সিসিকে নির্বাচনী মাঠ ছাড়বেন না সেলিম

উল্টো সহযোগিতা চাইলেন আরিফের

  সিলেট ব্যুরো ০৯ জুলাই ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

বদরুজ্জামান সেলিম

সিলেট সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে নাগরিক কমিটির ব্যানারে মনোনয়নপত্র জমা দেয়া বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী বদরুজ্জামান সেলিম নির্বাচনী মাঠ ছাড়বেন না। তিনি উল্টো সহযোগিতা চেয়েছেন বিএনপির মনোনীত মেয়র প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরীর।

রোববার দুপুরে নগরীর দরগাহ গেটের একটি অভিজাত হোটেলে নাগরিক কমিটির ব্যানারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এমন অবস্থানের কথা জানান সেলিম।

তিনি বলেন, ‘আমি আশাবাদী দলের শীর্ষ নেতৃবৃন্দের শুভ বুদ্ধির উদয় হবে। তারা আরিফুল হক চৌধুরীর মনোনয়ন বাতিল করে দলের নেতাকর্মীর প্রত্যাশানুযায়ী আমাকে সমর্থন দেবেন। দল যদি সমর্থন নাও দেয়, তবুও আমি সিলেটবাসীর খেদমতে নিজেকে নিয়োজিত রাখব। নগরবাসী ও দলের তৃণমূল কাকে চায় ৩০ জুলাই সেটির ফয়সালা হবে।’

তিনি বলেন, ১৯৭৮ সালে সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের হাতে গড়া জাগদলের সদস্য হিসেবে রাজনীতি শুরু করেছি। পরে ছাত্রদলের জেলা সভাপতিসহ বিএনপির গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করে আসছি। ৪ দশক ধরে নিষ্ঠার সঙ্গে দলের নির্দেশ মেনে এসেছি, কোনো দিন ব্যত্যয় করিনি। এবার না হয় আমি দলের নির্দেশ অমান্য করলাম, কোনোভাবেই নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়াব না। সিলেট জেলা ও মহানগর বিএনপি তৃণমূল নেতাকর্মীরা আমার সঙ্গে রয়েছেন। নগরবাসী আমার সঙ্গে রয়েছেন।’

সেলিম আরও বলেন, আরিফুল হক চৌধুরী নিজের তথ্য গোপন করেছেন। তিনি সরকারি কলেজে পড়ালেখা করেছেন। তবে কেন তিনি মিথ্যার আশ্রয় নিয়ে স্বশিক্ষিত দাবি করলেন? এমন প্রশ্ন করে তথ্য গোপনের কারণে তার মনোনয়ন বাতিলের দাবি করেন সেলিম।

বিগত দিনে মেয়রের দায়িত্বপালন করা বদর উদ্দিন আহমদ কামরান ও আরিফুল হক চৌধুরীকে উদ্দেশ করে সেলিম বলেন, অতীতের দুই মেয়রের স্ত্রীরা এত সম্পদের মালিক বনে গেলেন কোন জাদুর মন্ত্রে- নগরবাসীর উচিত এটি চিন্তা করা। সাবেক দুই মেয়র ও তাদের গিন্নিরা সম্পদের হিসাব হলফনামায় তুলে ধরে নগরবাসীকে পরিহাস করছেন দাবি করে সেলিম বলেন, তবে কি মেয়র পদটি টাকা কামানোর মেশিন?

লিখিত বক্তব্যে বদরুজ্জামান সেলিম আরও বলেন, ‘আমি দীর্ঘ দিন ধরে মেয়র পদে নির্বাচনে অংশগ্রহণের লক্ষ্যে মাঠে কাজ করে যাচ্ছি। দল থেকেও আমাকে মনোনয়ন দেয়ার সম্ভাবনা ছিল এবং দলীয় হাইকমান্ডের নির্বাচনী সাক্ষাৎকারে দলের ৬ মনোনয়ন প্রত্যাশী আরিফুল হক চৌধুরীকে প্রার্থী না করার ব্যাপারে জোরালো দাবি জানান। তারা তখন আমাকে সমর্থন জানান। তারপরও আমাকে মনোনয়ন না দিয়ে আরিফুল হক চৌধুরীকে মনোনয়ন দেয়া হল। এটি অন্যায় করা হয়েছে।’

২০ দলীয় জোট ও বিএনপির কর্মিসভা নিয়ে সেলিম বলেন, ২০ দলীয় জোটও আরিফুল হক চৌধুরীকে মেনে নেয়নি। অন্যান্য শরিকদের মধ্যে অসন্তোষ বিরাজ করছে। জামায়াতে ইসলামী আলাদা প্রার্থী দিয়েছে। আরিফুল হক চৌধুরীর সমর্থনে সভার আয়োজন করলেও সেটিতে মাত্র ৪৭ জন নেতা উপস্থিত ছিলেন। অথচ ২৭টি ওয়ার্ড ও মহানগর কমিটি মিলে অন্তত ৫০০ নেতা শুধু কমিটিতেই আছেন। এতে প্রমাণিত হয় মহানগর কমিটি ও ওয়ার্ড কমিটির নেতাকর্মীরা আমার সমর্থনে কাজ করছেন। তাদের সঙ্গে আমার যোগাযোগ রয়েছে। তিনি আরিফুল হক চৌধুরীকেও তাকে সমর্থন দিয়ে সহযোগিতার আহ্বান জানান।

নাগরিক কমিটির ব্যানারে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হলেও বদরুজ্জামান সেলিম লিখিত বক্তব্যে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবি জানান। তিনি বলেন, আমি সাংবাদিকদের মাধ্যমে দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি ও সুচিকিৎসার দাবি জানাচ্ছি। পাশাপাশি বর্তমান ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানাচ্ছি।

ঘটনাপ্রবাহ : রাজশাহী-বরিশাল-সিলেট সিটি নির্বাচন ২০১৮

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter