ঋণখেলাপিদের বর্জনের প্রস্তাব

উদাহরণ থেকে করণীয় নির্ধারণ করা হোক

  সম্পাদকীয় ০৯ নভেম্বর ২০১৮, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

সম্পাদকীয়

দেশে খেলাপি ঋণের পরিমাণ বৃদ্ধি পাওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে ঋণখেলাপিদের সামাজিকভাবে বর্জনের প্রস্তাবটি অত্যন্ত সময়োপযোগী বলে মনে করি আমরা।

বুধবার বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অব ব্যাংক ম্যানেজমেন্ট আয়োজিত বার্ষিক ব্যাংকিং সম্মেলনের প্রথম দিনে খেলাপি ঋণ কমিয়ে আনার কৌশল নির্ধারণ প্রসঙ্গে জোর দেয়া হয়েছে।

সম্মেলনে এ বিষয়ে পঠিত এক নিবন্ধে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ঋণখেলাপিদের বিরুদ্ধে নানা পদক্ষেপের উদাহরণ তুলে ধরে বলা হয়, ঋণ নিয়ে যারা ইচ্ছাকৃতভাবে ফেরত দেয় না তাদের রাষ্ট্রীয় ও সামাজিকভাবে ঘৃণা করতে হবে। শুধু তাই নয়, যাতে তারা নতুন করে ঋণ গ্রহণ, জমি ক্রয়, সম্পদ অধিগ্রহণ করে সমাজে প্রভাবশালী হয়ে উঠতে এবং ভোগবিলাস করে বেড়াতে না পারে, সেজন্য তাদের কালো তালিকাভুক্ত করতে হবে।

অনেক দেশেই ইচ্ছাকৃত ঋণখেলাপিদের পাসপোর্ট জব্দ করা হয়, যাতে তারা অন্য দেশে পালিয়ে যেতে না পারে। কোনো কোনো দেশে ঋণখেলাপিদের উচ্চ গতিসম্পন্ন ট্রেনে চড়তে দেয়া হয় না। চীনের সর্বোচ্চ আদালত সেদেশের সাড়ে ৬১ লাখ ঋণখেলাপির বিরুদ্ধে বিমান ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে। এছাড়া কর্পোরেট চাকরি বা নির্বাহী পদ থেকে অপসারণ করা হয়েছে ৭১ হাজার ঋণখেলাপিকে। এসব উদাহরণ আমাদের জন্য করণীয় নির্ধারণে সহায়ক হতে পারে।

আমরা লক্ষ করে আসছি, দেশের ব্যাংকিং খাত খেলাপি ঋণের বৃত্ত থেকে বের হতে পারছে না। এর প্রভাব যে শুধু সংশ্লিষ্ট ব্যাংকগুলোর ওপর পড়ছে তা নয়, ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে দেশের শিল্প খাতও। খেলাপি ঋণ বৃদ্ধির অন্যতম কারণ হল, ইচ্ছাকৃত ঋণখেলাপিদের বিরুদ্ধে কার্যকর ব্যবস্থা না নেয়া। দুর্ভাগ্যজনক, ব্যাংকিং খাতে সুশাসন ও জবাবদিহিতা প্রতিষ্ঠার বিষয়টি এখন পর্যন্ত নিশ্চিত করা যায়নি। ফলে মিথ্যা তথ্য ও জালিয়াতির মাধ্যমে ঋণ নেয়ার প্রবণতা অব্যাহত আছে।

কিছু অসৎ ব্যাংক কর্মকর্তা এ প্রক্রিয়ার সঙ্গে জড়িয়ে পড়ছে। এ অবস্থায় ব্যাংকিং খাতে সুশাসন প্রতিষ্ঠার পাশাপাশি ঋণখেলাপিদের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রীয় ও সামাজিকভাবে বর্জনের পদক্ষেপ নেয়া দরকার। ঋণখেলাপিদের নির্বাচনে অংশগ্রহণেরও অযোগ্য ঘোষণা করা উচিত। জানা গেছে, আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ঋণখেলাপিরা যাতে অংশ নিতে না পারে, সে লক্ষ্যে কাজ শুরু করেছে বাংলাদেশ ব্যাংকের ক্রেডিট ইনফরমেশন ব্যুরো (সিআইবি)।

এটি একটি ইতিবাচক উদ্যোগ অবশ্যই। তবে এ উদ্যোগ যেন লোক দেখানো না হয়, বাস্তবিকই ঋণখেলাপিদের নির্বাচনে অংশগ্রহণ ঠেকাতে ভূমিকা রাখে, তা নিশ্চিত করতে হবে।

আরও পড়ুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter