মুজিববর্ষের লোগোসংবলিত পণ্যের বিক্রি বাড়ছে
jugantor
মুজিববর্ষের লোগোসংবলিত পণ্যের বিক্রি বাড়ছে
মুজিববর্ষকে ঘিরে টি-শার্ট পাঞ্জাবি, ক্রেস্ট, মগ শো-পিছ ও ক্যাপসহ লোগোসংবলিত নানা ধরনের পণ্য বিক্রি হচ্ছে

  ইয়াসিন রহমান  

১৫ মার্চ ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মো. রবিউল ইসলাম। মুজিববর্ষের লোগোসংবলিত পাঞ্জাবি কিনতে এসেছেন রাজধানীর শাহবাগ এলাকার আজিজ সুপার মার্কেটে। তার সঙ্গে কথা হলে তিনি বলেন, জাতীর পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে আমি দেখিনি। কিন্তু তার আদর্শ ও চেতনায় বুক ভরা সাহস নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছি। বঙ্গবন্ধুকে আমি অনেক বেশি ভালোবাসি। তাই তার জন্মশতবার্ষিকীতে তার ছবি ও মুজিববর্ষের লোগোসংবলিত পাঞ্জাবি পরে আমি খুব গর্ববোধ করছি। দিনটিকে আমি স্মরণীয় করে রাখতে আমার এই ক্ষুদ্র চেষ্টা।

রাজধানীর নিউ মার্কেটে কথা হয় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী রাহাত হাসানের সঙ্গে। তিনি বলেন, মুজিববর্ষের জন্য জাতির পিতার ছবিসংবলিত একটি টি-শার্ট কিনতে এসেছি। এখানে চার বন্ধু মিলে এসেছি। সবাই আমারা টি-শার্ট কিনব। আজিজ মার্কেটের পোশাক ব্যবসায়ী মো. ইকরামুল বলেন, জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে তার ছবিসংবলিত কিছু ডিজাইনের পোশাক তুলেছিলাম। ক্রেতারা এসব পোশাক কিনছেন। বিক্রি ভালো হয়েছে। তবে করোনাভাইরাস না থাকলে মিটিং মিছিল ও র‌্যালি থাকলে বিক্রি আরও ভালো হতো। কারণ সবাই র‌্যালিতে এসব পোশাক পরে অংশগ্রহণ করত। এতে বিক্রি আরও বাড়ত। তারপরও বিক্রি ভালো হচ্ছে।

বঙ্গবাজার মার্কেটের টি-শার্ট ব্যবসায়ী মো. আমিনুল বলেন, দুই মাস আগ থেকে সরকারি-বেসরকারি অনেক প্রতিষ্ঠান মুজিববর্ষের লোগোসংবলিত টি-শার্ট অর্ডার করেছে- যা তৈরি করে সরবরাহ করেছি। এখনও করছি। এতে কিছু লাভ হয়েছে। তবে ভালোবাসা থেকে এই কাজ করেছি।

শুধু টি-শার্ট বা পাঞ্জাবিতেই নয়। মুজিববর্ষকে ঘিরে নানা ধরনের ক্রেস্ট, মগ, শো-পিস ও ক্যাপসহ বিভিন্ন পণ্যে মুজিববর্ষের লোগো ও বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিসংবলিত বিভিন্ন পণ্য বাজারজাত করা হচ্ছে। এগুলোর বিক্রিও বেড়েছে। রাজধানীর কাঁটাবন এলাকায় বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিসংবলিত বিভিন্ন ধরনের ক্রেস্ট বিক্রি হচ্ছে। বিশেষ করে বিভিন্ন পদক প্রদানের জন্য এসব ক্রেস্ট তৈরি করা হচ্ছে। এছাড়া বিভিন্ন ধরনের প্লেট, মগ, বাটিতেও বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি- যা বিক্রি করা হচ্ছে। বিক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, এক মাস ধরে বিভিন্ন কোম্পানি ও প্রতিষ্ঠান তাদের এখান থেকে কাঠে খোদাইকৃত বা ছাপানো ক্রেস্ট, মগ, প্লেটে মুজিববর্ষের লোগোসংবলিত ডিজাইন করে নিয়েছেন। বিক্রিও ভালো হয়েছে। আর এই কাজগুলো করতে তাদেরও অনেক ভালো লেগেছে। কারণ জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকীতে তার ছবিসংবলিত কাজ তাদের অনেক আনন্দিত করেছে।

এদিকে বিভিন্ন মার্কেটে গিয়ে বিক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, মুজিববর্ষের লোগোসংবলিত চাবির রিং ৪০-১৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। টি-শার্ট ১৫০-২০০ টাকা। একটু ভালো মানের টি-শার্ট ৩০০-৫০০ টাকা। পাঞ্জাবি বিক্রি হচ্ছে ৭০০-১৫০০ টাকায়। এছাড়া লোগোসংবলিত মগ বিক্রি হচ্ছে ২০০-২৫০ টাকা। ক্রেস্ট ৪০০-১২০০ টাকা।

মুজিববর্ষের লোগোসংবলিত পণ্যের বিক্রি বাড়ছে

মুজিববর্ষকে ঘিরে টি-শার্ট পাঞ্জাবি, ক্রেস্ট, মগ শো-পিছ ও ক্যাপসহ লোগোসংবলিত নানা ধরনের পণ্য বিক্রি হচ্ছে
 ইয়াসিন রহমান 
১৫ মার্চ ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মো. রবিউল ইসলাম। মুজিববর্ষের লোগোসংবলিত পাঞ্জাবি কিনতে এসেছেন রাজধানীর শাহবাগ এলাকার আজিজ সুপার মার্কেটে। তার সঙ্গে কথা হলে তিনি বলেন, জাতীর পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে আমি দেখিনি। কিন্তু তার আদর্শ ও চেতনায় বুক ভরা সাহস নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছি। বঙ্গবন্ধুকে আমি অনেক বেশি ভালোবাসি। তাই তার জন্মশতবার্ষিকীতে তার ছবি ও মুজিববর্ষের লোগোসংবলিত পাঞ্জাবি পরে আমি খুব গর্ববোধ করছি। দিনটিকে আমি স্মরণীয় করে রাখতে আমার এই ক্ষুদ্র চেষ্টা।

রাজধানীর নিউ মার্কেটে কথা হয় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী রাহাত হাসানের সঙ্গে। তিনি বলেন, মুজিববর্ষের জন্য জাতির পিতার ছবিসংবলিত একটি টি-শার্ট কিনতে এসেছি। এখানে চার বন্ধু মিলে এসেছি। সবাই আমারা টি-শার্ট কিনব। আজিজ মার্কেটের পোশাক ব্যবসায়ী মো. ইকরামুল বলেন, জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে তার ছবিসংবলিত কিছু ডিজাইনের পোশাক তুলেছিলাম। ক্রেতারা এসব পোশাক কিনছেন। বিক্রি ভালো হয়েছে। তবে করোনাভাইরাস না থাকলে মিটিং মিছিল ও র‌্যালি থাকলে বিক্রি আরও ভালো হতো। কারণ সবাই র‌্যালিতে এসব পোশাক পরে অংশগ্রহণ করত। এতে বিক্রি আরও বাড়ত। তারপরও বিক্রি ভালো হচ্ছে।

বঙ্গবাজার মার্কেটের টি-শার্ট ব্যবসায়ী মো. আমিনুল বলেন, দুই মাস আগ থেকে সরকারি-বেসরকারি অনেক প্রতিষ্ঠান মুজিববর্ষের লোগোসংবলিত টি-শার্ট অর্ডার করেছে- যা তৈরি করে সরবরাহ করেছি। এখনও করছি। এতে কিছু লাভ হয়েছে। তবে ভালোবাসা থেকে এই কাজ করেছি।

শুধু টি-শার্ট বা পাঞ্জাবিতেই নয়। মুজিববর্ষকে ঘিরে নানা ধরনের ক্রেস্ট, মগ, শো-পিস ও ক্যাপসহ বিভিন্ন পণ্যে মুজিববর্ষের লোগো ও বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিসংবলিত বিভিন্ন পণ্য বাজারজাত করা হচ্ছে। এগুলোর বিক্রিও বেড়েছে। রাজধানীর কাঁটাবন এলাকায় বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিসংবলিত বিভিন্ন ধরনের ক্রেস্ট বিক্রি হচ্ছে। বিশেষ করে বিভিন্ন পদক প্রদানের জন্য এসব ক্রেস্ট তৈরি করা হচ্ছে। এছাড়া বিভিন্ন ধরনের প্লেট, মগ, বাটিতেও বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি- যা বিক্রি করা হচ্ছে। বিক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, এক মাস ধরে বিভিন্ন কোম্পানি ও প্রতিষ্ঠান তাদের এখান থেকে কাঠে খোদাইকৃত বা ছাপানো ক্রেস্ট, মগ, প্লেটে মুজিববর্ষের লোগোসংবলিত ডিজাইন করে নিয়েছেন। বিক্রিও ভালো হয়েছে। আর এই কাজগুলো করতে তাদেরও অনেক ভালো লেগেছে। কারণ জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকীতে তার ছবিসংবলিত কাজ তাদের অনেক আনন্দিত করেছে।

এদিকে বিভিন্ন মার্কেটে গিয়ে বিক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, মুজিববর্ষের লোগোসংবলিত চাবির রিং ৪০-১৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। টি-শার্ট ১৫০-২০০ টাকা। একটু ভালো মানের টি-শার্ট ৩০০-৫০০ টাকা। পাঞ্জাবি বিক্রি হচ্ছে ৭০০-১৫০০ টাকায়। এছাড়া লোগোসংবলিত মগ বিক্রি হচ্ছে ২০০-২৫০ টাকা। ক্রেস্ট ৪০০-১২০০ টাকা।

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন