রামেক হাসপাতালে রিপ্রেজেন্টেটিভদের কোমরে রশি
jugantor
প্রতিবাদে মানববন্ধন
রামেক হাসপাতালে রিপ্রেজেন্টেটিভদের কোমরে রশি

  রাজশাহী ও যশোর ব্যুরো  

২৮ জুন ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের বহির্বিভাগে রোগীদের চিকিৎসা ব্যবস্থাপত্র দেখার পরে ছবি তোলায় ওষুধ কোম্পানির ৫ রিপ্রেজেন্টেটিভকে (বিক্রয় প্রতিনিধি) কোমরে রশি বাঁধার ঘটনায় জড়িত আনসার সদস্যদের বিচার দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সোমবার বেলা ১১টার দিকে ওষুধ কোম্পানির রিপ্রেজেন্টেটিভরা হাসপাতালের সামনের রাস্তায় এ কর্মসূচি পালন করেন। তারা বলেন, কোমরে দড়ি বাঁধায় প্রকাশ্যে ক্ষমা চাইতে হবে। বাংলাদেশ ফার্মাসিউটিক্যালস রিপ্রেজেন্টেটিভস অ্যাসোসিয়েশন (ফারিয়া) রাজশাহী মহানগর শাখার উদ্যোগে এ প্রতিবাদ কর্মসূচি থেকে এর সঙ্গে জড়িত সংশ্লিষ্টদের বিচার দাবি করা হয়। এ সময় বক্তব্য দেন ফারিয়া কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি হাবিবুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক শফিউর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জুয়েল খান প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, রোববার সকালে বহির্বিভাগের সামনে ওষুধ কোম্পানির ৫ বিক্রয় প্রতিনিধি চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদের কাছ থেকে চিকিৎসা ব্যবস্থাপত্র চেয়ে নিয়ে ছবি তুলছিলেন। আনসার সদস্যরা বাধা দিলে উভয়পক্ষ বাগ্বিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়ে। একপর্যায়ে ওই ৫ প্রতিনিধিকে আটক করেন আনসার সদস্যরা। এরপর তাদের কোমরে দড়ি বেঁধে রাস্তার পাশে একটি গাছে বেঁধে রাখা হয়। পরে হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানির কাছে মুচলেকা দিয়ে ছাড়া পান তারা। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে রামেক হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানি বলেন, রিপ্রেজেন্টেটিভরা ব্যবস্থাপত্র দেখার নামে রোগীদের হয়রানি করেন। তাদের নিষেধ করার পরও হাসপাতাল চত্বরে এসে একই কাজ করেন। এ কারণে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছিল। আনসার সদস্যরা কয়েকজনকে ধরে আটকে রেখেছিল। কিন্তু কোমরে দড়ি বাঁধার বিষয়টি আমার জানা নেই।

যশোরে সমাবেশ : রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালকের কাছে ওষুধ কোম্পানি প্রতিনিধিকে লাঞ্ছিত ও হেনস্তার প্রতিবাদে যশোরে মানববন্ধন করেছেন বিভিন্ন ওষুধ কোম্পানির প্রতিনিধিরা। সোমবার দুপুরে ফার্মাসিউটিক্যালস রিপ্রেজেন্টেটিভস অ্যাসোসিয়েশন (ফারিয়া) যশোর জেলা শাখার আয়োজনে শহরের ভৈরব চত্বরে এ প্রতিবাদ সমাবেশ হয়। দুই ঘণ্টাব্যাপী এই সমাবেশে শতাধিক বিভিন্ন কোম্পানির প্রতিনিধিরা অংশ নেন।

প্রতিবাদ সমাবেশে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালকের বিচার দাবি করেন বক্তারা।

প্রতিবাদে মানববন্ধন

রামেক হাসপাতালে রিপ্রেজেন্টেটিভদের কোমরে রশি

 রাজশাহী ও যশোর ব্যুরো 
২৮ জুন ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের বহির্বিভাগে রোগীদের চিকিৎসা ব্যবস্থাপত্র দেখার পরে ছবি তোলায় ওষুধ কোম্পানির ৫ রিপ্রেজেন্টেটিভকে (বিক্রয় প্রতিনিধি) কোমরে রশি বাঁধার ঘটনায় জড়িত আনসার সদস্যদের বিচার দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সোমবার বেলা ১১টার দিকে ওষুধ কোম্পানির রিপ্রেজেন্টেটিভরা হাসপাতালের সামনের রাস্তায় এ কর্মসূচি পালন করেন। তারা বলেন, কোমরে দড়ি বাঁধায় প্রকাশ্যে ক্ষমা চাইতে হবে। বাংলাদেশ ফার্মাসিউটিক্যালস রিপ্রেজেন্টেটিভস অ্যাসোসিয়েশন (ফারিয়া) রাজশাহী মহানগর শাখার উদ্যোগে এ প্রতিবাদ কর্মসূচি থেকে এর সঙ্গে জড়িত সংশ্লিষ্টদের বিচার দাবি করা হয়। এ সময় বক্তব্য দেন ফারিয়া কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি হাবিবুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক শফিউর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জুয়েল খান প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, রোববার সকালে বহির্বিভাগের সামনে ওষুধ কোম্পানির ৫ বিক্রয় প্রতিনিধি চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদের কাছ থেকে চিকিৎসা ব্যবস্থাপত্র চেয়ে নিয়ে ছবি তুলছিলেন। আনসার সদস্যরা বাধা দিলে উভয়পক্ষ বাগ্বিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়ে। একপর্যায়ে ওই ৫ প্রতিনিধিকে আটক করেন আনসার সদস্যরা। এরপর তাদের কোমরে দড়ি বেঁধে রাস্তার পাশে একটি গাছে বেঁধে রাখা হয়। পরে হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানির কাছে মুচলেকা দিয়ে ছাড়া পান তারা। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে রামেক হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানি বলেন, রিপ্রেজেন্টেটিভরা ব্যবস্থাপত্র দেখার নামে রোগীদের হয়রানি করেন। তাদের নিষেধ করার পরও হাসপাতাল চত্বরে এসে একই কাজ করেন। এ কারণে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছিল। আনসার সদস্যরা কয়েকজনকে ধরে আটকে রেখেছিল। কিন্তু কোমরে দড়ি বাঁধার বিষয়টি আমার জানা নেই।

যশোরে সমাবেশ : রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালকের কাছে ওষুধ কোম্পানি প্রতিনিধিকে লাঞ্ছিত ও হেনস্তার প্রতিবাদে যশোরে মানববন্ধন করেছেন বিভিন্ন ওষুধ কোম্পানির প্রতিনিধিরা। সোমবার দুপুরে ফার্মাসিউটিক্যালস রিপ্রেজেন্টেটিভস অ্যাসোসিয়েশন (ফারিয়া) যশোর জেলা শাখার আয়োজনে শহরের ভৈরব চত্বরে এ প্রতিবাদ সমাবেশ হয়। দুই ঘণ্টাব্যাপী এই সমাবেশে শতাধিক বিভিন্ন কোম্পানির প্রতিনিধিরা অংশ নেন।

প্রতিবাদ সমাবেশে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালকের বিচার দাবি করেন বক্তারা।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন