের সদস্য জুয়েনা আজিজসহ পরিকল্পনা কমিশনের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

অনুমোদন পাওয়া প্রাথমিক শিক্ষা উন্নয়ন কর্মসূচিটি চলতি বছর থেকে ২০২৩ সালের জুনের মধ্যে বাস্তবায়ন করবে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর। এটি বাস্তবায়নের মাধ্যমে পাঠ্যসূচিতে নির্ধারিত শ্রেণীভিত্তিক ও বিষয়ভিত্তিক শিখন যোগ্যতা অর্জনের জন্য প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার গুণগত মান বাড়ানো হবে। সেই সঙ্গে সর্বজনীনভাবে বিস্তৃত একটি সুষ্ঠু শিক্ষা ব্যবস্থা নিশ্চিত করা হবে। যাতে শিশুরা প্রাথমিক শিক্ষার ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে সামর্থ্য হয়। তাছাড়া প্রাথমিক শিক্ষার ক্ষেত্রে একটি শক্তিশালী সুশাসন ব্যবস্থা, পর্যাপ্ত আর্থিক সংস্থান রাখা ও উন্নত ব্যবস্থাপনা নিশ্চিত করা হবে। ব্রিফিংয়ে পরিকল্পনামন্ত্রী জানান, অপর অনুমোদিত পদ্মা সেতু রেল সংযোগ প্রকল্পটির মূল ব্যয় ছিল ৩৪ হাজার ৯৮৮ কোটি ৮৬ লাখ টাকা। কিন্তু বর্তমানে ৪ হাজার ২৫৭ কোটি ৯৪ লাখ টাকা ব্যয় বাড়িয়ে প্রথম সংশোধনী ব্যয় অনুমোদন দেয়া হয়েছে। ফলে মোট ব্যয় দাঁড়াচ্ছে ৩৯ হাজার ২৪৬ কোটি ৮০ লাখ টাকা। ব্যয় বৃদ্ধির কারণ হিসেবে বলা হয়েছে, চীনের সঙ্গে ঋণ চুক্তিতে বিলম্ব হওয়া, সরকারি তহবিলের পরিমাণ বৃদ্ধি, বৈদেশিক সহায়তা কমে যাওয়া, ভূমি অধিগ্রহণের পরিমাণ ও ব্যয় বৃদ্ধি পরামর্শক সেবা, নির্মাণ কাজ, প্রকল্প বাস্তবায়ন ইউনিটের জন্য অন্যান্য ইনপুটের ব্যয় বৃদ্ধি, যানবাহন ক্রয় খাতে ব্যয় কমে যাওয়া এবং প্রকল্পের মেয়াদ ২০২৪ সালের জুন পর্যন্ত অর্থাৎ ২ বছর বৃদ্ধি পাওয়ায় প্রকল্পটি প্রথমবার সংশোধন করা হচ্ছে।

একনেকে অনুমোদিত অন্য প্রকল্পগুলো হচ্ছে- রূপসা ৮০০ মেগাওয়াট কম্বাইন্ড সাইকেল বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ, এটি বাস্তবায়নে ব্যয় হবে ৮ হাজার ৪৯৮ কোটি ৬৫ লাখ টাকা। কন্সট্রাকশন অব নিউ ১৩২/৩৩ কেভি অ্যান্ড ৩৩/১১ কেভি সাবস্টেশন আন্ডার ডিপিডিসি প্রকল্প, ব্যয় হবে ২ হাজার ৩৮৭ কোটি ৬৯ লাখ টাকা। ১৪টি চিনিকলে বর্জ্য পরিশোধনাগার (ইটিপি) স্থাপন, ব্যয় ৮৫ কোটি ১০ লাখ টাকা। এস্টাবলিশমেন্ট অব ৫০০ বেডেড হসপিটাল অ্যান্ড এনসিলারি ভবন ইন যশোর, কক্সবাজার, পাবনা ও আবদুল মালেক উকিল মেডিকেল কলেজ অ্যান্ড জননেতা নুরুল হক আধুনিক হাসপাতাল, নোয়াখালী প্রকল্প, ব্যয় ২ হাজার ১০৩ কোটি ৩২ লাখ টাকা। বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসের উন্নয়ন, ব্যয় ৮০৫ কোটি ৮৯ লাখ টাকা। তথ্য কমিশন ভবন নির্মাণ, ব্যয় ৭৫ কোটি টাকা। বাংলাদেশ বেতার, সিলেট কেন্দ্র আধুনিকায়ন ও ডিজিটাল সম্প্রচার যন্ত্রপাতি স্থাপন, ব্যয় ৫৬ কোটি ২২ লাখ টাকা। সাতক্ষীরা সড়ক ও সিটি বাইপাস সড়ককে সংযুক্ত করে সংযোগ সড়কসহ তিনটি লিংক রোড নির্মাণ, ব্যয় ৩৯৪ কোটি ৬৭ লাখ টাকা। ঢাকার তেজগাঁওয়ে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য বহুতল আবাসিক ফ্ল্যাট নির্মাণ, ব্যয় ১৬৮ কোটি ৫২ লাখ টাকা। আশুগঞ্জ অভ্যন্তরীণ কনটেইনার নদীবন্দর স্থাপন, ব্যয় ১ হাজার ২৯৩ কোটি টাকা। বুড়িগঙ্গা, তুরাগ, শীতলক্ষ্যা ও বালু নদীর তীর ভূমিতে, পিলার স্থাপন, তীর রক্ষা, ওয়াকওয়ে ও জেটিসহ আনুষঙ্গিক অবকাঠামো নির্মাণ, ব্যয় ৮৪৮ কোটি ৫৫ লাখ টাকা। গুরুত্বপূর্ণ ১৯টি পৌরসভা অবকাঠামো উন্নয়ন, ব্যয় ৬১২ কোটি ১৩ লাখ টাকা। ঢাকা মহানগরীর ড্রেনেজ নেটওয়ার্ক সম্প্রসারণ এবং খাল উন্নয়ন, ব্যয় ৫৫০ কোটি ৫০ লাখ টাকা এবং ৫টি র‌্যাব ফোর্সেস ট্রেনিং স্কুল কমপ্লেক্স নির্মাণ, প্রকল্পটি বাস্তবায়নে ব্যয় হবে ৭১১ কোটি ৫১ লাখ টাকা।

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
bestelectronics

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
.