ববি প্রক্টরের কাছে নিরাপত্তা চাওয়া ছাত্রকে নির্যাতন
jugantor
ববি প্রক্টরের কাছে নিরাপত্তা চাওয়া ছাত্রকে নির্যাতন

  বরিশাল ব্যুরো  

১৫ আগস্ট ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রক্টরের কাছে নিরাপত্তা চাওয়ায় এক ছাত্রলীগ কর্মীকে আটকে রেখে পৌনে দুই ঘণ্টা নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। প্রতিপক্ষ ছাত্রলীগ কর্মীরা এ নির্যাতন চালান বলে ওই শিক্ষার্থী জানিয়েছেন। প্রক্টর খোরশেদ আলম তাকে উদ্ধার করেন। নির্যাতনের শিকার রাব্বি খান রাজ বর্তমানে বরিশাল শের ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি আছেন। তিন লোক প্রশাসন বিভাগের চতুর্থ বর্ষের ছাত্র। রোববার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে একটি ভবনে এ নির্যাতনের ঘটনা ঘটে। এর আগে ৭ আগস্ট রাব্বি প্রক্টর ও বিভাগীয় চেয়ারম্যানের কাছে নিরাপত্তা চেয়ে আবেদন করেছিলেন।

রাব্বি বরিশাল সদর আসনের সংসদ সদস্য ও পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক শামীমের অনুসারী অমিত হাসান রক্তিম গ্রুপের কর্মী। প্রতিপক্ষ মহিউদ্দীন আহমেদ সিফাতের নেতৃত্বে এ হামলার ঘটনা ঘটে বলে হাসপাতালের চিকিৎসাধীন রাব্বি অভিযোগ করেন। ববিতে কমিটি না থাকলেও সিফাত দীর্ঘদিন ছাত্রলীগের একটি পক্ষের নেতৃত্ব দিচ্ছেন। তিনি বরিশাল সিটি করপোরেশনের মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহর অনুসারী।

রাব্বি বলেন, প্রক্টরের আশ্বাসে আমি ক্যাম্পাসে ক্লাস টেস্ট পরীক্ষা দিতে যাই। পরীক্ষা দিয়ে দুপুর ১টার দিকে আমি উপাচার্যের বাসভবনের সামনে থেকে নগরীতে আসার জন্য গাড়ির অপেক্ষা করছিলাম। এ সময় চারজন সন্ত্রাসী এসে আমাকে ধরে ফেলে। পেছনে আরও ১০-১২ জন ছিল। পরে আমাকে তুলে বিশ্ববিদ্যালয়ের বাইরে নাজেমস নামের হোটেলের সামনে নিয়ে যায়। সেখানে সিফাত ৩০-৩৫ জন সন্ত্রাসী নিয়ে অপেক্ষা করছিল। সেখানে নেওয়ার পর সিফাত বগি দায়ের কাঠের হাতল দিয়ে আমার বাঁ ও ডান পায়ের হাঁটুতে পেটায়। এছাড়া সিফাতের সহযোগীরা আমার মাথায় ও পিঠে কিল-ঘুসি মেরে গুরুতর আহত করে। আটকে রেখে আমার ওপর এভাবে অকথ্য নির্যাতন চালানো হয়। এ সময় প্রক্টর খবর পেয়ে সিফাতকে ফোন করে আমাকে ছেড়ে দিতে অনুরোধ করেন। কিন্তু সিফাত তা উপেক্ষা করে আমার ওপর নির্যাতন অব্যাহত রাখে। পরে ২টা ৫১ মিনিটের দিকে প্রক্টর খোরশেদ আলম ঘটনাস্থলে এস আমাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠান।

ববি প্রক্টরের কাছে নিরাপত্তা চাওয়া ছাত্রকে নির্যাতন

 বরিশাল ব্যুরো 
১৫ আগস্ট ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রক্টরের কাছে নিরাপত্তা চাওয়ায় এক ছাত্রলীগ কর্মীকে আটকে রেখে পৌনে দুই ঘণ্টা নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। প্রতিপক্ষ ছাত্রলীগ কর্মীরা এ নির্যাতন চালান বলে ওই শিক্ষার্থী জানিয়েছেন। প্রক্টর খোরশেদ আলম তাকে উদ্ধার করেন। নির্যাতনের শিকার রাব্বি খান রাজ বর্তমানে বরিশাল শের ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি আছেন। তিন লোক প্রশাসন বিভাগের চতুর্থ বর্ষের ছাত্র। রোববার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে একটি ভবনে এ নির্যাতনের ঘটনা ঘটে। এর আগে ৭ আগস্ট রাব্বি প্রক্টর ও বিভাগীয় চেয়ারম্যানের কাছে নিরাপত্তা চেয়ে আবেদন করেছিলেন।

রাব্বি বরিশাল সদর আসনের সংসদ সদস্য ও পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক শামীমের অনুসারী অমিত হাসান রক্তিম গ্রুপের কর্মী। প্রতিপক্ষ মহিউদ্দীন আহমেদ সিফাতের নেতৃত্বে এ হামলার ঘটনা ঘটে বলে হাসপাতালের চিকিৎসাধীন রাব্বি অভিযোগ করেন। ববিতে কমিটি না থাকলেও সিফাত দীর্ঘদিন ছাত্রলীগের একটি পক্ষের নেতৃত্ব দিচ্ছেন। তিনি বরিশাল সিটি করপোরেশনের মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহর অনুসারী।

রাব্বি বলেন, প্রক্টরের আশ্বাসে আমি ক্যাম্পাসে ক্লাস টেস্ট পরীক্ষা দিতে যাই। পরীক্ষা দিয়ে দুপুর ১টার দিকে আমি উপাচার্যের বাসভবনের সামনে থেকে নগরীতে আসার জন্য গাড়ির অপেক্ষা করছিলাম। এ সময় চারজন সন্ত্রাসী এসে আমাকে ধরে ফেলে। পেছনে আরও ১০-১২ জন ছিল। পরে আমাকে তুলে বিশ্ববিদ্যালয়ের বাইরে নাজেমস নামের হোটেলের সামনে নিয়ে যায়। সেখানে সিফাত ৩০-৩৫ জন সন্ত্রাসী নিয়ে অপেক্ষা করছিল। সেখানে নেওয়ার পর সিফাত বগি দায়ের কাঠের হাতল দিয়ে আমার বাঁ ও ডান পায়ের হাঁটুতে পেটায়। এছাড়া সিফাতের সহযোগীরা আমার মাথায় ও পিঠে কিল-ঘুসি মেরে গুরুতর আহত করে। আটকে রেখে আমার ওপর এভাবে অকথ্য নির্যাতন চালানো হয়। এ সময় প্রক্টর খবর পেয়ে সিফাতকে ফোন করে আমাকে ছেড়ে দিতে অনুরোধ করেন। কিন্তু সিফাত তা উপেক্ষা করে আমার ওপর নির্যাতন অব্যাহত রাখে। পরে ২টা ৫১ মিনিটের দিকে প্রক্টর খোরশেদ আলম ঘটনাস্থলে এস আমাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠান।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন