রায়পুরায় শিশু মামুন হত্যায় গ্রেফতার ৩

১০ হাজার টাকায় ভাড়া করা হয় খুনিকে

প্রকাশ : ১২ জুলাই ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

  নরসিংদী প্রতিনিধি

নরসিংদীর রায়পুরায় ১০ হাজার টাকায় ভাড়া করা সন্ত্রাসী সাত বছরের শিশুকে খুন করে।

প্রবাসী সুজন মিয়ার ডিপোজিট করে রাখা টাকার প্রতি লোভ থেকেই তার শিশুছেলে মামুনকে অপহরণ করা হয়েছিল।

মুক্তিপণের টাকা না পেয়ে মামুনকে দু’দিন অভুক্ত রেখে মুখে স্কচটেপ ও গলায় রশি পেঁচিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়।

এ পরিকল্পনায় ছিলেন সুজন মিয়ার জেঠাতো ভাই জয়নাল মাস্টার। তিনি তার ছেলে আরমান, নাতি জিদান আর ভাড়া করা সন্ত্রাসী নাসিরের মাধ্যমে এ হত্যাকাণ্ড সংঘটিত করেন।

আর হত্যাকাণ্ড বাস্তবায়ন করেত কিলারের সঙ্গে ১০ হাজার টাকা রফা হয়। বুধবার পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে এ তথ্য জানান পুলিশ সুপার সাইফুল্লাহ আল মামুন।

পুলিশ জানায়, রায়পুরা উপজেলার হাসিমপুরের সুজন মিয়ার ছোট ছেলে মামুন মিয়া ২০ জুন নিখোঁজ হয়। পরে পরিবারের কাছে ৩০ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করা হয়।

এরই মধ্যে নিখোঁজের তিনদিন পর প্রতিবেশী জয়নাল মাস্টারের তিন তলা বাড়ির ছাদ থেকে হাত-পা বাঁধা ও গলায় গামছা পেঁচানো অবস্থায় মামুনের লাশ পাওয়া যায়।

এ ঘটনায় নিহতের বাবা বাদী হয়ে রায়পুরা থানায় মামলা করেন। হত্যায় জড়িত সন্দেহে জয়নাল মাস্টার, তার ছেলে আরমানকে আটক করে গোয়েন্দা পুলিশ।

পরে তাদের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে রাজনগরের নাসির মিয়াকে গ্রেফতার করে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে নাসির হত্যাকাণ্ডের দায় স্বীকার করেছেন।

একই সঙ্গে হত্যার নেপথ্যের বিষয়ে বিবরণ দেন। সংবাদ সম্মেলনে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শফিউর রহমান, গোয়েন্দা শাখার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা গোলাম মোস্তফাসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।