সহজ হল ব্যক্তির ব্যাংক হিসাব খোলা
jugantor
সহজ হল ব্যক্তির ব্যাংক হিসাব খোলা

  যুগান্তর রিপোর্ট  

২২ মার্চ ২০২০, ০০:০০:০০  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ব্যাংক হিসাব খোলার পদ্ধতি সহজ করা হয়েছে। এজন্য দুই পৃষ্ঠার নতুন একটি ফরম অনুমোদন করা হয়েছে। সব ব্যাংককে হিসাব খোলার জন্য ওই আদলে ফরম ছাপাতে হবে। নতুন ফরমে হিসাব খোলার ক্ষেত্রে গ্রাহকরা অনেক হয়রানি থেকে মুক্ত থাকবেন। এ বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক একটি সার্কুলার জারি করে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর ব্যবস্থাপনা পরিচালকদের কাছে পাঠিয়েছে। ৩০ জুনের মধ্যে নতুন পদ্ধতিতে হিসাব খোলার ব্যবস্থা সম্পন্ন করতে হবে। এরপর আর আগের পদ্ধতিতে হিসাব খোলা যাবে না। নতুন পদ্ধতিতে খুলতে হবে।

আগে ব্যাংক হিসাব খোলার জন্য গ্রাহকদের নানা ধরনের তথ্য দিতে হতো। একই সঙ্গে দিতে হতো অনেক কাগজপত্র। নতুন পদ্ধতিতে বা নতুন ফরমে হিসাব খুলতে এত কাগজপত্র বা তথ্য লাগবে না। তবে মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ আইন অনুযায়ী গ্রাহকদের কেওয়াইসি বা গ্রাহককে জানার বিষয়ে আগের সব ধরনের তথ্য দিতে হবে। এগুলো অপরিবর্তিত থাকবে। কেওয়াইসি ছাড়াই আগে শুধু হিসাব খোলার জন্য ৭ থেকে ১০ পাতার ফরম ছিল। এখন তা কমিয়ে কেবল দুই পাতার ফরম করা হয়েছে। এতে শুধু গ্রাহক, পরিচয়দানকারী, নমিনি ও লেনদেনের তথ্য দিতে বলা হয়েছে।

নতুন পদ্ধতিতে ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান ও সরকারি প্রতিষ্ঠানের হিসাব খোলার জন্য ফরম আলাদা করা হয়েছে। ব্যক্তি হিসাব খোলার জন্য দুই পাতার ফরমে হিসাবধারীর নাম, হিসাবের ধরন, জন্ম তারিখ, পিতার নাম, মাতার নাম, স্বামী বা স্ত্রীর নাম, জাতীয়তা, পেশা, মাসিক আয়, অর্থের উৎস, ট্যাক্স আইডি নম্বর (যদি থাকে), বর্তমান ঠিকানা, স্থায়ী ঠিকানার তথ্য দিতে হবে।

হিসাব খোলার জন্য গ্রাহকের পরিচিতি নিশ্চিত করতে জাতীয় পরিচয়পত্র বা পাসপোর্ট, জন্ম নিবন্ধন নম্বর নির্দিষ্টভাবে উল্লেখ করতে হবে। এর যে কোনো একটি থাকলেই গ্রাহকের হিসাব খোলা যাবে। সিটি কর্পোরেশনের ওয়ার্ডের কমিশনার বা ইউনিয়ন পরিষদের কোনো সনদ লাগবে না। বর্তমানে অন্যান্য কাগজপত্রের সঙ্গে এসব সনদও দিতে হয়। গ্রাহককে শনাক্ত করার জন্য একজন পরিচয়দানকারী থাকতে হবে।

সহজ হল ব্যক্তির ব্যাংক হিসাব খোলা

 যুগান্তর রিপোর্ট 
২২ মার্চ ২০২০, ১২:০০ এএম  |  প্রিন্ট সংস্করণ

ব্যাংক হিসাব খোলার পদ্ধতি সহজ করা হয়েছে। এজন্য দুই পৃষ্ঠার নতুন একটি ফরম অনুমোদন করা হয়েছে। সব ব্যাংককে হিসাব খোলার জন্য ওই আদলে ফরম ছাপাতে হবে। নতুন ফরমে হিসাব খোলার ক্ষেত্রে গ্রাহকরা অনেক হয়রানি থেকে মুক্ত থাকবেন। এ বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংক একটি সার্কুলার জারি করে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোর ব্যবস্থাপনা পরিচালকদের কাছে পাঠিয়েছে। ৩০ জুনের মধ্যে নতুন পদ্ধতিতে হিসাব খোলার ব্যবস্থা সম্পন্ন করতে হবে। এরপর আর আগের পদ্ধতিতে হিসাব খোলা যাবে না। নতুন পদ্ধতিতে খুলতে হবে।

আগে ব্যাংক হিসাব খোলার জন্য গ্রাহকদের নানা ধরনের তথ্য দিতে হতো। একই সঙ্গে দিতে হতো অনেক কাগজপত্র। নতুন পদ্ধতিতে বা নতুন ফরমে হিসাব খুলতে এত কাগজপত্র বা তথ্য লাগবে না। তবে মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ আইন অনুযায়ী গ্রাহকদের কেওয়াইসি বা গ্রাহককে জানার বিষয়ে আগের সব ধরনের তথ্য দিতে হবে। এগুলো অপরিবর্তিত থাকবে। কেওয়াইসি ছাড়াই আগে শুধু হিসাব খোলার জন্য ৭ থেকে ১০ পাতার ফরম ছিল। এখন তা কমিয়ে কেবল দুই পাতার ফরম করা হয়েছে। এতে শুধু গ্রাহক, পরিচয়দানকারী, নমিনি ও লেনদেনের তথ্য দিতে বলা হয়েছে।

নতুন পদ্ধতিতে ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান ও সরকারি প্রতিষ্ঠানের হিসাব খোলার জন্য ফরম আলাদা করা হয়েছে। ব্যক্তি হিসাব খোলার জন্য দুই পাতার ফরমে হিসাবধারীর নাম, হিসাবের ধরন, জন্ম তারিখ, পিতার নাম, মাতার নাম, স্বামী বা স্ত্রীর নাম, জাতীয়তা, পেশা, মাসিক আয়, অর্থের উৎস, ট্যাক্স আইডি নম্বর (যদি থাকে), বর্তমান ঠিকানা, স্থায়ী ঠিকানার তথ্য দিতে হবে।

হিসাব খোলার জন্য গ্রাহকের পরিচিতি নিশ্চিত করতে জাতীয় পরিচয়পত্র বা পাসপোর্ট, জন্ম নিবন্ধন নম্বর নির্দিষ্টভাবে উল্লেখ করতে হবে। এর যে কোনো একটি থাকলেই গ্রাহকের হিসাব খোলা যাবে। সিটি কর্পোরেশনের ওয়ার্ডের কমিশনার বা ইউনিয়ন পরিষদের কোনো সনদ লাগবে না। বর্তমানে অন্যান্য কাগজপত্রের সঙ্গে এসব সনদও দিতে হয়। গ্রাহককে শনাক্ত করার জন্য একজন পরিচয়দানকারী থাকতে হবে।

 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন