দুর্যোগ সহিংসতায় বিবর্ণ রাঙ্গামাটি

  সুশীল প্রসাদ চাকমা, রাঙ্গামাটি ৩০ ডিসেম্বর ২০১৭, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

হত্যা, সহিংসতা আর মানবিক বিপর্যয়ে রাঙ্গামাটিতে বছরজুড়ে অশান্তি ও বেদনার মধ্যে পার হয়েছে ২০১৭ সাল। ১৩ জুনের পাহাড় ধসে মানবিক বিপর্যয়, স্থানীয় যুবলীগ নেতা নুরুল ইসলাম নয়ন হত্যার জেরে লংগদুতে পাহাড়িদের তিন গ্রামে অগ্নিসংযোগে ও দুর্যোগে বছরজুড়ে ছিল একের পর হৃদয়বিদারক ও মর্মান্তিক ঘটনা। ডিসেম্বরেই জেলায় ঘটেছে তিন খুনের ঘটনা। পাহাড় ধসে ১২০ জনসহ বিভিন্ন ঘটনা ও দুর্যোগে প্রায় ১৩৫ জনের প্রাণহানি ঘটে জেলায়। বিস্তারিত তথ্যানুসন্ধানসহ ঘটনাপঞ্জির হিসাব মতে এসব তথ্য বেরিয়ে আসে। তথ্যসূত্র মতে, সর্বশেষ খুনের ঘটনাটি ঘটে ১৬ ডিসেম্বর। এদিন রাঙ্গামাটি সদর উপজেলার বন্দুকভাঙা ইউনিয়নের ধামাইছড়া নামক পাহাড়ি গ্রামে ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্টের (ইউপিডিএফ) তৃণমূল নেতা অনল বিকাশ চাকমা প্লুটো (৪২) ওরফে লক্ষ্মীকে গুলি করে হত্যা করে সন্ত্রাসীরা। তার আগে ৫ ডিসেম্বর একই দিনে পৃথক ঘটনায় জুরাছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও যুবলীগের সহ-সভাপতি অরবিন্দু চাকমাকে তার বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে এবং নানিয়ারচর উপজেলার দজরপাড়ায় নিজ বাড়িতে অনাদী রঞ্জন চাকমা নামে এক সাবেক ইউপি সদস্যকে গুলি করে হত্যা করে সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা। একই দিন জেলার বিলাইছড়িতে হত্যার উদ্দেশ্যে উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি রাসেল মারমাকে নিজ বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে নির্যাতন চালায় দুর্বৃত্তরা। এতে মারাত্মক আহত হন রাসেল মারমা। ৭ ডিসেম্বর রাঙ্গামাটি শহরের ভালেদী আদম এলাকায় তার নিজ বাড়িতে ঢুকে জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ঝরনা চাকমাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করে দুর্বৃত্তরা।

১ জুন স্থানীয় যুবলীগ নেতা ও মোটরবাইক চালক নুরুল ইসলাম নয়নের লাশ উদ্ধারকে কেন্দ্র করে পরদিন ২ জুন জেলার লংগদু সদর ইউনিয়নের তিনটিলা, মানিকজোড় ছড়া ও বাইট্যাপাড়ায় আগুন ধরিয়ে দিয়ে পাহাড়িদের ২১৮ বাড়িঘর পুড়িয়ে দেয় দুর্বৃত্তরা। ওই ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই ১৩ জুন ঘটে পাহাড় ধসে মানবিক বিপর্যয়। এতে সদরসহ জেলায় প্রাণহানি ঘটে ১২০ জনের, যাদের মধ্যে ছিলেন ৫ সেনাসদস্য। রাঙ্গামাটি-চট্টগ্রাম, রাঙ্গামাটি-খাগড়াছড়ি এবং বান্দরবান সড়কসহ অভ্যন্তরীণ বিভিন্ন রাস্তা, স্থাপনা, ফসলি জমিসহ ক্ষতি হয়েছে ব্যাপক। জেলা প্রশাসনের তথ্যসূত্র মতে, ওই দুর্যোগে শহরসহ জেলায় সম্পূর্ণ ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার ১২৩১ এবং আংশিক ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার ৯ হাজার ৫৩৭।

এছাড়া বছরের শুরুতে থেকেই ঘটতে থাকে অনাকাক্সিক্ষত ঘটনা ও নাশকতা। ২৩ জানুয়ারি রাঙ্গামাটির নানিয়ারচরে আগুন ধরিয়ে দুটি মালবাহী ট্রাক পুড়িয়ে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। নানিয়ারচর উপজেলার রাঙ্গামাটি-খাগড়াছড়ি সড়কের বেতছড়ি নামক এলাকায় ঘটনাটি ঘটে। ৩০ জানুয়ারি জেলার কাপ্তাই উপজেলার চন্দ্রঘোনার রাইখালীতে একটি বৌদ্ধমন্দিরের সংস্কার কাজ করার সময় দেয়াল ধসে মাটির চাপায় মংক্যচিং মারমা ও থ্যাসুমি মারমার মৃত্যু হয়েছে। উপজেলার রাইখালী ইউনিয়নের কারিগরপাড়ার মতিপাড়া বৌদ্ধবিহারে দুর্ঘটনাটি ঘটে।

১৬ মার্চ রাঙ্গামাটিতে পাকাবাড়ি নির্মাণের সময় পাশের পাহাড়ের পাকা দেয়াল ধসে ঘটনাস্থলেই বাড়ির মালিকসহ ৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। শহরের কলেজগেটের মন্ত্রিপাড়া এলাকায় দুর্ঘটনাটি ঘটেছে। এ দুর্ঘটনায় মৃতরা হলেন- বাড়ির মালিক মো. শামসুল আলম, নির্মাণ শ্রমিক কালু মালাকার ও হানিফ ফরাজি।

১৫ এপ্রিল রাঙ্গামাটির নানিয়ারচরে ছাদেকুল ইসলাম নামে এক মোটরবাইক চালককে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। নানিয়ারচর উপজেলার ঘিলাছড়ির লাঙেলপাড়া নামক এলাকা থেকে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এরপর রাঙ্গামাটির নানিয়ারচরে গাড়ি পুড়িয়ে দেয়ার ঘটনায় ৫ এপ্রিল আটক ইউপিডিএফ সমর্থনপুষ্ট পিসিপি নেতা রমেল চাকমার চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১৯ এপ্রিল চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মৃত্যু হয়।

অন্যদিকে ২ মে রাঙ্গামাটির কাপ্তাই লেক থেকে শফিকুল ইসলাম নামে এক বোট চালকের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এপ্রিলে জেলার কাউখালীতে এক পাহাড়ি মেয়েকে (১৭) অপহরণ করে টানা প্রায় দুই মাস আটকে রেখে উপর্যুপরি ধর্ষণ করেছে এক নরপশু। ৪ মে উদ্ধার করে ভিকটিমকে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেন স্থানীয় চেয়ারম্যান। এদিকে ১৯ মে রাঙ্গামাটি শহরের ভেদভেদী এলাকায় জান্নাতুল ফেরদৌস টুম্পা নামে এক গৃহবধূকে হত্যা করে তার স্বামী মাহমুদুল হাসান। এছাড়া রাঙ্গামাটিতে আরও অনেক অনাকাক্সিক্ষত ঘটনা ঘটেছে ২০১৭ সালের বিভিন্ন সময়ে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter