ঋণের উচ্চ সুদহার অব্যাহত

সরকারের আরও কঠোর হওয়া উচিত

  যুগান্তর ডেস্ক    ০৮ নভেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

ঋণের উচ্চ সুদহার অব্যাহত
ছবি: সংগৃহীত

ব্যাংক ঋণের সুদের হার সিঙ্গেল ডিজিটে নামানোর ঘোষণা ও অঙ্গীকার নিয়ে বাগাড়ম্বর কম হয়নি। দেশের ব্যাংকগুলোর উদ্যোক্তা পরিচালকদের সংগঠন বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকসের (বিএবি) পক্ষ থেকে ১ জুলাই থেকে সবধরনের ঋণের সুদহার কমিয়ে এক অঙ্কে নামানোর ঘোষণা দেয়ার পর বিভিন্ন ব্যাংক ব্যক্তিগতভাবে পত্র-পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিয়ে এ সংক্রান্ত ঘোষণা প্রচার করেছিল।

এছাড়া এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী ও অর্থমন্ত্রীর নির্দেশও ছিল। কিন্তু কার্যত এ সবকিছুই ফাঁকা বুলিতে পর্যবসিত হয়েছে। সবচেয়ে আশ্চর্যজনক হল- ঘোষণা অনুযায়ী সুদহার কার্যকর না করার বিষয়ে অর্থমন্ত্রী ও বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নরের উপস্থিতিতে এক বৈঠক থেকে জানানো হয়েছিল- ৯ আগস্ট থেকে ক্রেডিট কার্ড ও ভোক্তা ঋণ ছাড়া সব ক্ষেত্রে ঋণের সুদহার এক অঙ্কে নামানো হবে, যা অধিকাংশ ব্যাংক গত সেপ্টেম্বর পর্যন্ত কার্যকর করেনি। কয়েক দফা ঘোষণা ও বাদ্য-বাজনার পরও ব্যাংকগুলোর ঋণের সুদহার সিঙ্গেল ডিজিটে নামিয়ে না আনার বিষয়টি দুঃখজনক ও অনভিপ্রেত।

ব্যাংকগুলোর প্রতিশ্রুতি, সর্বোপরি সরকারি নির্দেশনার পরও ব্যাংক ঋণের সুদহার সিঙ্গেল ডিজিটে না নিয়ে আসার বিষয়টি হতাশাজনক। জানা গেছে, এ ব্যাপারে নতুন প্রজন্মের ব্যাংকগুলো এক কাঠি সরেস। নতুন আটটিসহ ৩৯টি ব্যাংক সেপ্টেম্বর পর্যন্ত সুদহার সিঙ্গেল ডিজিটে নামিয়ে আনেনি। এসব ব্যাংক ওই সময় পর্যন্ত শিল্প ও বাণিজ্য ঋণে সুদ নিয়েছে সাড়ে ১১ থেকে সাড়ে ১৪ শতাংশ পর্যন্ত।

মূলত দেশে বিনিয়োগ সহায়ক পরিবেশ সৃষ্টির লক্ষ্যে ব্যাংকগুলোর ঋণের সুদহার কমানোর জন্য সরকারের পক্ষ থেকে উদ্যোগ নেয়া হয়েছিল। উদ্যোগটি কার্যকর না হওয়ায় উদ্যোক্তারা বিপাকে পড়েছেন, যা বলাই বাহুল্য। চড়া সুদের কারণে ঋণ নিয়ে শিল্প স্থাপন অনেকটা দুরূহ বিধায় উদ্যোক্তারা পুঁজি বিনিয়োগ না করে হাত গুটিয়ে বসে আছেন। এর ফলে শিল্পের বিকাশ ও নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টির সুযোগ বাধাগ্রস্ত হচ্ছে।

বলার অপেক্ষা রাখে না, ঋণের সুদের হার নিয়ে ব্যাংকগুলোর স্বেচ্ছাচারিতা অনাকাঙ্ক্ষিত ও অগ্রহণযোগ্য। ভারতসহ পার্শ্ববর্তী দেশগুলোয় বাণিজ্য সহায়ক পরিবেশ তৈরির তাগিদ থেকে ব্যাংকগুলোর সুদের হার ৬ শতাংশ ও সার্ভিস চার্জ নমনীয় পর্যায়ে রাখার সর্বাত্মক প্রচেষ্টা গ্রহণ করা হলেও আমাদের দেশে এর বিপরীত চিত্র পরিলক্ষিত হচ্ছে।

দেশে বিনিয়োগ সহায়ক পরিবেশ সৃষ্টির লক্ষ্যেই সরকার সুদের হার সিঙ্গেল ডিজিটে নামিয়ে আনার নির্দেশ দিয়েছিল। দেখা যাচ্ছে, অধিকাংশ ব্যাংক নানা অজুহাতে তা উপেক্ষা করে চলেছে। আমরা মনে করি, ঋণের সুদহার সিঙ্গেল ডিজিটে নামিয়ে আনার ক্ষেত্রে সরকারের আরও কঠোর হওয়া উচিত।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter