বাংলা সাহিত্যে অমর হয়ে থাকবেন কবি

  কাজী সুলতানুল আরেফিন ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

বাংলা সাহিত্যে

চলে গেলেন বাংলা সাহিত্যের অন্যতম প্রধান কবি আল মাহমুদ। দীর্ঘদিন রোগ ভোগের পর এই কবি ও লেখকের জীবনাবসান হয়েছে শুক্রবার রাত ১১টার দিকে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায়। ‘সোনালী কাবিন’ খ্যাত কবি আল মাহমুদের বয়স হয়েছিল ৮৩ বছর।

কবি আল মাহমুদকে ৯ ফেব্রুয়ারি রাতে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় ধানমণ্ডির ইবনে সিনা হাসপাতালে নেয়া হয়। তাকে প্রথমে সিসিইউতে ও পরে আইসিইউতে নেয়া হয়। নিউমোনিয়াসহ বার্ধক্যজনিত নানা জটিলতায় ভুগছিলেন তিনি।

কবির পুরো নাম মীর আবদুস শুকুর আল মাহমুদ। তবে আল মাহমুদ নামেই অধিক পরিচিত ছিলেন আধুনিক বাংলা সাহিত্যের অন্যতম প্রধান এই কবি। জন্মগ্রহণ করেন ১১ জুলাই ১৯৩৬ সালে, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায়। তিনি একাধারে কবি, ঔপন্যাসিক, প্রাবন্ধিক, ছোটগল্প লেখক, শিশুসাহিত্যিক ও সাংবাদিক ছিলেন। বিংশ শতাব্দীর দ্বিতীয়ার্ধে সক্রিয় থেকে তিনি আধুনিক বাংলা কবিতাকে নতুন আঙ্গিকে, চেতনায় ও বাক্ভঙ্গিতে বিশেষভাবে সমৃদ্ধ করেছেন। কবি আল মাহমুদ ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধেও অংশ নিয়েছিলেন। তিনি বাংলাদেশের স্বাধীনতা-পরবর্তীকালে প্রতিষ্ঠিত সরকারবিরোধী হিসেবে পরিচিত দৈনিক গণকণ্ঠ পত্রিকার সম্পাদক ছিলেন (১৯৭২-১৯৭৪)।

১৯৫০-এর দশকে যে কয়েকজন লেখক বাংলা ভাষা আন্দোলন, জাতীয়তাবাদ, রাজনীতি, অর্থনৈতিক নিপীড়ন এবং পাকিস্তানের সরকারবিরোধী আন্দোলন নিয়ে লিখেছেন, তাদের মধ্যে আল মাহমুদ একজন। লোক লোকান্তর (১৯৬৩), কালের কলস (১৯৬৬), সোনালী কাবিন (১৯৬৬) ইত্যাদি তার উল্লেখযোগ্য কাব্যগ্রন্থ। ১৯৬৮ সালে ‘লোক লোকান্তর’ ও ‘কালের কলস’- এ দুটি কাব্যগ্রন্থের জন্য তিনি বাংলা একাডেমি পুরস্কার লাভ করেন। তবে তার সবচেয়ে সাড়া জাগানো সাহিত্যকর্ম ‘সোনালী কাবিন’। এই কাব্যগ্রন্থের মাধ্যমে সাহিত্যানুরাগীদের মনে স্থায়ী জায়গা করে নেন কবি। এ কাব্যগ্রন্থ তাকে জনপ্রিয়তার তুঙ্গে নিয়ে যায়। ১৯৯৩ সালে বের হয় তার প্রথম উপন্যাস ‘কবি ও কোলাহল’।

শেষ সময়ে এসে কবির কবিতায় ধর্ম এবং সৃষ্টিকর্তার প্রতি আনুগত্য ও ভালোবাসার প্রতিফলন ঘটেছিল। কবি কোনো বিশেষ সুবিধা নেয়ার জন্য কারও প্রতি কোনো ধরনের নতজানু হননি। নিজের আদর্শ ও নীতির প্রতি ছিলেন অবিচল এবং সে আলোকেই জীবন চালনা করেছেন। কবি আল মাহমুদ বাংলা সাহিত্যে অমর হয়ে থাকবেন। মহান আল্লাহ্ কবিকে জান্নাতের বাসিন্দা করবেন এই দোয়া করি।

কাজী সুলতানুল আরেফিন : প্রাবন্ধিক

[email protected]

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৯

converter
×