পদ্মা সেতুর উদ্বোধন দেখতে গিয়ে ২৩ জন নিয়ে নৌকাডুবি
jugantor
পদ্মা সেতুর উদ্বোধন দেখতে গিয়ে ২৩ জন নিয়ে নৌকাডুবি
ছাত্রলীগ নেতার লাশ উদ্ধার * ২২ জনকে জীবিত উদ্ধার করায় সচিব আনোয়ারের প্রতি কৃতজ্ঞতা

  চরফ্যাশন (ভোলা) প্রতিনিধি  

২৮ জুন ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান দেখে ঢাকায় যাওয়ার পথে পদ্মায় নৌকা ডুবে নিখোঁজ ছাত্রলীগ নেতা আল আফছার তামিমের লাশ উদ্ধার করেছে শরীয়তপুর জাজিরা থানা পুলিশ।

নিখোঁজ হওয়ার দুদিন পর সোমবার বেলা ২টার দিকে পদ্মা নদীতে তার ভাসমান লাশ পাওয়া যায়। তিনি ভোলার চরফ্যাশন কলেজ শাখা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক ও চরফ্যাশন পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডের মুজিব উদ্দিনের ছেলে।

শনিবার পদ্মা সেতুর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে যোগ দিতে তামিম ভোলা থেকে লঞ্চে রওয়ানা হয়ে অনুষ্ঠানস্থলে পৌঁছান। অনুষ্ঠান শেষে বেলা ২টার দিকে কাঁঠালবাড়ী থেকে একটি নৌকা ভাড়া করে আরও ২২ জনের সঙ্গে তিনি ঢাকার উদ্দেশে রওয়ানা হন। পথে তাদের নৌকাটি ডুবে যায়। দুর্ঘটনার পর তামিম বাদে অন্য সবাইকে উদ্ধার করেন পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব কবির বিন আনোয়ার ও তার সফরসঙ্গী এবং সেনাবাহিনী।

সচিব কবির বিন আনোয়ারের প্রতি কৃতজ্ঞতা : পদ্মায় নৌকাডুবির ঘটনায় ২২ যাত্রীকে উদ্ধার করায় পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব কবির বিন আনোয়ারের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন চরফ্যাশন উপজেলাবাসী ও উদ্ধার হওয়া যাত্রীদের স্বজনরা।

উদ্ধার হওয়া যাত্রীরা বলেন, শনিবার পদ্মা সেতু উদ্বোধনের পর কাঁঠালবাড়ী ঘাট থেকে মাওয়া ঘাটে যাওয়ার জন্য নৌকায় উঠি। সবাই চরফ্যাশন উপজেলার বাসিন্দা। মাওয়ার উদ্দেশে রওয়ানা দেওয়ার প্রায় ৩০ মিনিট পর নদীর প্রচণ্ড সে াতে নৌকা দুলতে থাকে। ৫-৭ মিনিট পর আবার স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসে। একটু পর প্রচণ্ড স্রোতে নৌকাটি ডুবে যায়। ট্রলারের বাঁশ ও কাঠ যার যার মতো করে ধরে ভেসে থাকেন। এ সময় ওই নৌরুট দিয়ে সেতু উদ্বোধন শেষে একটি রিসার্চবোটে যাচ্ছিলেন পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব কবির বিন আনোয়ার। তিনি নৌকা ডুবতে দেখে পানি উন্নয়ন বোর্ডের একটি স্পিডবোট খবর দিয়ে নিয়ে আসেন। তার নেতৃত্বে ২২ যাত্রীকে উদ্ধার করেন। এ সময় সচিবের সফরসঙ্গীরা ছাড়াও খবর পেয়ে সেনাবাহিনীর সদস্যরা উদ্ধার অভিযানে সহায়তা করেন। উদ্ধার-পরবর্তী গুরুতর অসুস্থদের বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়। ২২ যাত্রীকে উদ্ধার করায় চরফ্যাশন উপজেলার সামাজিক, রাজনৈতিক ও বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব কবির বিন আনোয়ারের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

পদ্মা সেতুর উদ্বোধন দেখতে গিয়ে ২৩ জন নিয়ে নৌকাডুবি

ছাত্রলীগ নেতার লাশ উদ্ধার * ২২ জনকে জীবিত উদ্ধার করায় সচিব আনোয়ারের প্রতি কৃতজ্ঞতা
 চরফ্যাশন (ভোলা) প্রতিনিধি 
২৮ জুন ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান দেখে ঢাকায় যাওয়ার পথে পদ্মায় নৌকা ডুবে নিখোঁজ ছাত্রলীগ নেতা আল আফছার তামিমের লাশ উদ্ধার করেছে শরীয়তপুর জাজিরা থানা পুলিশ।

নিখোঁজ হওয়ার দুদিন পর সোমবার বেলা ২টার দিকে পদ্মা নদীতে তার ভাসমান লাশ পাওয়া যায়। তিনি ভোলার চরফ্যাশন কলেজ শাখা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক ও চরফ্যাশন পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডের মুজিব উদ্দিনের ছেলে।

শনিবার পদ্মা সেতুর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে যোগ দিতে তামিম ভোলা থেকে লঞ্চে রওয়ানা হয়ে অনুষ্ঠানস্থলে পৌঁছান। অনুষ্ঠান শেষে বেলা ২টার দিকে কাঁঠালবাড়ী থেকে একটি নৌকা ভাড়া করে আরও ২২ জনের সঙ্গে তিনি ঢাকার উদ্দেশে রওয়ানা হন। পথে তাদের নৌকাটি ডুবে যায়। দুর্ঘটনার পর তামিম বাদে অন্য সবাইকে উদ্ধার করেন পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব কবির বিন আনোয়ার ও তার সফরসঙ্গী এবং সেনাবাহিনী।

সচিব কবির বিন আনোয়ারের প্রতি কৃতজ্ঞতা : পদ্মায় নৌকাডুবির ঘটনায় ২২ যাত্রীকে উদ্ধার করায় পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব কবির বিন আনোয়ারের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন চরফ্যাশন উপজেলাবাসী ও উদ্ধার হওয়া যাত্রীদের স্বজনরা।

উদ্ধার হওয়া যাত্রীরা বলেন, শনিবার পদ্মা সেতু উদ্বোধনের পর কাঁঠালবাড়ী ঘাট থেকে মাওয়া ঘাটে যাওয়ার জন্য নৌকায় উঠি। সবাই চরফ্যাশন উপজেলার বাসিন্দা। মাওয়ার উদ্দেশে রওয়ানা দেওয়ার প্রায় ৩০ মিনিট পর নদীর প্রচণ্ড সে াতে নৌকা দুলতে থাকে। ৫-৭ মিনিট পর আবার স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসে। একটু পর প্রচণ্ড স্রোতে নৌকাটি ডুবে যায়। ট্রলারের বাঁশ ও কাঠ যার যার মতো করে ধরে ভেসে থাকেন। এ সময় ওই নৌরুট দিয়ে সেতু উদ্বোধন শেষে একটি রিসার্চবোটে যাচ্ছিলেন পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব কবির বিন আনোয়ার। তিনি নৌকা ডুবতে দেখে পানি উন্নয়ন বোর্ডের একটি স্পিডবোট খবর দিয়ে নিয়ে আসেন। তার নেতৃত্বে ২২ যাত্রীকে উদ্ধার করেন। এ সময় সচিবের সফরসঙ্গীরা ছাড়াও খবর পেয়ে সেনাবাহিনীর সদস্যরা উদ্ধার অভিযানে সহায়তা করেন। উদ্ধার-পরবর্তী গুরুতর অসুস্থদের বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়। ২২ যাত্রীকে উদ্ধার করায় চরফ্যাশন উপজেলার সামাজিক, রাজনৈতিক ও বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব কবির বিন আনোয়ারের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন