কেনাকাটায় শর্ত শিথিল

জরুরি ভিত্তিতে অনুমোদন ছাড়াই পণ্য কিনবে টিসিবি

  যুগান্তর রিপোর্ট ২৫ আগস্ট ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

কোনো উপলক্ষ পেলেই নানা অজুহাতে কারসাজি করে খাদ্যপণ্যের দাম বাড়ায় ব্যবসায়ীরা। এতে দিশেহারা হয়ে পড়েন সাধারণ ভোক্তা। তবে এবার ব্যবসায়ীদের এমন কারসাজির কিছুটা লাগাম টানা সম্ভব হবে। বাজারে পণ্যের ঘাটতি পূরণ ও নিত্যপণ্যের দাম বাড়লেই মন্ত্রণালয়ের কোনো ধরনের অনুমোদন ছাড়াই ৩ দিনে পণ্য ক্রয় করে নায্যমূল্যে বিক্রি করতে পারবে রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠান ট্রেডিং কর্পোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি)।

এ বিষয়ে টিসিবির মুখপাত্র হুমায়ুন কবির শনিবার যুগান্তরকে বলেন, ‘বাজার স্থিতিশীল করার জন্য টিসিবি কোনো অনুমতি ছাড়া সরাসরি পণ্য কিনতে পারবে। আগে যে পদ্ধতি অনুসরণ করা হতো, সেই পদ্ধতিই অনুসরণ করে পণ্য কেনা হবে। তবে যে পণ্য কিনতে টিসিবি’র ২৮ থেকে ৪২ দিন সময় লাগে, সেটা ৩ থেকে সর্বোচ্চ ৫ দিনের মধ্যে নোটিশ দিয়ে টেন্ডারের মাধ্যমে কিনতে পারবে। সবই ঠিক থাকবে, শুধু টাইম ডিউরেশনটা কমে যাবে। এতে একটু হলেও ভালো হবে।’ জানা গেছে, টিসিবি এতদিন অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির অনুমোদন নিয়ে দরপত্র আহ্বানের মাধ্যমে পণ্য সংগ্রহ করত। ৭ আগস্ট বাণিজ্য মন্ত্রণালয় অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটিতে টিসিবির সরাসরি পণ্য কেনার প্রস্তাব উত্থাপন করে। ১৬ আগস্ট প্রধানমন্ত্রী প্রস্তাবটি অনুমোদন করেন। আর সরকারি ক্রয় আইন ২০০৬-এর ৬৮(১) ধারা অনুযায়ী ২০২১ সালের ২৬ মে পর্যন্ত টিসিবিকে এ সুযোগ দেয়া হয়েছে। জানা গেছে, টিসিবি পেঁয়াজ, রসুন, মসুর ডাল, ছোলা, মসলা (শুকনা মরিচ, দারুচিনি, লবঙ্গ, এলাচ, ধনিয়া, জিরা, আদা, তেজপাতা), সয়াবিন তেল, পাম অয়েল, চিনি, খাবার লবণসহ বিভিন্ন পণ্য দরপত্র ছাড়া স্থানীয় ও আন্তর্জাতিক বাজার থেকে সরাসরি সংগ্রহ করতে পারবে।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×