সবচেয়ে বড় সুবিধাভোগী জিয়া ও তার পরিবার
jugantor
বঙ্গবন্ধু হত্যা নিয়ে তথ্যমন্ত্রী
সবচেয়ে বড় সুবিধাভোগী জিয়া ও তার পরিবার

  যুগান্তর প্রতিবেদন  

১৫ আগস্ট ২০২২, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, বঙ্গবন্ধু হত্যার সবচেয়ে বড় সুবিধাভোগী জিয়াউর রহমান ও তার পরিবার। বঙ্গবন্ধুর হত্যার দিন ভোরে জিয়াউর রহমান কেন সুটেড-বুটেড ছিলেন? তিনি কি তাহলে হত্যার ঘটনা শোনার অপেক্ষায় ছিলেন? যেখানে সেনাপতি হিসাবে বঙ্গবন্ধুকে রক্ষা করার কথা; কিন্তু তা না করে তিনি হত্যাকাণ্ডের বিষয়ে বলেছিলেন, ‘সো হোয়াট? ভাইস প্রেসিডেন্ট ইজ দেয়ার।’ রোববার জাতীয় প্রেস ক্লাবের তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া মিলনায়তনে ‘বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেন, বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারীদের বিদেশে পালানো ও বিভিন্ন দূতাবাসে চাকরির ব্যবস্থা করেছিলেন জিয়াউর রহমান। বঙ্গবন্ধু হত্যার কুশীলব, যেসব হত্যাকারী বেঁচে আছে, তাদের বিচারের আওতায় আনতে হবে। এ ব্যাপারে সঠিক তথ্য সন্নিবেশিত করতে একটি কমিশন গঠন করতে হবে। জাতীয় প্রেস ক্লাবের সভাপতি ফরিদা ইয়াসমিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে সাবেক তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী, সাবেক প্রধান তথ্য অফিসার গোলাম রহমান, বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবুল কালাম আজাদ, যুগান্তর সম্পাদক ও জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি সাইফুল আলম, সিনিয়র সাংবাদিক মনজুরুল আহসান বুলবুল, বিএফইউজে সভাপতি ওমর ফারুক, ডিইউজে সভাপতি সোহেল হায়দার চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক আকতার হোসেন, আবদুল জলিল ভূঁইয়া প্রমুখ বক্তব্য দেন। জাতীয় প্রেস ক্লাবের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাঈনুল আলম স্বাগত বক্তব্য দেন ও কোষাধ্যক্ষ শাহেদ চৌধুরী আলোচনায় অংশ নেন।

বঙ্গবন্ধু হত্যা নিয়ে তথ্যমন্ত্রী

সবচেয়ে বড় সুবিধাভোগী জিয়া ও তার পরিবার

 যুগান্তর প্রতিবেদন 
১৫ আগস্ট ২০২২, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, বঙ্গবন্ধু হত্যার সবচেয়ে বড় সুবিধাভোগী জিয়াউর রহমান ও তার পরিবার। বঙ্গবন্ধুর হত্যার দিন ভোরে জিয়াউর রহমান কেন সুটেড-বুটেড ছিলেন? তিনি কি তাহলে হত্যার ঘটনা শোনার অপেক্ষায় ছিলেন? যেখানে সেনাপতি হিসাবে বঙ্গবন্ধুকে রক্ষা করার কথা; কিন্তু তা না করে তিনি হত্যাকাণ্ডের বিষয়ে বলেছিলেন, ‘সো হোয়াট? ভাইস প্রেসিডেন্ট ইজ দেয়ার।’ রোববার জাতীয় প্রেস ক্লাবের তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া মিলনায়তনে ‘বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেন, বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারীদের বিদেশে পালানো ও বিভিন্ন দূতাবাসে চাকরির ব্যবস্থা করেছিলেন জিয়াউর রহমান। বঙ্গবন্ধু হত্যার কুশীলব, যেসব হত্যাকারী বেঁচে আছে, তাদের বিচারের আওতায় আনতে হবে। এ ব্যাপারে সঠিক তথ্য সন্নিবেশিত করতে একটি কমিশন গঠন করতে হবে। জাতীয় প্রেস ক্লাবের সভাপতি ফরিদা ইয়াসমিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে সাবেক তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী, সাবেক প্রধান তথ্য অফিসার গোলাম রহমান, বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবুল কালাম আজাদ, যুগান্তর সম্পাদক ও জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি সাইফুল আলম, সিনিয়র সাংবাদিক মনজুরুল আহসান বুলবুল, বিএফইউজে সভাপতি ওমর ফারুক, ডিইউজে সভাপতি সোহেল হায়দার চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক আকতার হোসেন, আবদুল জলিল ভূঁইয়া প্রমুখ বক্তব্য দেন। জাতীয় প্রেস ক্লাবের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাঈনুল আলম স্বাগত বক্তব্য দেন ও কোষাধ্যক্ষ শাহেদ চৌধুরী আলোচনায় অংশ নেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন